Alexa

বোলাররা আমাকে ভয় পায়: গেইলের গর্জন!

বোলাররা আমাকে ভয় পায়: গেইলের গর্জন!

বিশ্বকাপের আগে কথার উত্তাপ ছড়ালেন ক্রিস গেইল

বিশ্বকাপের মাঠে আগেভাগে পুরোদুস্তর রেসলিংয়ের আমেজ ছড়িয়ে দিচ্ছেন ক্রিস গেইল! টুর্নামেন্ট এখনো শুরু হয়নি। কিন্তু মাঠের বাইরে দাড়িয়ে তর্জন-গর্জন শুরু করে দিয়েছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের এই মারকুটে ওপেনার।

রেসলিংয়ে যেমন খেলা শুরুর আগে মাইক হাতে নাটকীয় কায়দায় মঞ্চে প্রবেশ করে কুস্তিগীররা নিজের প্রশংসা গাইতে শুরু করেন, সেই সঙ্গে প্রতিপক্ষকে কথার তুবড়িতে হাওয়ায় উড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা চালান-একই মেজাজ দেখালেন বিশ্বকাপের শহরে পৌছে ক্রিস গেইল।

এটি গেইলের পঞ্চম এবং শেষ বিশ্বকাপ। তো শেষ বিশ্বকাপ শুধু নিজের জন্য নয়, ওয়েস্ট ইন্ডিজের জন্য স্মরনীয় করে রাখার প্রতিজ্ঞা নিয়েছেন ব্যাটিংয়ের দ্য ইউনিভার্সল বস্!

শুনি কি বলছেন ক্রিস গেইল-‘মানছি আমার রিফ্লেক্স এখন আর তেমন দ্রুত নয়। যেমনটা আগে ছিলো। তবে তারপরও তারা (বোলাররা) আমাকে ভয় পায়। বোলাররা ভালোই জানে দ্য ইউনিভার্সল বস্ কি করতে পারে? এই চিন্তা মাথার মধ্যে নিয়েই তারা মাঠে নামবে। আমাকে বল করার আগে তাদের মস্তিস্কে চিন্তার ¯্রােত বয়ে যাবে-সামনে দাড়ানো এই ব্যাটসম্যানটা বিশ্বের সবচেয়ে দুর্ধর্ষ ব্যাটসম্যান!’

-সত্যিই বোলারা আপনাকে এমন ভয় পায়?

প্রশ্নকর্তার দিকে ঘাড় ঘুরিয়ে তাকালেন ক্রিস গেইল, বললেন-‘যাও ওদেরই গিয়েই প্রশ্নটা করো। ক্যামেরার সামনে এনে দাড় করিয়ে জিজ্ঞেস করো, তখন তারা বলবে-না ওকে আমরা কেউ ভয় করি না। কিন্তু ক্যামেরা বন্ধ করে আবার জিজ্ঞেস করো। দেখবে এবার তারা বলতে শুরু করবে-আরে হ্যাঁ, এই তো সেই লোক। এই তো সেই ব্যাটসম্যান!’

চলতি বছরের ২১ সেপ্টেম্বর নিজের ৪০তম জন্মদিনের কেক কাটবেন ক্রিস গেইল। তবে এখনো বোলারদের সঙ্গে ক্রিকেট মাঠের লড়াইটা দারুণ উপভোগ করেন বলে জানালেন-‘ফাস্ট বোলারদের বিপক্ষে লড়তে আমি পছন্দ করি। একটা যুদ্ধ যুদ্ধ মেজাজ নিয়ে খেলতে নামি। বাড়তি চ্যালেঞ্জ অনুভব করি । এমন মেজাজে থাকলে ব্যাটিংয়ে একটু বাড়তি তাগিদ পাই আমি।’

মুখ বেজার করে ক্রিকেট খেলার পক্ষে নন ক্রিস গেইল। বাঁচো এবং আনন্দ নিয়ে বাঁচো এই দর্শনে নিজের ক্রিকেট জীবনকেও সাজিয়েছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের এই তারকা।

হাসি-আনন্দ-মজা-কৌতুকের সঙ্গে ক্রিকেটীয় চ্যালেঞ্জটা উপভোগ করেন গেইল। ড্রেসিংরুম মাতিয়ে রাখেন আনন্দে-‘ এই যে দর্শকরা ছক্কা চাই, ছক্কা চাই বলে দাবি তুলে, তাদের এই আওয়াজও আমাকে দারুণ অনুপ্রাণিত করে, উৎসাহিত করে।’

ওয়ানডে ক্রিকেটের পেছনের চারটি বিশ্বকাপ খেললেও ট্রফি জেতা হয়নি তার। জীবনের শেষ বিশ্বকাপে সেই স্বপ্ন পুরো করতে চান গেইল-‘সত্যি বলতে কি আমার আসলে আর কিছু প্রমান করার নেই। এখন খুব ভালো হয় যদি বিশ্বকাপটা জিততে পারি।’

খুব ভালো ফর্মে আছেন গেইল। আইপিএলে কিংস এলেভেন পাঞ্জাবের হয়ে ১৩ ইনিংসে ৪৯০ রান করেছেন। তার আগে ঘরের ক্যারিবিয়ানের মাটিতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ৪২৪ রান করেন। সিরিজে তার রান গড় ১০৬। ছক্কার সংখ্যা ৩৯!

তার ব্যাটিং পরিসংখ্যান দেখে বোলারদের আসলে ভয় পাওয়ারই কথা!

আপনার মতামত লিখুন :