Barta24

শনিবার, ২৪ আগস্ট ২০১৯, ৯ ভাদ্র ১৪২৬

English

বাংলাদেশে ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলতে পারছে না জিম্বাবুয়ে

বাংলাদেশে ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলতে পারছে না জিম্বাবুয়ে
ক্রিকেট থেকেই দূরে সরে যাচ্ছে জিম্বাবুয়ে
সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট
বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

ভয়াবহ দুঃসময়ে দাঁড়িয়ে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট। এরইমধ্যে জিম্বাবুয়ের সদস্য পদ স্থগিত করেছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। দেশটির বোর্ডে সরকারের রাজনৈতিক হস্তক্ষেপের পরই এমন কঠিন সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ব ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা। এ কারণেই থমকে গেল দেশটির ক্রিকেট।

নিরুপায় হয়ে এবার ত্রিদেশীয় টি-টুয়েন্টি সিরিজ খেলতে বাংলাদেশে আসতে অপারগতার কথা জানিয়েছেন জিম্বাবুয়ের ক্রিকেট কর্তারা। সেপ্টেম্বরে অনুষ্ঠেয় এই টুর্নামেন্টে খেলার কথা ছিল জিম্বাবুয়ের।

গত শনিবার জিম্বাবুয়ে ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা জানায়-সামনের মৌসুমে ঘরোয়া টুর্নামেন্টই আয়োজনের সামর্থ্য নেই তাদের। একইভাবে অর্থনৈতিক কারণে নিকট ভবিষ্যতে আন্তর্জাতিক সিরিজেও খেলতে পারছে না তারা।

আরও পড়ুন- সদস্য পদ স্থগিতে ক্রিকেটের বাইরে জিম্বাবুয়ে

সরকারের হস্তক্ষেপের কারণে লন্ডনে আইসিসির সভায় সর্ব সম্মতিক্রমে জিম্বাবুয়ের সদস্য পদ স্থগিত করা হয়। এই নিষেধাজ্ঞার পর থমকে গেল জিম্বাবুয়ের ক্রিকেট। তারা আইসিসি'র কোনো ইভেন্টে অংশ নিতে পারবে না। জাতীয় দল ও বয়সভিত্তিক দলের ক্রিকেট বন্ধ হয়ে গেল। এমন কী আইসিসির কাছ থেকে কোনো অর্থও পাবে না তারা।

এ অবস্থায় এক বিবৃতিতে ক্রিকেট জিম্বাবুয়ে জানিয়েছে, ‘আইসিসির নিষেধাজ্ঞায় সব কিছুই আটকে গেল। আমাদের দেশে একটি বৈশ্বিক টুর্নামেন্টের বাছাইপর্ব হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সেটা এখন অনিশ্চিত হয়ে গেছে। খেলোয়াড় এবং কর্মকর্তারা রয়েছেন চরম বিপাকে। তারা হয়ত কয়েক মাস এমনও হতে পারে আজীবন বেতন ও ম্যাচ ফি বিহীন থাকবে।’

আরও পড়ুন- আইসিসির সিদ্ধান্তে দিশেহারা জিম্বাবুয়ের ক্রিকেটাররা

হতাশ দেশটির তারকা অলরাউন্ডার সিকান্দার রাজা। দিন দুয়েক আগে তিনি বলেন, ‘জানি না আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার হিসেবে আমরা কোথায় খেলব। ক্লাব ক্রিকেটে খেলব নাকি আমরা কোনো ক্রিকেটই খেলতে পারব না? আমরা কী ক্রিকেট সরঞ্জামাদি পুড়িয়ে ফেলে চাকরি খুঁজব?’

এই অবস্থা থেকে মুক্তি পেতে এখন নির্বাচন হতে হবে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেটে। আগামী তিন মাসের মধ্যে নির্বাচন দিলে আর নির্বাচিত কমিটি বোর্ডের দায়িত্ব নিতে পারলেই স্থগিতাদেশ তুলে নিতে পারে আইসিসি।

আপনার মতামত লিখুন :

সেপ্টেম্বরেই পাকিস্তান সফরে যাচ্ছে শ্রীলঙ্কা

সেপ্টেম্বরেই পাকিস্তান সফরে যাচ্ছে শ্রীলঙ্কা
লাহোরে একই সঙ্গে ক্যামেরাবন্দি শীলঙ্কা ও পাকিস্তান দল, ছবি: সংগৃহীত

এক দশকের মধ্যে সবচেয়ে দীর্ঘতম দ্বিপাক্ষিক ক্রিকেট সিরিজ আয়োজন করতে যাচ্ছে পাকিস্তান। এবং তা ঘরের মাঠেই। আগামী সেপ্টেম্বরে তাদের মেহমান হচ্ছেন শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটাররা।

পাকিস্তান সফরে তিনটি করে ওয়ানডে ও টি-টুয়েন্টি ম্যাচ খেলবে শ্রীলঙ্কা। ২৭, ২৯ সেপ্টেম্বর ও ২ অক্টোবর ওয়ানডে ম্যাচ তিনটি হবে করাচির ন্যাশনাল স্টেডিয়ামে। আর ৫, ৭ ও ৯ অক্টোবর টি-টুয়েন্টি ম্যাচ তিনটির আয়োজক শহর লাহোর।

তার মানে ১৮ মাসের মধ্যে প্রথম কোনো আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সিরিজ হতে যাচ্ছে পাকিস্তানে।

অক্টোবরে পাকিস্তান-শ্রীলঙ্কার মধ্যে দুটি টেস্ট খেলার কথা ছিল। পাকিস্তান ম্যাচ দুটি নিজেদের দেশেই খেলতে চেয়েছিল। কিন্তু শ্রীলঙ্কা তাতে সায় দেয়নি। তাই টেস্ট দুটি ডিসেম্বর পর্যন্ত স্থগিত রাখা হয়েছে। তবে সন্দেহ নেই আসন্ন সীমিত ওভারের সিরিজ পাকিস্তানে টেস্ট ক্রিকেট ফেরানোর ট্রায়াল হিসেবে কাজ করবে।

এর আগে শ্রীলঙ্কান ক্রীড়ামন্ত্রী হারিন ফার্নান্ডো জানিয়ে ছিলেন, চলতি বছরের শেষ দিকে পাকিস্তান সফরে যাচ্ছে লঙ্কান টিম। দেশটিতে টেস্ট খেলার মতো পরিস্থিতি এখনো তৈরি হয়নি। সফরে সীমিত ওভারের ম্যাচ খেলবে তারা।

শুক্রবার পিসিবি চেয়ারম্যান এহসান মানি ও এসএলসি প্রেসিডেন্ট শাম্মি সিলভার মধ্যে ফোন আলাপের পর ঠিক হয় শ্রীলঙ্কার সফরসূচি। অতিথি দল শ্রীলঙ্কা করাচিতে পৌঁছবে ২৫ সেপ্টেম্বর। সফর শেষে দেশে ফিরবে ১০ অক্টোবর।

২০১৫ সালে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলতে পাকিস্তান সফরে গিয়ে ছিল জিম্বাবুয়ে। ২০১৭ সালে পিএসএল ফাইনাল পাকিস্তানে হওয়ার পর দেশটিতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফেরার পথ সুগম হয়।

লাহোরে ২০০৯ সালের মার্চে সন্ত্রাসী হামলার শিকার হওয়ার পর শ্রীলঙ্কা প্রথমবার পাকিস্তান সফরে গিয়েছিল ২০১৭ সালে। অক্টেবরে একটি টি-টুয়েন্টি খেলে তারা।

২০১৯ সালের ২১ এপ্রিল ইস্টার সানডেতে শ্রীলঙ্কায় ভয়াবহ বোমা হামলায় ২৫০ জন নিহত ও আহত হয় ৫০০ জনের অধিক। ফলে বিদেশী দলের আগমন নিয়ে শঙ্কায় পড়ে গিয়েছিল শ্রীলঙ্কা।

কিন্তু তারপরও মর্মান্তিক সেই ঘটনার এক মাস পর ৫০ ওভারের ম্যাচ খেলতে শ্রীলঙ্কা সফরে যায় পাকিস্তান অনূর্ধ্ব-১৯ দল। সেসুবাদেই দুদেশের ক্রিকেট বোর্ডের মধ্যে সম্পর্কটা হয় দৃঢ়। যার ফলশ্রুতিতে হচ্ছে এ সফর।

 

সাইফের ব্যাটে শতরান, আফিফ ৬৮

সাইফের ব্যাটে শতরান, আফিফ ৬৮
সাইফ হাসানের ব্যাটে ১১৭ রানের দারুণ এক ইনিংস

সিরিজে ১-১ সমতা। আজ শনিবার যারা জিতবে সিরিজ তাদেরই। এমনই এক ম্যাচে কথা বলল সাইফ হাসানের ব্যাট। আগের ম্যাচে হাফসেঞ্চুরির পর এবার তুলে নিয়েছেন শতরান। তার ব্যাটেই খুলনায় শনিবার শ্রীলঙ্কা ইমার্জিং দলের বিপক্ষে চ্যালেঞ্জিং পুঁজি পেয়েছে বাংলাদেশ হাই পারফরম্যান্স দল (এইচপি) দল।

তৃতীয় ও শেষ আনঅফিসিয়াল ওয়ানডেতে ৫০ ওভারে ৫ উইকেটে ২৬৯ রান করেছে স্বাগতিকরা। সাইফের ব্যাটে ১১৭, আফিফ হোসেন তুলেছেন ৬৮ রান।

শনিবার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে টস ভাগ্য ছিল শ্রীলঙ্কার পক্ষে। টস হেরে ব্যাট করতে শুরুটা অবশ্য ভালো ছিল না এইচপি দলের। শুরুতেই ফিরে যান নাঈম শেখ। তবে এরপরই নাজমুল হোসেন শান্ত-সাইফ জুটিতে দল সামলে উঠে ধাক্কা! দু'জন যোগ করেন ৭৪ রান। কিন্তু এরপরই অধিনায়ক শান্ত ফেরেন ৩৯ রানে। তাকে অনুসরণ করে ইয়াসির আলী (৬) দ্রুত ফিরলে চাপে পড়ে দল।

ঠিক তখনই সাইফ ও আফিফের ব্যাটে ফের পথ খুঁজে নেয় এইচপি দল। চতুর্থ উইকেট জুটিতে তারা করেন ১২৫ রান। সাইফ দারুণ দক্ষতায় পেয়ে যান সেঞ্চুরি।

১৩০ বলে করেন ১১৭। ৪ চার ও ৭ ছক্কায় সাজানো ছিল সাইফের ইনিংস। আফিফ ৭০ বলে করেন ৬৮ রান। ১৩ রান আসে ইয়াসিনের ব্যাটে। শ্রীলঙ্কা ইমার্জিং দলের কালানা পেরেরা শিকার করেন দুই উইকেট।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র