Barta24

বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯, ২ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

নবনির্মিত কারাগারে বন্দী স্থানান্তর শুক্রবার

নবনির্মিত কারাগারে বন্দী স্থানান্তর শুক্রবার
সিলেটে নবনির্মিত কারাগার, ছবি: বার্তা২৪
সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট
সিলেট
বার্তা ২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

অবশেষে সিলেট শহরতলীর বাদাঘাটে নবনির্মিত সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দী স্থানান্তর কার্যক্রম শুরু হতে যাচ্ছে।

শুক্রবার (১১ জানুয়ারি) থেকে কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে নতুন কারাগারে বন্দীদের নিয়ে যাওয়া হবে। সিলেটের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) মোহাম্মদ নাসিরুল্লাহ খান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। গত বছরের ১ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নতুন এ কারাগার উদ্বোধন করেন।

বাদাঘাটে নবনির্মিত সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি স্থানান্তরের লক্ষ্যে গত রোববার (৬ জানুয়ারি) এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় ১১ জানুয়ারি শুক্রবার থেকে নগরীর ধোপাদিঘীরপারস্থ পুরাতন কারাগার থেকে বন্দি স্থানান্তর শুরুর সিদ্ধান্ত নেয় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। সভায় নেয়া সিদ্ধান্তের পরই এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয় কারা কর্তৃপক্ষ। এরই মাঝে পুরাতন কারাগারের প্রধান ফটকে নোটিশ সাঁটানো হয়।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jan/10/1547090304366.gif

নোটিশে বলা হয়, ‘সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে আটক বন্দীদের সাথে তাদের আত্মীয় স্বজনসহ সকলের সাক্ষাৎ কার্যক্রম আগামী ১০ জানুয়ারি থেকে ১২ জানুয়ারি পর্যন্ত বন্ধ থাকবে।’

উদ্বোধনের পর থেকে নবনির্মিত কারাগারের পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণ নেয় কারা কর্তৃপক্ষ। কারারক্ষীসহ কারা কর্মকর্তা-কর্মচারীরা নতুন কারাগারে অফিস করা শুরু করেন। তবে খুব গোপনীয়তার সাথে কারা কর্তৃপক্ষ বন্দী স্থানান্তরের প্রক্রিয়ায় এগোচ্ছিল।

বর্তমানে সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারের বন্দীর সংখ্যা প্রায় ২ হাজার ৩০০ জন। এর মধ্যে কয়েদি (সাজাপ্রাপ্ত) ৫০০ এবং হাজতি হলেন ১ হাজার ৮০০ জন। শুক্রবার (১১ জানুয়ারি) থেকে বন্দী স্থানান্তর কার্যক্রম শুরু হবে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jan/10/1547090324234.gif

মহানগর পুলিশের উপ কমিশনার (মিডিয়া) জেদান আল মুসা জানান, বন্দী স্থানান্তর কার্যক্রম নির্বিঘ্নে সম্পন্ন করতে ইতোমধ্যে শহরতলীর বাদাঘাটে নতুন এবং নগরীর ও ধুপাদীঘিপারে পুরাতন কারাগারে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হয়েছে। স্থানান্তরের সময় গুরুত্বপূর্ণ স্থানে বিশেষ নিরাপত্তা দেয়া হবে।

সিলেট নগরী থেকে ২৩০ বছর পর বাদাঘাটে স্থানান্তরিত হচ্ছে সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগার। এর আগে তৎকালীন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের ঐকান্তিক চেষ্টায় মূলত কারাগার স্থানান্তরের উদ্যোগ নেয়া হয়।

কারাগারটির নির্মাণকাজ শেষ হওয়ার কথা ছিল ২০১৫ সালের জুন মাসে। নির্দিষ্ট মেয়াদে কাজ শেষ করতে না পারায় তিন দফা মেয়াদ বৃদ্ধি করা হয়। সর্বশেষ ২০১৮ সালের ১ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা টেলিকনফারেন্সের মাধ্যমে নবনির্মিত সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগার উদ্বোধন করেন।

আপনার মতামত লিখুন :

সিলেটে বেড়েছে পাসের হার, জিপিএ-৫

সিলেটে বেড়েছে পাসের হার, জিপিএ-৫
সিলেট শিক্ষা বোর্ড

 

এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষায় পাসের হার ও জিপিএ-৫ উভয় ক্ষেত্রেই এবার ভালো ফল করেছে সিলেট শিক্ষা বোর্ড। এ বোর্ডে পাসে হার ৬৭ দশমিক শূন্য ৫ শতাংশ। গত বছর পাসের ছিল ৬২ দশমিক ১১ শতাংশ।

একই সঙ্গে গত বছরের থেকে এবার জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যাও বেড়েছে। সিলেট বোর্ডে জিপিএ-৫ পেয়েছেন এক হাজার ৯৪ জন। গত বছর  জিপিএ-৫  পেয়েছিলেন ৮৭৩ জন বলে জানান সিলেট মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো. কবির আহমদ।

এ বছর সিলেট ৭৬ হাজার ২৫১ শিক্ষার্থী এইচএসসি পরীক্ষা দিয়েছেন। এর মধ্যে মেয়ে ৪১ হাজার ৬০২ জন এবং ছেলে ৩৪ হাজার ৬৪৯ জন ।

পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারীর মধ্যে পাস করেছে ৫১ হাজার ১২৪ জন। এদের মধ্যে ছেলে ২২ হাজার ৪৯০ জন এবং মেয়ে ২৮ হাজার ৬৩৪ জন।

এ বছর বিজ্ঞান বিভাগ থেকে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৯৪৪ জন, মানবিক বিভাগ থেকে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৯১ জন এবং ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগ থেকে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫৯ জন।

পাসের হারে এগিয়ে কুমিল্লা বোর্ড, পিছিয়ে চট্টগ্রাম

পাসের হারে এগিয়ে কুমিল্লা বোর্ড, পিছিয়ে চট্টগ্রাম
ভিকারুননিসা নূন স্কুল এন্ড কলেজে ফলাফল দেখছে শিক্ষার্থীরা/ ছবি: সুমন শেখ

২০১৯ সালের উচ্চ মাধ্যমিক (এইচএসসি) ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে। এবারের পরীক্ষায় পাসের হার ৭৩ দশমিক ৯৩ শতাংশ ও জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে ৪৭ হাজার ২৮৬ জন পরীক্ষার্থী।

প্রকাশিত ফলাফলে দেখা যায়, এবার পাসের হারের শতকরা হিসাবে সবচেয়ে এগিয়ে কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ড। আর সবেচেয়ে পিছিয়ে আছে চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ড।

বুধবার (১৭ জুলাই) দুপুরে সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে ফলাফলের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন শিক্ষামন্ত্রী। এর আগে সকালে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে ফলের অনুলিপি তুলে দেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি ও শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী সহ সংশ্লিষ্ট বোর্ড প্রধানরা।

ফলাফলের বোর্ডভিত্তিক পরিসংখ্যান থেকে দেখা যায়, ঢাকা বোর্ডে পাসের হার ৭১ দশমিক ০৯ শতাংশ, রাজশাহী বোর্ডে ৭৬ দশমিক ৩৮ শতাংশ, কুমিল্লা বোর্ডে ৭৭ দশমিক ৭৪ শতাংশ, যশোর বোর্ডে ৭৫ দশমিক ৬৫ শতাংশ, চট্টগ্রাম বোর্ডে ৬২ দশমিক ১৯ শতাংশ, বরিশাল বোর্ডে ৭০ দশমিক ৬৫ শতাংশ, সিলেট বোর্ডে ৬৭ দশমিক ০৫ শতাংশ ও দিনাজপুর বোর্ডে পাসের হার ৭১ দশমিক ৭৮ শতাংশ।

এছাড়া মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডে পাস করেছে ৮৮ দশমিক ৫৬ শতাংশ, কারিগরি শিক্ষাবোর্ড থেকে পাস করেছে ৮২ দশমিক ৬২ শতাংশ ও ডিআইবিএস (ঢাকা)-এ পাসের হার ৬০ শতাংশ।

আরও পড়ুন: পাসের হারে এগিয়ে মেয়েরা

আরও পড়ুন: এইচএসসিতে পাসের হার ৭৩.৯৩%

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র