Alexa

শ্বশুরবাড়িতে বেড়াতে গিয়ে শিশুকে ধর্ষণ

শ্বশুরবাড়িতে বেড়াতে গিয়ে শিশুকে ধর্ষণ

ছবি: সংগৃহীত

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম

রংপুরের এক আদিবাসী পল্লীতে ছয় বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে তিন সন্তানের জনক এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। ধর্ষণের শিকার শিশুটিকে রক্তাক্ত অবস্থায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১০ জানুয়ারি) দুপুরে রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার চৈত্রকোল ইউনিয়নের খালিশা গ্রামের আদিবাসী পল্লীতে শিশু ধর্ষণের এ ঘটনা ঘটে।

ধর্ষক রুবেল তির্কীকে এলাকাবাসী আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছেন। এর আগে বিক্ষুব্ধরা তিন সন্তানের জনক ঐ ধর্ষককে উত্তম-মধ্যম দিয়ে গলায় জুতার মালা পরিয়ে গ্রাম প্রদক্ষিণ করায়।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, মিঠাপুকুর উপজেলার পায়রাবতী কৃষ্ণপুর গ্রামের জলিউস তির্কীর পুত্র রুবেল তির্কী চার দিন আগে তার শ্বশুরবাড়ি পীরগঞ্জের চৈত্রকোল গ্রামে বেড়াতে আসেন।

গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় রুবেল তির্কী পাশ্ববর্তী খালিশা গ্রামে বেড়াতে যান। পরে সেখানে মিশন আদিবাসী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণীর এক শিশু শিক্ষার্থীকে আখ দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে গ্রামর পার্শ্ববর্তী আখ ক্ষেতে নিয়ে গিয়ে বলপূর্বক ধর্ষণ করে পালিয়ে যান রুবেল।

পরবর্তীতে রক্তাক্ত অবস্থায় শিশুটিকে স্থানীয় এলাকাবাসী উদ্ধার করে পীরগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপেক্সে ভর্তি করে। বৃহস্পতিবার দুপুরে ধর্ষণের এ ঘটনাটি জানাজানি হলে গ্রামবাসীর মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।

এক পর্যায়ে বিক্ষব্ধ গ্রামবাসী রুবেল তির্কীকে তার শ্বশুরবাড়ি চৈত্রকোল গ্রাম থেকে আটক করে উত্তম-মধ্যম দিয়ে গলায় জুতার মালা পরিয়ে গ্রাম প্রদক্ষিণ শেষে পুলিশে দিয়েছেন। এ ঘটনায় পীরগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে।

জাতীয় এর আরও খবর