Alexa

স্বপ্নের ফাইনালে এক পা আয়াক্সের

স্বপ্নের ফাইনালে এক পা আয়াক্সের

আয়াক্সের ফুটবলারদের গোল উদযাপন

আয়াক্সের জন্য ফাইনাল ম্যাচ সোনার হরিণ। ১৯৯৪-৯৫ মৌসুমে সর্বশেষ চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিতেছে তারা। এরপর উয়েফার শিরোপা অধরা হয়েই আছে নেদারল্যান্ডসের দলটির। কিন্তু এবার বেশ প্রস্তুত হয়েই আছে। সেমি-ফাইনালের প্রথম লেগে টটেনহ্যাম হটস্পারকে হারিয়ে ইউরোপ সেরার লড়াইয়ের ফাইনালে এক পা দিয়েছে আয়াক্স।

টটেনহ্যামের মাঠে মঙ্গলবার রাতে সেমি-ফাইনালের প্রথম লেগে ১-০ গোলে জিতেছে আয়াক্স। ৮ মে ফিরতি লেগে এগিয়ে থেকেই মাঠে নামবে দলটি। কারণ টটেনহ্যামকে কমপক্ষে ২-১ গোলে জিততে হবে। আর ড্র করলেই আয়াক্স উঠে যাবে ফাইনালে।

প্রতিপক্ষের মাঠে শুরু থেকেই বেশ দাপটে খেলে গেছে আয়াক্স। আর সুফলটাও পেয়েছে চটজলদি। খেলার ১৫তম মিনিটেই দল এগিয়ে যায়। সতীর্থ হাকিমের বাড়ানো পাস থেকে বল পেয়ে নিশানা খুঁজে নেন ফন দে বেক। যদিও গোলের বাঁশি বাজাতে রেফারি ভিএআরের সাহায্যে নিয়েছেন। কারণ বেক অফসাইডে ছিলেন এমন দাবী উঠে প্রতিপক্ষ শিবির থেকে।

ম্যাচটিতে অবশ্য দলের সেরা তারকা হ্যারি কেইনকে ছাড়াই খেলতে হয়েছে টটেনহ্যামের। তার অভাবটা বেশ চোখে পড়ল। একইসঙ্গে আরেক ইনফর্ম তারকা সন হিউং-মিনও কার্ড জটিলতায় ছিলেন না মাঠে।

এ অবস্থায় আয়াক্স ধরে রাখে তার পুরনো ছন্দ। জুভেন্টাসের স্বপ্ন ভেঙে আসা ডাচ ক্লাবটি যোগ্যতর দল হিসেবেই জিতেছে সেমির প্রথম লেগ।। অবশ্য ম্যাচে ফিরতে মরিয়া হয়েই লড়েছে টটেনহ্যাম। কিন্তু তাদের সেই সুযোগটা দেয়নি আয়াক্স।

এমন কী ৭৯তম মিনিটে ডেভিড নেরেসের গোলে ব্যবধানটা দ্বিগুণ হতে যাচ্ছিল। কিন্তু ব্রাজিলিয়ান এই ফরোয়ার্ডের শট থেকে উড়ে যাওয়া বল পোষ্টে লেগে ফিরে আসে! তারপরও প্রতিপক্ষের মাঠে দারুণ জয়ে হাসি মুখে মাঠ ছাড়ে আয়াক্সের ফুটবলাররা।

আপনার মতামত লিখুন :