Barta24

রোববার, ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬

English

আফগানদের কাছেই হেরে গেলেন ইমরুল-সাব্বির-এনামুলরা

আফগানদের কাছেই হেরে গেলেন ইমরুল-সাব্বির-এনামুলরা
হতাশা নিয়ে মাঠ ছাড়েন ইমরুল কায়েসরা
সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট
বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

দলে তারকা ক্রিকেটারের কমতি ছিল না! অথচ সেই দলটিই কীনা আফগানিস্তানের কাছে নাজেহাল। ঘরের মাঠে ব্যর্থতার প্রদর্শনী দেখাল বাংলাদেশ ‘এ’ দল। শ্রীলঙ্কা সফরের আগে ম্যাচ খেলতে নেমে ভিন্ন অভিজ্ঞতাই হলো এনামুল হক আর সাব্বির রহমানদের। তাদের হারিয়ে ৫ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজে এগিয়ে গেল আফগানরা।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে শুক্রবার আফগানিস্তান ‘এ’ অনায়াসেই জিতেছে ১০ উইকেটে।

ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ইমরুল কায়েসরা করে মাত্র ২০১ রান। জবাবে ৩৭ বল বাকি থাকতেই জয়ের বন্দরে নোঙর করে আফগান দল।

বাংলাদেশ জাতীয় দল নিয়ে না নামলেও শক্তির বিচারে প্রতিপক্ষের চেয়ে ঢের এগিয়ে ছিল। কিন্তু তারাই কীনা হেরে গেল ১০ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে। এর আগে এই আফগানদের কাছেই  আনঅফিশিয়াল টেস্টে দেশের মাাঠে  সিরিজে হেরেছে বাংলাদেশ ‘এ’ দল।

শুক্রবার হারই নয়, যোগ হয়েছে রুবেল হোসেনের ইনজুরি। শ্রীলঙ্কা সফরের আগে এই ম্যাচের দলে ছিলেন তিনি। কিন্তু গোড়ালিতে চোট পেয়েছেন এই পেসার। এরপর সতর্কতার অংশ হিসেবে বল করতে দেখা যায়নি তাকে। প্রাথমিকভাবে চোট গুরুতর নয় বলে মনে করা হচ্ছে!

ম্যাচে টস ভাগ্য ছিল স্বাগতিকদের পক্ষেই। শুরুটাও ছিল বেশ ভাল। ইমরুল কায়েস-এনামুল হক বিজয় গড়েন ৫২ রানের উদ্বোধনী জুটি। ২৮ রানে ফেরেন ইমরুল। এরপর হতাশ করেন মোহাম্মদ মিঠুনও (৩)।। তবে কিছুটা সময় লড়াই করেন এনামুল (১৯)। সাব্বিরের ব্যাট থেকে আসে ১৫।

এরপর ১০৬ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে দল যখন চাপে তখন হাল ধরেন আফিফ হোসেন ও ফরহাদ রেজা। আফিফ ৭১ বলে খেলেন ৫৯ রানের দারুণ এক ইনিংস। ৩০ রান করেন ফরহাদ রেজা।

জবাবে নেমে অনায়াসেই লক্ষ্যে পৌঁছে যায় সফরকারীরা। দুই ওপেনার কোন সুযোগই দিলেন না! ১৩৮ বলে তিন ছক্কা ও ১১ চারে রহমানউল্লাহ করেন অপরাজিত ১০৫। ১২৫ বলে ৮৬ রান তুলেন ইব্রাহিম।

সংক্ষিপ্ত স্কোর-

বাংলাদেশ ‘এ’ দল: ৫০ ওভারে ২০১/৮ (ইমরুল ২৮, এনামুল ১৯, মিঠুন ৩, সাব্বির ১৫, মাহমুদ ৯, আফিফ ৫৯, মেহেদি ৪, রেজা ৩০, নাজমুল ১৩*, রুবেল ২*; নাভিন ২/৪৯, করিম ২/১৭, ফজল ১/২৬, আশরাফ ১/২৮, কায়েস ১/৩০)
আফগানিস্তান ‘এ’ দল: ৪৩.৫ ওভারে ২০২/০ (রহমানউল্লাহ ১০৫*, ইব্রাহিম ৮৬*; রুবেল ০/২৪, আবু জায়েদ ০/৩৬, অপু ০/৩৬, রেজা ০/৩৬, মেহেদি ০/২৬, সাব্বির ০/২৩, আফিফ ০/১৬)
ফল: ১০ উইকেটে জয়ী আফগানিস্তান ‘এ’ দল

 

আপনার মতামত লিখুন :

অবৈধ বিজ্ঞাপনে ছবি, তাসকিন বললেন প্রতারণা!

অবৈধ বিজ্ঞাপনে ছবি, তাসকিন বললেন প্রতারণা!
ইবনে সিনা লাইফ কেয়ারের সেই অবৈধ বিজ্ঞাপনের ছবি -বার্তা২৪

ইবনে সিনা লাইফ কেয়ার?

টেলিফোনের ওপার থেকে বিস্ময় মাখা সুরে তাসকিনের পাল্টা প্রশ্ন-এরা কারা?

জানানো হলো-রাজশাহীতে এই নামের একটি প্রতিষ্ঠান তাসকিনের ছবি ব্যবহার করেছে হারবাল ব্যবসার বিজ্ঞাপনে। চটকদার ভাষা ব্যবহার করা হয়েছে পুরো বিজ্ঞাপনে। আর সেই বিজ্ঞাপনে তাসকিনের হাস্যোজ্জ্বল একটা ছবি আছে এক কোনায়। অর্থাৎ তাসকিনকে রীতিমতো এই হারবাল বিজ্ঞাপনের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে দেখানো হয়েছে।

শনিবার (২৪ আগস্ট) সন্ধ্যায় বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-এর কাছ থেকে এই তথ্য জানতে পেরে তাসকিন অবাক। বললেন, ‘আমি তো এমন কোনো প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কখনো কথাই বলিনি। কাউকে চিনিও না। চুক্তি টুক্তি করার তো প্রশ্নই আসে না। এটা স্রেফ আমার সঙ্গে প্রতারণা করা হয়েছে। নাম ও ছবি ব্যবহার করে আমার সঙ্গে প্রতারণা করা হয়েছে। আমি প্রয়োজন হলে আইনের আশ্রয়ে নেব।’

বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-এর রাজশাহীর স্টাফ করেসপন্ডেন্ট হাসান আদিব সর্বপ্রথম এই বিষয়টি নজরে আনেন। তিনি জানান-জাতীয় দলের ক্রিকেটার তাসকিন আহমেদের ছবি ব্যবহার করে রাজশাহী জুড়ে চলছে হারবাল ব্যবসা। ইবনে সিনা লাইফ কেয়ার মেডিকো নামের একটি প্রতিষ্ঠান তাদের বিজ্ঞাপনে তাসকিনের এই ছবি ব্যবহার করেছে।

প্রতিষ্ঠানটির সাইনবোর্ডের এক পাশে বড় করে জাতীয় দলের জার্সি গায়ে তাসকিনের ছবি আছে। তাতে লেখা, স্থায়ী সুন্দর স্বাস্থ্যবান হউন- বডি প্লাস সেবনে। কোর্স- ৯৯০ টাকা। ৭ দিনে যৌন রোগের স্থায়ী সমাধান সেবন করুন-ফুর্তি প্লাস। কোর্স ১২৯০ টাকা। পাইলস? বিনা অপারেশনে অশ্ব গেজ চিকিৎসা ১০০% নিশ্চিত ফলাফল।

রাজশাহী নগরীর চৌদ্দপাই, ডাশমারী, বিনোদপুর, বর্ণালীর মোড়, মনিচত্ত¡র, সাধুর মোড়সহ বিভিন্ন এলাকায় চোখে পড়ছে এমন বিজ্ঞাপন। যা নিয়ে মানুষের মধ্যে কৌতুহল এবং হাস্যরসের সৃষ্টি হয়েছে। তবে কেউ কেউ বলছেন, তাসকিনের অনুমতি ছাড়াই এই প্রতিষ্ঠান হয়তো বিজ্ঞাপনে তার ছবি ব্যবহার করেছে। যা অনুচিত।

যোগাযোগ করা হলে ইবনে সিনা লাইফ কেয়ার মেডিকো’র পক্ষ থেকে ডা. হৃদয় ইসলাম বলেন, ‘ক্রিকেটার তাসকিনের সঙ্গে কথা বলে আমরা এই ছবি ছেপেছি। তিনি এ বিষয়ে অবগত। আমরা তার সঙ্গে মৌখিক চুক্তি করেছি। তার অনুমতি নিয়েছি।’

তিনি আরো বলেন, ‘এই ধরনের পোস্টার দেড়শ করার কথা ছিল। কিন্তু আমরা হাজারের মতো পোস্টার ঝুলিয়েছি।’

তাসকিন এমন কোনো বিজ্ঞাপনে অনুমতি দেওয়ার বিষয় পুরোপুরি অস্বীকার করে বলেন, ‘এই প্রতিষ্ঠানকে কী করে ধরা যায়, তার একটা উপায় বলেন প্লিজ!’

বিসিবির সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে বিসিবির মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস বলেন, ‘ক্রিকেটাররা তাদের ভালো মন্দ বোঝে। কে কোন বিজ্ঞাপন করবে সেটা তো বিসিবি চূড়ান্ত করে দিতে পারে না। তবে তাসকিন যদি মনে করে তার সঙ্গে কেউ বিজ্ঞাপন নিয়ে প্রতারণা করেছে তাহলে বিসিবি তাকে পরামর্শ দেবে, মামলা করতে। পুলিশের কাছে অভিযোগ করতে।’

সাইফ-শান্তদের হতাশ করে সিরিজ শ্রীলঙ্কার

সাইফ-শান্তদের হতাশ করে সিরিজ শ্রীলঙ্কার
সিরিজ জয়ী শ্রীলঙ্কা ইমার্জিং দল

অলিখিত ফাইনালে চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়লেও শেষ রক্ষা হয়নি! সাইফ হাসানের শতরান দিন শেষে ম্লান। পাথুম নিশানকার টর্নেডো গতির শতরানে বাজিমাত শ্রীলঙ্কা ইমার্জিং দলের। শনিবার তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডে ম্যাচে বাংলাদেশ হাই পারফরম্যান্স দলকে (এইচপি) অনায়াসে হারিয়ে সিরিজ জিতল সফরকারীরাই।

খুলনার শেখ আবু নাসের চৌধুরী স্টেডিয়ামে ডাকওয়ার্থ ও লুইস পদ্ধতিতে ৭ উইকেটে জিতেছে লঙ্কানরা। বৃষ্টি বিঘ্নিত ম্যাচে হেরে হতাশা নিয়েই মাঠ ছাড়ল নাজমুল হোসেন শান্তর দল। কেননা, এই জয়ে ২-১ ব্যবধানে তিন ম্যাচের সিরিজ জিতে নিয়েছে শ্রীলঙ্কা ইমার্জিং দল।

সকালে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ৫০ ওভারে ৫ উইকেটে ২৬৯ রান সংগ্রহ করে শ্রীলঙ্কা। সাইফের ব্যাটে সেঞ্চুরি আর আফিফ হোসেন করেন ফিফটি। এরপর জবাবে নেমে বৃষ্টির বাধায় শ্রীলঙ্কার সামনে লক্ষ্য দাঁড়ায় ২৮ ওভারে ১৯৯ রান। কিন্তু ২৪ বল বাকি থাকতেই জয়ের বন্দরে নোঙর করে সফরকারীরা।

শুরুতে ব্যাট করতে নেমে মোহাম্মদ নাঈমের উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে বিসিবি এইচপি দল। অবশ্য এরপরই এরপরই নাজমুল হোসেন শান্ত-সাইফ জুটিতে দল সামলে উঠে ধাক্কা! দু'জন যোগ করেন ৭৪ রান। কিন্তু এরপরই অধিনায়ক শান্ত ফেরেন ৩৯ রানে। তাকে অনুসরণ করে ইয়াসির আলী (৬) দ্রুত ফিরলে চাপে পড়ে দল।

ঠিক তখনই সাইফ ও আফিফের ব্যাটে ফের পথ খুঁজে নেয় এইচপি দল। চতুর্থ উইকেট জুটিতে তারা করেন ১২৫ রান। সাইফ দারুণ দক্ষতায় পেয়ে যান সেঞ্চুরি।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/24/1566658428574.jpg

১৩০ বলে করেন ১১৭। ৪ চার ও ৭ ছক্কায় সাজানো ছিল সাইফের ইনিংস। আফিফ ৭০ বলে করেন ৬৮ রান। ১৩ রান আসে ইয়াসিনের ব্যাটে।

কিন্তু এরপরই বৃষ্টিতে সর্বনাশ। ডাকওয়ার্থ ও লুইস পদ্ধতিতে শ্রীলঙ্কার লক্ষ্যটা বড় ছিল না। এরমধ্যে ওপেনার নিসানকার সেঞ্চুরি ও মিনোদ ভানুকার ব্যাটে পথ খুঁজে নেয় সফরকারীরা। ৩২ বলে ৫৫ রান তুলেন ভানুকা। অন্যদিকে ৭৮ বলে ১১৫ রানে অপরাজিত থেকে হাসিমুখে মাঠ ছাড়েন নিসানকা।

সিরিজসেরার পুরস্কার জিতেছেন বাংলাদেশ দলের সাইফ হাসান। খেলা শেষে পুরস্কার তুলে দেন খুলনা বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক এসএম মোর্ত্তজা রশিদী দারা।

ওয়ানডে সিরিজ শেষ। এবার চারদিনের ম্যাচে মুখোমুখি হবে দুই দল। মঙ্গলবার খুলনাতেই শুরু হচ্ছে প্রথম চার দিনের ম্যাচ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর-
বাংলাদেশ হাই পারফরম্যান্স দল: ৫০ ওভারে ২৬৯/৫ (সাইফ ১১৭, নাঈম ৬, শান্ত ৩৯, ইয়াসির ৯, আফিফ ৬৮*, জাকির ৭, ইয়াসিন ১৩*; ফার্নান্দো ১/৪৮, পেরেরা ২/৪৭, রমেশ মেন্ডিস ১/৪৪, হাসারাঙ্গা ১/৫৮)
শ্রীলঙ্কা ইমার্জিং দল: (লক্ষ্য ২৮ ওভারে ১৯৯) ২৪ ওভারে ১৯৯/৩ (নিসানকা ১১৫*, বোয়াগোদা ১২, আসালঙ্কা ২, ভানুকা ৫৫, কামিন্দু মেন্ডিস ৫*; ইয়াসিন ১/২৯, রবিউল ১/৩৯, আমিনুল ১/৩২)
ফল: শ্রীলঙ্কা ইমার্জিং দল ৭ উইকেটে জয়ী
সিরিজ: তিন ম্যাচের সিরিজে শ্রীলঙ্কা ইমার্জিং দল ২-১ ব্যবধানে জয়ী
ম্যাচসেরা: পাথুম নিসানক

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র