Alexa

বিশ্বকাপের টিম বাস ও ক্রিকেটারদের আবেগী বার্তা

বিশ্বকাপের টিম বাস ও ক্রিকেটারদের আবেগী বার্তা

বিশ্বকাপ টিম বাসের সামনে মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ- ছবি: ফেসবুক

এমন বাসে তো তারা কতোই চড়েছেন! হোটেল থেকে স্টেডিয়াম। আবার স্টেডিয়াম থেকে হোটেলে যাওয়া-আসা তো এমন বাসেই হরদম। তবে এবারের আনন্দটা অন্যরকম। এই উত্তেজনার পরশ আলাদা। এই সৌভাগ্য সবার হয় না। তাদের হয়েছে। সেই আনন্দ লুকিয়ে রাখার কোনো চেষ্টাই করেননি ক্রিকেটাররা। 

হোটেলের সামনে বিশ্বকাপের বাস এসে দাড়াতেই বাংলাদেশ দলের বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার আপ্লুত হয়ে পড়েন। এখন থেকে যে তারা আনুষ্ঠানিকভাবে এই বিশ্বকাপের অংশ! আনন্দময় সেই সময়কে ফ্রেমবন্দি করে রাখেন ক্রিকেটাররা। টিম বাসের সামনে দাড়িয়ে ছবি তোলেন। সেই ছবি তাদের ফেসবুক পেইজে আপলোডও করেন।

মুশফিক রহিম ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের জন্য বিশ্বকাপ নতুন কিছু নয়। এটি মুশফিক রহিমের চতুর্থ বিশ্বকাপ। আর মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ তো বিশ্বকাপের মাঠে বাংলাদেশের প্রথম দুই সেঞ্চুরির মালিক। সৌম্য সরকারও গেলোবারের বিশ্বকাপে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। তবে বিশ্বকাপের এই তিন সিনিয়র সদস্যই হোটেলের পোর্চে বিশ্বকাপের লোগো ও রং লাগানো টিম বাস দেখে আবেগ ধরে রাখতে পারলেন না। ছবি তোলার জন্য দাড়িয়ে গেলেন। সেই ছবি নিজের অফিসিয়াল ফেসবুক পেইজে পোস্ট করে মুশফিক লিখলেন-ইনশাল্লাহ্, মিশন বিশ্বকাপ!’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/23/1558619280651.jpg

২০১৫ সালের বিশ্বকাপে খেলা সৌম্য সরকারও টিম বাসের সামনে দাড়িয়ে ছবি তুলে সমর্থনকদের কাছে আবেগী শব্দে দাবি রাখলেন-‘প্লিজ, আমাদেরকে আপনার প্রার্থনায় রেখেন।’

প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ খেলতে যাওয়া ক্রিকেটাররা টিমবাস দেখে আরো বেশি আপ্লুত হয়ে গেলেন। মুস্তাফিজুর রহমান ও মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত এই আনন্দময় মূর্হর্তের ছবি ধরে রাখতে ভুললেন না।

বাংলাদেশ দল বৃহস্পতিবার সকালে লেস্টারশায়ার ত্যাগ করে। দুপুরে দলের সদস্যরা কার্ডিফে পৌছান। ২৮ মে’র শেষ প্রস্তুতি ম্যাচ পর্যন্ত বাংলাদেশ দল কার্ডিফে থাকবে। তারপর লন্ডন রওয়ানা হবে।

বৃহস্পতিবার অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা দলের সঙ্গে কার্ডিফে যেতে পারেননি। দুপুরে লন্ডনে বিশ্বকাপের অংশগ্রহনকারি ১০ দেশের অধিনায়কদের সংবাদ সম্মেলনে তিনি অংশ নেন।

আপনার মতামত লিখুন :