Barta24

রোববার, ২১ জুলাই ২০১৯, ৬ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

আবাহনীর জয়ের দিনে রূপগঞ্জের হার

আবাহনীর জয়ের দিনে রূপগঞ্জের হার
অলরাউন্ড নৈপুণ্যে আবাহনী-মোহামেডান ম্যাচের সেরা মোসাদ্দেক, ছবি: সংগৃহীত
স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

একইদিনে দুই স্বস্তি পেলো আবাহনী। মোহামেডানকে হারালো ৪৫ রানে। আর ম্যাচ শেষে আরেকটা খবর পেলো তারা-সুপার লিগে রূপগঞ্জ তাদের দ্বিতীয় ম্যাচে হেরেছে। পয়েন্ট টেবিলে এখন আবাহনীর চেয়ে মাত্র দুই পয়েন্ট এগিয়ে রূপগঞ্জ। ঢাকা প্রিমিয়ার ক্রিকেটে অন্য এক ম্যাচে এদিন মিরপুরে দুই ‘প্রাইম’ এর লড়াইয়ে দোলেশ্বর জয় পেয়েছে। প্রাইম ব্যাংককে সহজেই হারিয়েছে প্রাইম দোলেশ্বর ৭ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে।

বিকেএসপিতে আবাহনী ব্যাটিং বেছে নিয়ে ৩০৪ রানের বড় সংগ্রহ দাঁড় করায়। ওপেনিংয়ে নেমেও এই ম্যাচে ফর্মে ফিরতে পারলেন না সৌম্য সরকার। ১৭ রানে শেষ হয় তার ইনিংস। ওয়ান ডাউনে প্রমোশন পেয়ে সাব্বির রহমান ঠিকই নিজেকে মেলে ধরলেন। ৫৩ বলে করলেন ৬৪ রান।

মিডলঅর্ডারে মোহাম্মদ মিঠুন, অধিনায়ক মোসাদ্দেক হোসেন ও মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন বিশ্বকাপ দলে জায়গা পাওয়ার আনন্দ বেশ ভালভাবেই ব্যাট হাতে উদযাপন করলেন। মিঠুন ও মোসাদ্দেক হাফসেঞ্চুরি করেন। সাইফুদ্দিন ৩৫ বলে তুললেন ৪১ রান। বিশ্বকাপ দলে জায়গা না পাওয়া শফিউল ইসলাম ৬৩ রানে ৩ উইকেট পান।

রান তাড়ায় নেমে মোহামেডানের টপঅর্ডার পুরোদুস্তর ডিসঅর্ডার হয়ে পড়ে। ২০ রানে নেই শুরুর তিন উইকেট। টলমলে ইনিংসকে পথ দেখায় রকিবুল হাসান ও মোহাম্মদ আশরাফুলের ব্যাট। দুজনেই হাফসেঞ্চুরি করেন। রকিবুল হাসান যেভাবে খেলছিলেন তাতে সেঞ্চুরিটা তার পাওনাই ছিল। কিন্তু দ্বিতীয় স্পেলে বোলিংয়ে এসেই রকিবুলের সেঞ্চুরির স্বপ্ন ভেঙে দিলেন মাশরাফি।

লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে ৪০০ উইকেট শিকারের দিনে এই ম্যাচে মাশরাফি ৪০ রানে তুলে নিলেন ৩ উইকেট। বোলিং ওপেন করতে এসে মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের শিকারও ৩৬ রানে ৩ উইকেট। রকিবুল ৯৬ ও আশরাফুল ৬৮ রানে ফেরার পর মোহামেডান তখন শুধু হারের অপেক্ষায়। নিজের নবম ওভারে মাশরাফি সেই অপেক্ষাও শেষ করে দিলেন। ৪৫ রানে এই ম্যাচ জিতে আবাহনী এখন লিগ শিরোপার দৌড়ে বেশ ভালভাবেই থাকলো।

ফতুল্লায় রূপগঞ্জের ব্যাটিংটাই জেতার মতো কিছু যে হলো না। গুটিয়ে যায় ১৬৯ রানে। ওপেনার মোহাম্মদ নাঈম ৫৮ রান করেন। ১৭১ রানে থেমে যায় রূপগঞ্জের ইনিংস। পেসার খালেদ আহমেদ ৩১ রানে ৪ উইকেট পান। স্পিনার তাইজুল ইসলাম ১৬ রানে ২ উইকেট শিকার করেন।

৪ উইকেটে এই ম্যাচ জিতে শেখ জামাল ধানমণ্ডি ক্লাবের তেমন লাভের কিছু না হলেও তাদের জয় আবাহনীর মুখে স্বস্তির হাসি এনে দিয়েছে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর: আবাহনী ৩০৪/৭ (৫০ ওভারে, সাব্বির ৬৪, মিঠুন ৫৬, মোসাদ্দেক ৫৪*, সাইফুদ্দিন ৪১, শফিউল ৩/৬৩)। মোহামেডান: ২৫৯/১০ (৪৬.৩ ওভারে, রকিবুল ৯৬, আশরাফুল ৬৮, মোসাদ্দেক ৩/৩৬, মাশরাফি ৩/৪০, সৌম্য ২/৪০)। ফল: আবাহনী ৪৫ রানে জয়ী। ম্যাচ সেরা: মোসাদ্দেক হোসেন।

রূপগঞ্জ: ১৭১/১০ (৪৯.৩ ওভারে, নাঈম ৫৮, খালেদ ৪/৩১, তাইজুল ২/১৬)। শেখ জামাল: ১৭১/৬ (৪৮.৩ ওভারে, ইলিয়াস সানি ৫৮, তানভীর হায়দার ৪৩*, নাবিল সামাদ ৩/২৭)। ফল: শেখ জামাল ধানমণ্ডি ৪ উইকেটে জয়ী। ম্যাচ সেরা: ইলিয়াস সানি।

প্রাইম ব্যাংক: ১৬৯/১০ (৪৮.১ ওভারে, অলক ৬১, ফরহাদ রেজা ৪/২২, তাইবুর ২/১০)। প্রাইম দোলেশ্বর: ১৭২/৩ (৪৩.৪ ওভারে, সাঈফ ৫৫, ফরহাদ রেজা ৪১*)। ফল: প্রাইম দোলেশ্বর ৭ উইকেটে জয়ী। ম্যাচ সেরা: ফরহাদ রেজা।

আপনার মতামত লিখুন :

কোহলিই অধিনায়ক, ধোনি-হার্দিক বিশ্রামে

কোহলিই অধিনায়ক, ধোনি-হার্দিক বিশ্রামে
ধোনি ও হার্দিককে ছাড়াই মাঠে নামবেন কোহলি

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে ভারতের নেতৃত্বে কে থাকবেন? বিরাট কোহলি নাকি রোহিত শর্মা? এনিয়ে নানা গুঞ্জন উড়ে বেড়িয়েছে গণমাধ্যমে। কোহলিকে বিশ্রাম দিয়ে রোহিতের কাঁধে নেতৃত্বভার দেওয়ার কথাও শোনা গিয়েছিল। রটে ছিল নেতৃত্ব ভাগ করে দেওয়ার গুঞ্জনও। কিন্তু শেষমেশ সব গুঞ্জন উড়িয়ে দিয়ে ক্যারিবিয়ান সফরে তিন সংস্করণেই ভারতকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন কোহলি।

শনিবারই খবর রটে যায়, ক্রিকেট থেকে এখনই অবসর নিচ্ছেন না মহেন্দ্র সিং ধোনি। যাচ্ছেন না উইন্ডিজ সফরেও। ক্রিকেট থেকে ছুটি নিয়ে যোগ দিচ্ছেন সেনাবাহিনীতে। বাস্তবে সেটাই হল। ক্যারিবিয়ান সফরের দলে নেই ধোনি। তবে চোট কাটিয়ে একদিনের ও টি-টুয়েন্টি দলে ফিরেছেন ওপেনার শিখর ধাওয়ান।

তবে তিন ধরণের ক্রিকেটেই বিশ্রাম দেওয়া হয়েছে হার্দিক পান্ডিয়াকে। সীমিত ওভারের সিরিজে নেই জাসপ্রিত বুমরাহ। খেলবেন শুধু লাল বলের ম্যাচে। তবে রিশব পান্থ তিন সংস্করণেই আছেন।

সীমিত ওভারের দলে নির্বাচকরা জায়গা করে দিয়েছেন এক ঝাঁক তরুণ ক্রিকেটারকে। টি-টুয়েন্টিতে জায়গা হয়নি কেদর যাদবের। প্রত্যাশা মাফিক টেস্টে রিশব পান্থের ব্যাক-আপ হিসেবে ডাক পেয়েছেন ঋদ্ধিমান সাহা। টেস্ট দলে উমেশ যাদবকে জায়গা করে দিতে ছিটকে গেছেন ভুবনেশ্বর কুমার।

৩ আগস্ট থেকে শুরু হওয়া সফরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিনটি করে টি-টুয়েন্টি ও ওয়ানডে এবং দুটি টেস্ট খেলবে ভারত।

টেস্ট দল: বিরাট কোহলি (অধিনায়ক), অজিঙ্কা রাহানে (সহ-অধিনায়ক), মায়াঙ্ক আগরওয়াল, লোকেশ রাহুল, চেতেশ্বর পূজারা, হনুমা বিহারী, রোহিত শর্মা, রিশব পান্থ, ঋদ্ধিমান সাহা, রবিচন্দ্রন অশ্বিন, রবীন্দ্র জাদেজা, কুলদীপ যাদব, ইশান্ত শর্মা, মোহাম্মদ সামি, জাসপ্রিত বুমরাহ ও উমেশ যাদব।

ওয়ানডে দল: বিরাট কোহলি (অধিনায়ক), রোহিত শর্মা (সহ-অধিনায়ক), শিখর ধাওয়ান, লোকেশ রাহুল, শ্রেয়াস আইয়ার, মনিশ পান্ডে, রিশব পান্থ, রবীন্দ্র জাদেজা, কুলদীপ যাদব, যুবেন্দ্র চাহাল, কেদর যাদব, মোহাম্মদ সামি, ভুবনেশ্বর কুমার, খলিল আহমেদ ও নবদীপ সাইনি।

টি-টুয়েন্টি দল: বিরাট কোহলি (অধিনায়ক), রোহিত শর্মা (সহ-অধিনায়ক), শিখর ধাওয়ান, লোকেশ রাহুল, শ্রেয়াস আইয়ার, মনিশ পান্ডে, রিশব পান্থ, ক্রুনাল পান্ডিয়া, রবীন্দ্র জাদেজা, ওয়াশিংটন সুন্দর, রাহুল চাহার, ভুবনেশ্বর কুমার, খলিল আহমেদ, দীপক চাহার ও নবদীপ সাইনি।

বাংলাদেশে ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলতে পারছে না জিম্বাবুয়ে

বাংলাদেশে ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলতে পারছে না জিম্বাবুয়ে
ক্রিকেট থেকেই দূরে সরে যাচ্ছে জিম্বাবুয়ে

ভয়াবহ দুঃসময়ে দাঁড়িয়ে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট। এরইমধ্যে জিম্বাবুয়ের সদস্য পদ স্থগিত করেছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। দেশটির বোর্ডে সরকারের রাজনৈতিক হস্তক্ষেপের পরই এমন কঠিন সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ব ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা। এ কারণেই থমকে গেল দেশটির ক্রিকেট।

নিরুপায় হয়ে এবার ত্রিদেশীয় টি-টুয়েন্টি সিরিজ খেলতে বাংলাদেশে আসতে অপারগতার কথা জানিয়েছেন জিম্বাবুয়ের ক্রিকেট কর্তারা। সেপ্টেম্বরে অনুষ্ঠেয় এই টুর্নামেন্টে খেলার কথা ছিল জিম্বাবুয়ের।

গত শনিবার জিম্বাবুয়ে ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা জানায়-সামনের মৌসুমে ঘরোয়া টুর্নামেন্টই আয়োজনের সামর্থ্য নেই তাদের। একইভাবে অর্থনৈতিক কারণে নিকট ভবিষ্যতে আন্তর্জাতিক সিরিজেও খেলতে পারছে না তারা।

আরও পড়ুন- সদস্য পদ স্থগিতে ক্রিকেটের বাইরে জিম্বাবুয়ে

সরকারের হস্তক্ষেপের কারণে লন্ডনে আইসিসির সভায় সর্ব সম্মতিক্রমে জিম্বাবুয়ের সদস্য পদ স্থগিত করা হয়। এই নিষেধাজ্ঞার পর থমকে গেল জিম্বাবুয়ের ক্রিকেট। তারা আইসিসি'র কোনো ইভেন্টে অংশ নিতে পারবে না। জাতীয় দল ও বয়সভিত্তিক দলের ক্রিকেট বন্ধ হয়ে গেল। এমন কী আইসিসির কাছ থেকে কোনো অর্থও পাবে না তারা।

এ অবস্থায় এক বিবৃতিতে ক্রিকেট জিম্বাবুয়ে জানিয়েছে, ‘আইসিসির নিষেধাজ্ঞায় সব কিছুই আটকে গেল। আমাদের দেশে একটি বৈশ্বিক টুর্নামেন্টের বাছাইপর্ব হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সেটা এখন অনিশ্চিত হয়ে গেছে। খেলোয়াড় এবং কর্মকর্তারা রয়েছেন চরম বিপাকে। তারা হয়ত কয়েক মাস এমনও হতে পারে আজীবন বেতন ও ম্যাচ ফি বিহীন থাকবে।’

আরও পড়ুন- আইসিসির সিদ্ধান্তে দিশেহারা জিম্বাবুয়ের ক্রিকেটাররা

হতাশ দেশটির তারকা অলরাউন্ডার সিকান্দার রাজা। দিন দুয়েক আগে তিনি বলেন, ‘জানি না আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার হিসেবে আমরা কোথায় খেলব। ক্লাব ক্রিকেটে খেলব নাকি আমরা কোনো ক্রিকেটই খেলতে পারব না? আমরা কী ক্রিকেট সরঞ্জামাদি পুড়িয়ে ফেলে চাকরি খুঁজব?’

এই অবস্থা থেকে মুক্তি পেতে এখন নির্বাচন হতে হবে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেটে। আগামী তিন মাসের মধ্যে নির্বাচন দিলে আর নির্বাচিত কমিটি বোর্ডের দায়িত্ব নিতে পারলেই স্থগিতাদেশ তুলে নিতে পারে আইসিসি।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র