Alexa

২০২০ সালের টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপেও ধোনি!

২০২০ সালের টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপেও ধোনি!

মহেন্দ্র সিং ধোনি : নতুন মিশনের অপেক্ষায়

ভারতীয় দলের হয়ে বিশ্বকাপে খেলছেন সেই ২০০৭ সাল থেকে। সেই বিশ্বকাপের প্রথম পর্ব থেকেই ভারত বিদায় নিয়েছিলো। চার বছর পরের বিশ্বকাপে ভারত চ্যাম্পিয়ন হয়। সেই দলের অধিনায়ক ছিলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। ২০১৫ সালের বিশ্বকাপেও ভারতের অধিনায়ক ছিলেন ধোনি। সেই বিশ্বকাপে সেমিফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার কাছে হেরে যায় ভারত। এবারের ২০১৯ সালের বিশ্বকাপেও ভারতীয় দলের উইকেটকিপার কাম ব্যাটসম্যান হিসেবে আছেন ধোনি। তবে অধিনায়ক অন্যজন, বিরাট কোহলি।

বলা হচ্ছে এটাই মহেন্দ্র সিং ধোনির শেষ বিশ্বকাপ। বয়স এখন ৩৭ পেরিয়ে ৩৮ এর পথে। চার বছর পরে দেশের মাটিতে পরের ওয়ানডে বিশ্বকাপে ধোনির খেলার সম্ভাবনা শূন্য প্রায়। কিন্তু আগামী বছর অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে বসছে টি-টুয়েন্টি বিশ্বকারে আসর। সেই টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপে কি ধোনিকে দেখা যাবে? টি-টুয়েন্টিতে ধোনির এখন যে দুর্দান্ত ফর্ম যাচ্ছে তা দেখে একযোগে প্রায় সবাই বলছেন-অবশ্যই পরের টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপে ধোনির খেলা উচিত।

২০০৭ সালে ধোনির নেতৃত্বে ভারত প্রথমবারের মতো টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপ জিতেছিলো। ২০১১ সালে জিতে ওয়ানডে বিশ্বকাপ। টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ট্রফিও উঠেছে অধিনায়ক ধোনির হাতে। আইপিএলের ট্রফি জিতেছেন তিনবার। তিনবার রার্নাসআপ হয়েছেন। ভারতের ক্রিকেট ইতিহাসের এখন পর্যন্ত সবচেয়ে সফল ও প্রভাবী অধিনায়ক বলা হয় মহেন্দ্র সিং ধোনিকে। 

টেস্ট ক্রিকেট থেকে আগেই বিদায় নিয়েছেন ধোনি। এখন শুধু ওয়ানডে ও টি-টুয়েন্টি খেলছেন। কিছুদিন আগে ফর্মের কারণে ভারতের টি-টুয়েন্টি দল থেকে বাদ পড়েছিলেন। তবে বেশিদিন দলের বাইরে থাকতে হয়নি। সর্বশেষ অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টি-টুয়েন্টি সিরিজেই ফের ভারতের জার্সি গায়ে ফিরেছেন। আর এবারের আইপিএলে ব্যাট হাতে ধোনি যে ফর্ম দেখাচ্ছেন তা এককথায় চমকপ্রদ। একা হাতেই দলকে টেনে তুলছেন। ব্যাট হাতে প্রায় অসম্ভব অবস্থান থেকে দলকে জিতিয়ে আনছেন। পয়েন্টের শীর্ষে থেকে এবারের আইপিএলের প্লে অফে ধোনির দল চেন্নাই সুপার কিংস জায়গা করে নিয়েছে। আর ব্যাট হাতে ধোনি এখন পর্যন্ত দলের সবচেয়ে বেশি রানের মালিক এবারের টুর্নামেন্টে। 

ধোনি সম্পর্কে চেন্নাইয়ের কোচ স্টিফেন ফ্লেমি যা বলেছেন সেটা বাঁধিয়ে রাখার মতোই-‘ধোনি গ্রেট খেলোয়াড় এবং একই সঙ্গে গ্রেট দলনেতাও । এই ধরনের নেতা দলে না থাকলে দলে অনেক বড় শূন্যতার তৈরি হয়।’

ফ্লেমিংয়ের এই টুইট ২০২০ সালের টি-টুয়েন্টির অফিসিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্টও শেয়ার করে। সেই সঙ্গে ক্রিকেট প্রেমিদের কাছে জানতে চাওয়া হয়-২০২০ সালের টি-টুয়েন্টিতে ধোনিকে তারা দেখতে চান কিনা?

প্রায় সঙ্গে সঙ্গে টুইটের ঝড় বয়ে যায়! প্রতিক্রিয়া জানানো সবাই ধোনির প্রশংসা করেন এবং সেই সঙ্গে তাকে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে সামনের বছরের টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপে দেখতে চান বলে মত জানান।

আপনার মতামত লিখুন :