Barta24

মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০১৯, ৮ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

ট্রেন্টব্রিজে অস্ট্রেলিয়ার ৩৮১ রানের পাহাড়!

ট্রেন্টব্রিজে অস্ট্রেলিয়ার ৩৮১ রানের পাহাড়!
বল হাতে সফল সৌম্য সরকার
এম. এম. কায়সার
স্পোর্টস এডিটর
বার্তা২৪.কম
নটিংহ্যামশায়ার
ইংল্যান্ড থেকে


  • Font increase
  • Font Decrease

একেই বলে ইচ্ছাপূরণের ব্যাটিং!

ট্রেন্টব্রিজে ঠিক যা করতে চেয়েছিলো তাই করলো। নাকি আরেকটু বেশি পেলো? স্কোরবোর্ডে ৫ উইকেটে ৩৮১ রানের আয়েশি সঞ্চয় তো সেই কথাই জানাচ্ছে। টসে জয়ী অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটিং তাদের রান পাহাড়ে তুলে দিলো।

রান পাহাড়টা কিন্তু ছোটখাটো কোনকিছু নয়! বিশাল, একেবারে এভারেস্ট শ্রেণীর! বাংলাদেশের বিপক্ষে ওয়ানডে ক্রিকেটে অস্ট্রেলিয়ার এটি সর্বোচ্চ স্কোর। আগের স্কোরটি ছিলো ৩৬১ রানের। অবাক করার ব্যাপার হলো সেই ৩৬১ রান করেছিলো অস্ট্রেলিয়া বাংলাদেশের বিপক্ষে মাঠে গড়ানো সর্বশেষ ওয়ানডেতে। সেই ম্যাচের পর মাঝে আরো ম্যাচ ছিলো অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে বাংলাদেশের। কিন্তু বৃষ্টিতে সেই দুই ম্যাচ বাতিল হয়েছিলো।

তাহলে হিসেব কি দাড়ালো ৪ উইকেটে ৩৬১ রানের পর এবার ৫ উইকেটে ৩৮১ রান।

চলতি বিশ্বকাপে এটি অস্ট্রেলিয়ার সর্বোচ্চ রান। দলীয় এই কৃতিত্বের দিনে ব্যক্তিগত সাফল্যকে এই ম্যাচে অন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন অস্ট্রেলীয় ওপেনার ডেডিভ ওয়ার্নার। তার ১৪৭ বলে ১৬৬ রানের ইনিংস বিশ্বকাপের মাঠে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ। অস্ট্রেলিয়ার ইনিংসের রান যা করার তার প্রায় পুরোটাই করেছেন শুরুর তিন ব্যাটম্যান। ওয়ার্নার ১৬৬। সঙ্গী ওপেনার অ্যারেন ফিঞ্চ ৫১ বলে ৫৩। ওয়ান ডাউনে ওসমান খাজা ৭১ বলে ৮৯। শেষের দিকে ম্যাক্সওয়েল পুরোদুস্তর টি-টুয়েন্টি স্টাইলে ব্যাট চালিয়ে ১০ বলে ৩২ রানের জমা তুলে রান আউট হন।

১৬৬ রান তোলা ওয়ার্নারকে ফেরাতে পারতো বাংলাদেশ তার মাত্র ১০ রানেই। মাশরাফির বলে ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে সাব্বির তার ক্যাচটা যে হাতে নিলে পারলেন না! ১০ রানে জীবন পেয়ে ওয়ার্নার করলেন ১৬৬ রান।

প্রথম উইকেট জুটিতে অ্যারন ফিঞ্চ ও ডেভিড ওয়ার্নার তুলেন ১২১ রান। দ্বিতীয় উইকেটেও সেঞ্চুরির জুটি। ওয়ার্নার ও খাজার এই জুটিতে যোগ ১৯২ রান! লম্বা সময় বাংলাদেশের বোলাররা কোনো সাফল্য পাননি এই ম্যাচে। ৩৮১  রান খরচার ম্যাচে বোলারদের পারফরমেন্স কেমন হতে পারে সেটা জানতে গবেষণার  প্রয়োজন নেই। প্রায় সব বোলারই বেসুমার রান ব্যয় করেন। তবে বোলারদের এই ‘বেচারা দিনে’ সবাইকে চমকে দিয়ে পার্টটাইম বোলার সৌম্য সরকার তুলে নিলেন ৩ উইকেট। এটি তার ক্যারিয়ার সেরা বোলিং। আগের ৪৮টি ওয়ানডেতে তার উইকেটই ছিলো মাত্র ১টি! আর এই ম্যাচে তার শিকারের নাম ফিঞ্চ, ওয়ার্নার এবং খাজা। যে তিনজন আবার অস্ট্রেলিয়ার ইনিংসের বড়ো স্কোরার।  

ইংল্যান্ডের এই মাঠ রানের জন্য বেশ বিখ্যাত। ওয়ানডেতে সর্বোচ্চ ৪৮১ ও ৪৪৪ রানের দুটি দলীয় স্কোরই এই মাঠে হয়েছে। বাংলাদেশও এখানে ওয়ানডে ক্রিকেটে দেদারসে রান বিলিয়ে দেয়ার জন্য পরিচিত। এখানে ২০০৫ সালে এই মাঠে ইংল্যান্ড ৩৯১ রানের ইনিংস গড়েছিলো বাংলাদেশের বিপক্ষে।

সেই ম্যাচ বাংলাদেশ হেরেছিলো। কিন্তু মোহাম্মদ আশরাফুলের ব্যাট থেকে এসেছিলো ৫২ বলে ৯৪ রানের দুর্দান্ত ইনিংস। ট্রেন্টব্রিজে বাংলাদেশ যদি বিশ্বকে আরেকবার চমকে দিতে চায় তবে ব্যাট হাতে শুরুর কয়েকজন ব্যাটসম্যানকে তেমন দাপুটে কিছু করে দেখাতে হবে!

নইলে এই ম্যাচে ২০ ওভারের আগে আরেকবার বৃষ্টির আশ্রয় খুঁজতে হবে!

আপনার মতামত লিখুন :

ধর্ষণ মামলা থেকে বাঁচলেন রোনালদো

ধর্ষণ মামলা থেকে বাঁচলেন রোনালদো
স্বস্তি পেলেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো

ধর্ষণের অভিযোগ থেকে বেঁচে যাচ্ছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। মানে মামলা আর মাঠের বাইরের দুশ্চিন্তা থেকে মুক্তি পেয়ে যাচ্ছেন পর্তুগিজ এ তারকা ফরোয়ার্ড। এখন নির্ভাবনায় ফুটবল মাঠের লড়াইয়ে নিজের পারফরম্যান্সের ওপর নজর দিতে আর কোনো সমস্যাই রইল না পাঁচবারের এ ব্যালন ডি’অর জয়ীর সামনে। যুক্তরাষ্ট্রের প্রসিকিউটররা তো এমনটাই জানিয়েছেন।

সোমবার এক বিবৃতিতে লাস ভেগাসের প্রসিকিউটররা জানিয়েছেন, অভিযোগটি ‘সন্দেহাতীত ভাবে প্রমাণ করা যাবে না’।

দ্য ক্লার্ক কাউন্টি ডিস্ট্রিক্ট অ্যাটর্নি স্টিভ উলফসন জানিয়েছেন, ‘ভিকটিম দাবী করেন, ২০০৯ সালে তিনি যৌন হয়রানির শিকার হয়ে ছিলেন। কিন্তু ঘটনা কোথায় হয়েছে বা কে তাকে হয়রানি করেছে তা বলতে নারাজ ওই নারী। যে কারণে পুলিশ বলতে গেলে ‘অর্থপূর্ণ কোনো তদন্তই করতে পারেনি।’

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, ‘এই মুহূর্তে যে তথ্য প্রমাণ হাতে রয়েছে, তা দিয়ে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর বিরুদ্ধে আনা ধর্ষণের অভিযোগ সন্দেহাতীত ভাবে প্রমাণ করা যাবে না। যে কারণে জুভেন্টাসের এ তারকা ফুটবলারের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করা হবে না।’

৩৪ বছরের ক্যাথরিন মায়োর্গা নামের এক নারী দাবী করেন, ২০০৯ সালে লাস ভেগাসের এক হোটেলে সিআর সেভেন তাকে ধর্ষণ করেছেন। ২০১০ সালে ৩ লাখ ৭৭ হাজার ডলারের (২ লাখ ৮৮ হাজার পাউন্ড) বিনিময়ে তার মুখ বন্ধ করে ছিলেন রোনালদো।

মায়োর্গার আইনজীবী জানান, হ্যাশট্যাগ মি টু আন্দোলনে অনুপ্রাণিত হয়েই ২০১৮ সালে মামলাটা পুনরায় চালু করেন মায়োর্গা। এবং সেবছর আগস্টে ভিকটিমের অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু করে লাস ভেগাস পুলিশ।

জার্মান সাপ্তাহিক ম্যাগাজিন ডার স্পেইগেল গত বছর প্রথম খবরটা ছাপে। রোনালদো শুরু থেকে তার বিরুদ্ধে আনীত সব অভিযোগ অস্বীকার করলেও দুজনের সাক্ষাতের কথা স্বীকার করে নেন। কিন্তু জানান, হোটেলে যা কিছু হয়েছে দুজনের সম্মতিতেই হয়েছে।


মিঠুনের দাপুটে ব্যাটিংয়ে দুর্দান্ত জয় বাংলাদেশের

মিঠুনের দাপুটে ব্যাটিংয়ে দুর্দান্ত জয় বাংলাদেশের
জয় দিয়েই প্রস্তুতি পর্ব শেষ বাংলাদেশ দলের

বড় চ্যালেঞ্জই ছুঁড়ে দিয়েছিল শ্রীলঙ্কা বোর্ড প্রেসিডেন্ট একাদশ। মনে হচ্ছিল উত্তেজনা ছড়াবে প্রস্তুতি ম্যাচে। কিন্তু বাংলাদেশ দল সুযোগ দেয়নি স্বাগতিকদের। আসল লড়াইয়ের আগে দুর্দান্ত এক জয় তুলে নিয়েছে তামিম ইকবালের দল। তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের আগে আত্মবিশ্বাসটা বাড়িয়ে নিয়েছেন টাইগার ক্রিকেটাররা।

মঙ্গলবার কলম্বোতে অনুষ্ঠিত প্রস্তুতি ম্যাচটি ৫ উইকেটে জিতেছে বাংলাদেশ।

টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নামে শ্রীলঙ্কা বোর্ড প্রেসিডেন্ট একাদশ। বাংলাদেশের বোলিং আক্রমণ উড়িয়ে দিয়ে তারা করে ৮ উইকেটে ৫০ ওভারে ২৮২ রান। জবাব দিতে নেমে ৪৮.১ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে লক্ষ্যে পৌঁছে যায় টাইগাররা। মোহাম্মদ মিঠুনের ব্যাট থেকে আসে ৯১ রান।

তামিম ইকবাল-সৌম্য সরকারের ব্যাটে শুরুটা একেবারে মন্দ ছিল না বাংলাদেশের। দলীয় ৪৫ রানে সাজঘরের পথ ধরেন সৌম্য (১৩)। এরপর তামিম ৪৭ বলে ৩৭ রানে ফিরলে চাপে পড়ে টাইগাররা। তবে তখনই হাল ধরেন মোহাম্মদ মিঠুন ও মুশফিকুর রহিম। তারা গড়েন ৭৩ রানের জুটি।

ইনজুরি কাটিয়ে ওঠা মুশফিকুর রহিম ফেরেন ঠিক ৫০ রানে। ৪৬ বলের ইনিংসে ছিল ৬ বাউন্ডারি ও ১ ছক্কা। তবে লড়ে গেছেন মিঠুন। সেঞ্চুরির পথেই ছিলেন তিনি। তবে নার্ভাস ৯১ রানে এসে পথ হারান তিনি। ১০০ বলে ১১ বাউন্ডারি আর ১ ছক্কায় এই ইনিংস খেলেন তিনি। এর আগেই অবশ্য ৩৩ রান তুলে ফেরেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

তারপর বাকীটা পথ পাড়ি দেন সাব্বির রহমান (৩১) ও মোসাদ্দেক হোসেন (১৫)। ১১ বল হাতে রেখেই ধরা দেয় জয়! শ্রীলঙ্কার লাহিরু কুমারা নেন দুটি উইকেট।

এর আগে ব্যাট করতে নেমে নিরোশান ডিকভেলার দল শুরুতেই পড়েছিল চাপে। ৩২ রানে ৩ উইকেট হারালেও শেষ পর্যন্ত বড় সংগ্রহ তুলে তারা।

কলম্বোতে টসে হেরে ফিল্ডিংয়ে নামে তামিম ইকবালের দল। আর শুরুতেই চেপে ধরেছিল স্বাগতিকদের। কিন্তু শুরুর ধাক্কা সামলে লঙ্কান বোর্ড প্রেসিডেন্ট একাদশ গড়ে বড় সংগ্রহ। ম্যাচে দাসুন শানকা ৬৩ বলে খেলেন ৮৬ রানের অপরাজিত এক ইনিংস। শেহান জয়সুরিয়ার ব্যাটে ৭৮ বলে ৫৬।

বাংলাদেশের পক্ষে রুবেল হোসেন ও সৌম্য সরকার নেন দুটি করে উইকেট। মুস্তাফিজুর রহমান ও তাসকিন আহমেদ শিকার করেছেন একটি করে উইকেট। ম্যাচে ৯ বোলারকে দিয়ে বল করিয়েছেন অধিনায়ক তামিম।

প্রস্তুতি ম্যাচ শেষে এবার আসল লড়াই। ২৬, ২৮ ও ৩১ জুলাই স্বাগতিক শ্রীলঙ্কার সঙ্গে তিনটি ওয়ানডে ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ দল।

সংক্ষিপ্ত স্কোর-
শ্রীলঙ্কা বোর্ড প্রেসিডেন্ট একাদশ: ৫০ ওভারে ২৮২/৮ (ডিকভেলা ০, গুনাথিলাকা ২৬, ওশাদা ২, রাজাপাকসা ৩২, জয়াসুরিয়া ৫৬, অ্যাঞ্জেলো ৭, শানাকা ৮৬*, হাসারাঙ্গা ২৮, দনাঞ্জয়া ৯, আপন্সো ১৩*; রুবেল ২/৩১, তাসকিন ১/৫৭, মুস্তাফিজ ১/২৯, সৌম্য ২/২৯, ফরহাদ রেজা ১/২২)

বাংলাদেশ: ৪৮.১ ওভারে ২৮৫/৫ (তামিম ৩৭, সৌম্য ১৩, মিঠুন ৯১, মুশফিক ৫০, মাহমুদউল্লাহ ৩৩, সাব্বির ৩১*; মোসাদ্দেক ১৫*; রাজিথা ১/৫৭, কুমারা ২/২৬, দনাঞ্জয়া ১/৪৭, হাসারাঙ্গা ১/৩৯)

ফল: বাংলাদেশ ৫ উইকেটে জয়ী

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র