Barta24

বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯, ২ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

সেমি-ফাইনালে চেলসি-আর্সেনাল

সেমি-ফাইনালে চেলসি-আর্সেনাল
সতীর্থদের সঙ্গে পেড়্রোর গোল উদযাপন। ম্যাচে জোড়া পেয়েছেন তিনি
সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের মতো ইংলিশ জায়ান্টদের দাপট ইউরোপা লিগেও। ক্লাব ফুটবলের শ্রেষ্টত্বের লড়াইয়ে শেষ চারে উঠেছে লিভারপুল ও টটেনহ্যাম হটস্পার। বৃহস্পতিবার রাতে ইউরোপা লিগের সেমি-ফাইনালে পা রাখল আর্সেনাল ও চেলসি। কোয়ার্টার-ফাইনালের দ্বিতীয় লেগে জয় তুলে নিয়েছে দুই ক্লাবই।

স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে নিজেদের চেলসি ৪-৩ গোলে হারায় চেক রিপাবলিকের দল স্লাভিয়া প্রাগকে। দুই লেগ মিলিয়ে ৫-৩ গোলের জয়ে অলব্লুজরা পেয়ে যায় শেষ চারের টিকিট।

বৃহস্পতিবার রাতের আরেক ম্যাচে নাপোলির বিপক্ষে ১-০ গোলে জয় তুলে নেয় আর্সেনাল। গানাররা দুই লেগ মিলিয়ে জিতেছে ৩-০ গোলে। সেমিতে আর্সেনালের প্রতিপক্ষ স্প্যানিশ ক্লাব ভালেন্সিয়া। যারা ভিলারিয়ালকে দুই লেগ মিলিয়ে ৫-১ গোলে উড়িয়ে দিয়ে উঠেছে সেরা চারে।

নিজেদের মাঠে মনে হচ্ছিল অনায়াসেই জিততে যাচ্ছে চেলসি। কারণ খেলার ১৭ মিনিটে দলটি প্রতিপক্ষের জালে তিনবার বল পাঠায়। তারপর অবশ্য এই দৃষ্টিনন্দন খেলা ধরা রাখা হয়নি।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Apr/19/1555644833659.jpeg

৫ মিনিটে চেলসিকে এগিয়ে দেন পেড্রা। ৯ মিনিটে আত্মঘাতী আরো পিছিয়ে পড়ে প্রাগ। নিজেদের পোষ্টে বল পাঠান ডিফেন্ডার সিমোন ডেলি। এরপর ১৭তম মিনিটে অলিভিয়ে জিরুদের গোলে আনন্দে ভাসে চেলসির সমর্থকরা।

কিন্তু পরের সময়টুকুতে দাপট ছিল প্রাগের। ২৫তম মিনিটে তমাস সুচেক কমান ব্যবধান। এরপরই অবশ্য ফের নিশানা খুঁজে নেন পেড্রো (৪-১)। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে উত্তেজনা ফিরিয়ে আনে চেক রিপাকলিকের ক্লাবটি। পেতর শেভচিকের গোলে কমে ব্যবধান (২-৪) করেন। এরপর দলটি আরেকটি গোল পেলে মনে হচ্ছিল ড্র-ই বুঝি হবে ম্যাচটি। কিন্তু সেই সুযোগ দেয়নি চেলসি।

ইউরোপা লিগের সেমিতে চেলসির প্রতিপক্ষ জার্মান ক্লাব আইনট্রাখট ফ্রাঙ্কফুর্ট। যারা বেনফিকার বিপক্ষে তাদের দুই লেগ মিলিয়ে ৪-৪ গোলে ড্র করে। তবে বেশি অ্যাওয়ে গোলের দলটি পেয়ে যায় শেষ চারের টিকিট।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Apr/19/1555644854042.jpg

অন্যদিকে আর্সেনাল দুই লেগ অনেকটা অনায়াসেই নাপোলিকে হারিয়েছে। আগের লেগে ২-০ গোলের জয় এগিয়ে দিয়েছিল ইংলিশ জায়ান্টদের। বৃহস্পতিবার রাতে অবশ্য নুন্যতম ব্যবধানে জিতে মাঠ ছাড়ে দলটি। গোলদাতা আলেকজান্দ্র লাকাজেত। তার গোল ধরে রেখেই হাসিমুখে মাঠ ছাড়ে আর্সেনাল।

আপনার মতামত লিখুন :

বিশ্বকাপ বাছাইয়ে বাংলাদেশের চার প্রতিপক্ষ

বিশ্বকাপ বাছাইয়ে বাংলাদেশের চার প্রতিপক্ষ
এবার তৃতীয় রাউন্ডে উঠার লড়াই বাংলাদেশের

কোচ জেমি ডে'র হাত ধরে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশের ফুটবল। কাতার-২০২২ বিশ্বকাপের প্রাক বাছাই পর্ব দুর্দান্ত দাপটেই শেষ করেছে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। লাওসকে হারিয়ে টপকে গেছে প্রথম রাউন্ডও। এবার বাছাইয়ের তৃতীয় পর্বে উঠার লড়াই। যেখানে চার প্রতিপক্ষের সঙ্গে লড়তে হবে বাংলাদেশ ফুটবল দলকে।

বুধবার জানা গেল বাংলাদেশ ফুটবল দলের চার প্রতিপক্ষ দেশের নাম। মালয়েশিয়ার রাজধানী কুয়ালালামপুরে অনুষ্ঠিত হয় বিশ্বকাপ বাছাইয়ের দ্বিতীয় রাউন্ডের ড্র।

বাছাই পর্বে ‘‌‌ই’ গ্রুপে রয়েছে বাংলাদেশ। যেখানে জামাল ভুঁইয়াদের প্রতিপক্ষ- ভারত, আফগানিস্তান, ওমান ও ২০২২ বিশ্বকাপের স্বাগতিক কাতার।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/17/1563359535035.png

৫ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হবে বিশ্বকাপ বাছাইয়ে দ্বিতীয় পর্বের লড়াই। গ্রুপের প্রতিটি দল হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে ভিত্তিতে পরষ্পরের সঙ্গে লড়বে। লড়াই শেষ হবে ২০২০ সালের ৯ জুন।

এশিয়ার ৪০ দেশকে বাছাই পর্বে ভাগ করা হয়েছে ৮ গ্রুপে। প্রতি গ্রুপে থাকছে- ৫ দেশ। গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন দলই পা রাখবে তৃতীয় রাউন্ডে। ৮ গ্রুপের সেরা চার রানারআপ দলও পাবে পরের রাউন্ডের টিকিট। তারা  এএফসি এশিয়া কাপে খেলারও সুযোগ পাবে।

ভাইয়ের মৃত্যুর শোক কাটিয়ে বিশ্বকাপ জয়

ভাইয়ের মৃত্যুর শোক কাটিয়ে বিশ্বকাপ জয়
বন্ধুসুলভ ভাইকে হারিয়ে হতবাক হয়ে পড়েন জোফরা আর্চার

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে জয় দিয়ে ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপ মিশন শুরুর পরই আসে খারাপ খবরটা। জোফরা আর্চার জানতে পারেন, তার প্রিয় চাচাতো ভাই আশান্টিও ব্ল্যাকম্যান আর নেই। সেন্ট ফিলিপে বাড়ির বাইরে দুর্বৃত্তের গুলিতে নিহত হয়েছেন তিনি। বন্ধুসুলভ ভাইকে হারিয়ে হতবাক হয়ে যান এ তারকা ইংলিশ পেসার।

আর্চারের বাবা ফ্র্যাঙ্ক বলেন, ‘আর্চারের চাচাতো ভাইও তার সমবয়সী এবং তারা খুবই ঘনিষ্ঠ ছিল।  এমনকি মৃত্যুর আগের দিন আর্চারকে বার্তাও পাঠিয়েছিল তার ভাই। তার মৃত্যুতে সত্যিই ভেঙে পড়ে ছিল আর্চার।  কিন্তু পরে শোকটা কাটিয়ে উঠে এগিয়ে যায় ও।’

মনের মাঝে ভাই হারানোর বেদনা নিয়েও আর্চার খেলে গেছেন বিশ্বকাপে। শুধু খেলে যাননি, ইংল্যান্ড হিরো শোককে শক্তিতে রূপান্তর করে পুরো টুর্নামেন্ট জুড়ে রীতিমতো দ্যুতি ছড়িয়ে গেছেন আগুনে বোলিংয়ে।

১১ ইনিংসে ২০ উইকেট নিয়ে বার্বাডিয়ান বংশোদ্ভূত এ পেসার বনে গেছেন বিদায়ী বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি। সুবাদে ইংল্যান্ডের প্রথম বিশ্বকাপ শিরোপা জয়ে রেখেছেন অগ্রণী ভূমিকা।

লর্ডসে নির্ধারিত ৫০ ওভারের খেলা শেষে ফাইনালটা ২৪১ রানে হয়ে যায় টাই।  ফলে ফাইনালের ভাগ্য গড়ায় সুপার ওভারে। সেই সুপার ওভারে বল করে নিউজিল্যান্ডকে জিততে দেননি আর্চার।  প্রতিপক্ষকে নিজেদের সমান ১৫ রানে আটকে রাখেন। ফলে সুপার ওভারেও টাই হলে বেশি বাউন্ডারি হাঁকানোর সুবাদে শিরোপা জিতে নেয় স্বাগতিক ইংল্যান্ড।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র