Barta24

রোববার, ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬

English

শুরুটা অনেক কিছু, ওটা ভালো করতে হবে: মাশরাফি

শুরুটা অনেক কিছু, ওটা ভালো করতে হবে: মাশরাফি
লন্ডনে ১০ দলের অধিনায়কদের সম্মিলিত সংবাদ সম্মেলনে ছিলেন বাংলাদেশের মাশরাফি বিন মর্তুজা- ছবি: আইসিসি
এম. এম. কায়সার
স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

আজ থেকে চার বছর আগেও এমনভাবেই বিশ্বকাপের অধিনায়কদের জন্য আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ছিলেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। কিন্তু তখন এমন কোনো প্রশ্ন তাকে শুনতে হয়নি। এবার শুনতে হলো। উত্তরটাও বেশ দারুণ দক্ষতার সঙ্গেই দিলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক।

লন্ডনে বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় দুপুরে এবারের বিশ্বকাপে অংশগ্রহণকারী ১০ দলের অধিনায়কদের সম্মিলিত সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। ১০ অধিনায়কের সবাই মঞ্চে সোফায় বসে প্রশ্ন শুনেন এবং উত্তর দেন। বেশ ক্রিকেটীয় হাসি আনন্দের রেশ নিয়ে চলে ঘণ্টাখানেকের বেশি এই সংবাদ সম্মেলন।

সেখানে বাংলাদেশ অধিনায়কের দিকে প্রশ্ন উড়ে আসে-‘পেছনের চার বছরে ওয়ানডে ক্রিকেটে বাংলাদেশ যে এত উন্নতি করেছে। টানা নয়টি ওয়ানডে সিরিজ জিতেছে বিশ্বকাপে খেলতে এসেছে আত্মবিশ্বাসের মেজাজে অনেক দূর যাওয়ার প্রত্যাশা নিয়ে। এই উত্তরণ ও সাফল্যের রহস্য কি?’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/23/1558624178266.jpg

কৃতিত্বের সব নির্যাস অধিনায়ক তার দলের মধ্যে ভাগ করে দিলেন। বললেন-‘ আমরা দুর্দান্ত একটা দল পেয়েছি। সিনিয়র-জুনিয়র মিলে আমাদের পুরো দলটার চমৎকার একটা মিশ্রণ হয়েছে। কাজের সময় সবাই পারফর্ম করছে। এই যে আয়ারল্যান্ডে আমরা সর্বশেষ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট খেলে এলাম, সেখানে পুরো দলটাই খুবই ভালো ক্রিকেট খেলেছে। এখন আশায় আছি এখানে এই বিশ্বকাপেও আমরা একটা ভালো শুরু করতে চাই। ভালো শুরুটা অনেক কিছু। ২ জুন টুর্নামেন্টে আমাদের প্রথম ম্যাচ। এই যে ফাফ (ফাফ ডু প্লেসিস) এখানে বসে আছে, তার দল দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে আমাদের প্রথম ম্যাচ। আশা করছি আমরা সেখানে ভালো শুরু করতে পারব।’

মাশরাফির মন্তব্যটা শেষ হতেই মঞ্চে বসা উপস্থাপক দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিসের দিকে প্রশ্নের ভঙ্গিতে তাকালেন। ফাফ ডু প্লেসিস বেশি কিছু বললেন না। শুধু উচ্চারণ করলেন, ‘আমি সেটা আশা করছি না।’

সঙ্গে সঙ্গে পুরো মঞ্চে হাসির ফোয়ারা!

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/23/1558624193630.jpg

-এই যে বাংলাদেশ এখন বিশ্বমঞ্চে বুক ফুলিয়ে বলতে পারে আমরা যে কোনো দলকে হারাতে পারব। ট্রফি জয়ের দাবিদার বাংলাদেশও। বদলে যাওয়া বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের এই আত্মবিশ্বাস ও মানষিক শক্তির মূল উৎস কি?

মাশরাফির উত্তর, ‘আসলে ক্রিকেট হলো এমন খেলা, এখানে যে কোনো দল যে কাউকে হারাতে পারে। আর আমাদের মতো দলের জন্য শুরু করাটাও হলো অনেক গুরুত্বের ব্যাপার। ভালো শুরু হলে, ভালো লড়তেও পারি আমরা। সেই ভালো শুরুর অপেক্ষায় আছি আমরা।’

মাশরাফির এই অপেক্ষায় থাকার ইচ্ছেটা নিশ্চয়ই এবারো দক্ষিণ আফ্রিকা অধিনায়কের ভালো লাগার কথা নয়। বিশ্বকাপের মঞ্চে দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারানোর সুখকর অভিজ্ঞতা আছে বাংলাদেশের। ফাফ ডু প্লেসিসকে তখনো ক্রিকেট বিশ্ব চেনে না। সেই তখনই ২০০৭ সালের বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকাকে সুপার এইটের লড়াইয়ে হারিয়েছিলো বাংলাদেশ।

তাহলে আরেকবার নয় কেন?

আপনার মতামত লিখুন :

অ্যান্টিগা টেস্টের লাগাম ভারতের হাতে

অ্যান্টিগা টেস্টের লাগাম ভারতের হাতে
কোহলি ও রাহানে উভয়ই হাফসেঞ্চুরি করেছেন, ছবি: সংগৃহীত

অ্যান্টিগা টেস্ট জয়ের অবস্থা প্রায় তৈরি করে ফেলেছে ভারত। তৃতীয়দিন শেষে ম্যাচে তাদের লিড ২৬০ রানের। হারিয়েছে মাত্র ৩ উইকেট। অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও অজিঙ্কা রাহানে উইকেটে সেট হয়ে ব্যাট করছেন, হাফসেঞ্চুরি নিয়ে। ৪০০ রানের টার্গেট দিয়ে ইনিংস ঘোষণার অপেক্ষায় ভারত। তবে সেই সঙ্গে তাদের সামনের দু’দিনের বৃষ্টির চিন্তাও মাথায় রাখতে হচ্ছে। সার্বিক হিসেব জানাচ্ছে, নাটকীয় কোনো কিছু না ঘটলে অ্যান্টিগায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাজ এখন একটাই-ম্যাচ বাঁচানো!

প্রথম ইনিংসে ভারতের চেয়ে খুব বেশি পিছিয়ে ছিল না ওয়েস্ট ইন্ডিজ। শেষের দিকে অধিনায়ক জেসন হোল্ডার ৩৯ রান করে ব্যবধান কমিয়ে আনেন। ভারতের ২৯৭ রানের জবাবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ গুটিয়ে যায় ২২২ রানে।

দ্বিতীয় ইনিংসেও যথারীতি ভারতের ওপেনাররা ব্যর্থ। আগারওয়াল ফিরলেন ১৬ রানে। রাহুল করলেন ৩৮। ওয়ানডাউনে চেতশ্বর পুজারাও টানা ব্যর্থ। ৮১ রানে ৩ উইকেট হারানো ভারতকে পথ দেখালেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও অজিঙ্কা রাহানে। দু’জনেই হাফসেঞ্চুরি করে দলকে দ্বিতীয় ইনিংসে বড় স্কোরের পথে নিয়ে চলেছেন। তাদের চতুর্থ উইকেট জুটিতে যোগ হয়েছে হার না মানা ১০৪ রান। তৃতীয়দিন শেষ করে ভারত ৩ উইকেটে ১৮৫ রান তুলে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর: ভারত ১ম ইনিং: ২৯৭/১০ (৯৬.৪ ওভারে, রাহুল ৪৪, আগরওয়াল ৫, পুজারা ২, কোহলি ৯, রাহানে ৮১, বিহারি ৩২, পান্থ ২৪, জাদেজা ৫৮, রোচ ৪/৬৬, গ্যাব্রিয়েল ৩/৭১, চেজ ২/৫৮)। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১ম ইনি: ২২২/১০ (৭৪.২ ওভারে, ব্রাভো ১৮, চেজ ৪৮, হোপ ২৪, হেটমায়ার ৩৫, হোল্ডার ৩৯, ঈশান্ত ৫/৪৩)। ভারত দ্বিতীয় ইনিংস: ১৮৫/৩(৭২ ওভারে, রাহুল ৩৮, আগারওয়াল ১৬, পুজারা ২৫, কোহলি ৫১*, রাহানে ৫৩*, রোচ ১/১৮)
*তৃতীয়দিন শেষে।

লিভারপুলের জয়, ম্যানইউয়ের হার

লিভারপুলের জয়, ম্যানইউয়ের হার
মোহাম্মদ সালাহর উদযাপন (ইনসেটে মাতিপ), ছবি: সংগৃহীত

মাঠের লড়াইয়ে জ্বলে উঠলেন মোহাম্মদ সালাহ। পেলেন জোড়া গোল। মিশরীয় ফুটবল রাজপুত্রের এ দাপুটে পারফরম্যান্সে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে ঘরের মাঠে লিভারপুল ৩-১ গোলে ধরাশায়ী করেছে আর্সেনালকে। তবে অঘটনের শিকার হয়েছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। নিজেদের মাঠে ক্রিস্টাল প্যালেসের কাছে ২-১ গোলে হার মেনেছে কোচ ওলে গুনার শোলসজায়েরের দল।

দ্য অ্যানফিল্ডে লিভারপুলকে ৪১তম মিনিটে এগিয়ে দেন জোয়েল মাতিপ। আট মিনিট বাদে পেনাল্টি থেকে গোল ব্যবধান ২-০ তে নিয়ে যান কোচ জুর্গেন ক্লপের শিষ্য সালাহ। ৫৮তম মিনিটে নিজের জোড়া গোল পূর্ণ করেন দ্য রেড শিবিরের এ তারকা ফরওয়ার্ড।

ম্যাচ শেষের বাঁশি বাজার ৫ মিনিট আগে কোচ উনাই এমেরির গানারদের হয়ে একটি গোল শোধ করেন লুকাস তোরেইরা।

শনিবার রাতের অন্য ম্যাচে ওল্ড ট্রাফোর্ডে ৩২তম মিনিটেই জর্ডান আইয়ুর গোলে এগিয়ে যায় অতিথি ক্রিস্টাল প্যালেস। ম্যাচ শেষ হওয়ার এক মিনিট আগে রেড ডেভিলদের সমতায় ফেরান ড্যানিয়েল জেমস।

কিন্তু ইনজুরি টাইমে ম্যানইউ ফুটবলারদের হৃদয় ভেঙে দেন ক্রিস্টাল প্যালেসের ফুলব্যাক প্যাট্রিক ফন অ্যানহোল্ট (৯০+৩)। তার জয়সূচক গোলেই ১৯৮৯ সালের পর প্রথম বারের মতো ওল্ড ট্রাফোর্ডে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ল ক্রিস্টাল প্যালেস। কোচ রয় হজসনের কাছে যা ‘বীরত্ব গাঁথা জয়’।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র