Barta24

মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০১৯, ১১ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

রোবি ফ্রাইলিঙ্ক: কঠিন ম্যাচ সহজে জেতান যিনি!

রোবি ফ্রাইলিঙ্ক: কঠিন ম্যাচ সহজে জেতান যিনি!
রোবি ফ্রাইলিঙ্ককে ঘিরে আনন্দে মেতেছে চিটাগংয়ের ক্রিকেটাররা
এম. এম. কায়সার
স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

তিন ম্যাচে দুটোতে জিতেছে চিটাগং ভাইকিংস। আর এই দুই জয়েই দলের হয়ে বড় ভুমিকা রেখেছেন রোবি ফ্রাইলিঙ্ক। কখনো ব্যাটে। কখনো বল হাতে। টি-টুয়েন্টির ঠিক পারফেক্ট ক্রিকেটার বলতে যা বোঝায় পুরোদুস্তর সেটাই এই দক্ষিণ আফ্রিকান।

প্রায় হিসেবের বাইরে থাকা ম্যাচ জিতিয়ে দিচ্ছেন দলকে। বল হাতেও চমৎকার ফর্মে আছেন। ব্যাট হাতেও বিগ শট খেলে কম বলে বেশি রানের কঠিন টার্গেটকে সহজ বানিয়ে দিচ্ছেন।

খুলনার বিপক্ষে ম্যাচে শেষ ওভারে ব্যাটে এবং সুপার ওভারে বল হাতে দুর্দান্ত পারফরমেন্স দেখান ফ্রাইলিঙ্ক।

খুলনা টাইটানসের বিপক্ষে শেষ ওভারে চিটাগং ভাইকিংসের প্রয়োজন ছিলো ১৯ রান। সেই ওভারে আবার প্রথম বলে কোন রান হলো না। দ্বিতীয় বলে নাঈম হাসান ছক্কা মারলেন। তৃতীয় বলে তিনি আউট। পরের দুই বলে দুই ছক্কা হাঁকিয়ে ম্যাচে নাটকীয়ভাবে চিটাগংয়ে জয়ের একদম কাছে নিয়ে গেলেন ফ্রাইলিঙ্ক। আরিফুল হকের করা পঞ্চম বলে যে ছক্কা হাঁকিয়েছিলেন ফ্রাইলিঙ্ক, সেটা ছিলো কোমর সমান উচ্চতায় আসা ফুলটস। ফ্রাইলিঙ্ক ছক্কা হওয়ার পর সেই বলটা ‘নো’ কলের জন্য আম্পায়ারের কাছে ছুটে গিয়ে দাবি জানান। সেই বলটা নো হলেই ওতে ৭ রান আসে। তখনই ম্যাচ জিতে যায় চিটাগং ভাইকিংস। কিন্তু আম্পায়ার সেই বল ‘ নো’ কল করেননি। ওভারের শেষ বলে ফ্রাইলিঙ্ক কোন রান নিতে পারেননি। রান আউট হয়ে যান। ম্যাচ গড়ায় সুপার ওভারে।

সুপার ওভারে ১২ রানের টার্গেট ছুঁতে পারেনি খুলনা। ঠিক জায়গায় বল রেখে দলকে ১ রানের জয় এনে দেন চিটাগংয়ের এই বিদেশি ক্রিকেটার। নাটকীয় এই জয়ের পর ফ্রাইলিঙ্ক বলছিলেন-‘আমি এখনো বিশ্বাস করি শেষ ওভারের পঞ্চম ঐ বলটা ছিলো নো বল। কিন্তু আম্পায়ার ভিন্নমত পোষণ করেন। কি আর করার! পুরো ম্যাচটা দুর্দান্ত হয়েছে। দু’দলই ভালো খেলেছে। তবে দুর্ভাগ্যের বিষয় হলো একটা দলকে হারতেই হতো!’

ব্যাটে-বলে ম্যাচ জেতানোর এমন কৃতিত্ব ফ্রাইলিঙ্কের জন্য নতুন কিছু নয়। বললেন-‘আমি সাত নম্বরে ব্যাট করতে নামি। জানি ওখানে আমাকে কম বলে বেশি রান করতে হবে। কখনো কখনো শেষ ওভারে ১৫ রান নিতে হবে। আবার কখনো বল হাতে শেষ ওভারে ১০ রানও ডিফেন্ড করতে হবে। আমি এও জানি এমনসব ম্যাচে কখনো আমি পারবো। কখনো প্রতিপক্ষ পারবে। আজ এই দিনটা ছিলো আমার।’

চলতি বিপিএলে চিটাগং ভাইকিংস তিন ম্যাচে দুটিতে জিতেছে। এই দুই ম্যাচেই জয়ের নায়ক রোবি ফ্রানলিঙ্ক। দুটোতেও ম্যাচ সেরা তিনি। সিলেট সিক্সার্সের বিপক্ষে যে ম্যাচে হেরেছে চিটাগং, সেখানেও ফ্রাইলিঙ্কের ব্যাটে-বলে পারফরমেন্স অনবদ্য। ২৪ বলে ৪৪ রান। এবং ২৬ বলে ৩ উইকেট শিকার। যে ম্যাচে দল জিতছে সেখানে সেরা পারফরমেন্স তার। যে ম্যাচে জিততে পারেনি, সেখানেও সেরা চেষ্টাটা তারই!

ক্যারিয়ারের লম্বা সময় জুড়ে ম্যাচে এমন জমাট মূহূর্ত দেখে এসেছেন এবং সেই সময়টা জয়ও করেছেন; সেই অভিজ্ঞতাই ফ্রাইলিঙ্ককে এমনসব কঠিন সময়েও শান্ত ও ধীরস্থির থাকতে সহায়তা করেছে।

ম্যাচের চরম উত্তেজনার সময়ও এত শান্ত ভঙ্গিতে থাকার সেই রহস্য প্রসঙ্গে ফ্রাইলিঙ্ক জানালেন-‘অনুশীলন করা। ভালভাবে অনুশীলন করা এবং দক্ষতা বাড়ানো। তাহলেই এমনসব কঠিন পরিস্থিতিতে নিজেকে মানিয়ে নেয়া যায়, জেতা যায়।’

কঠিন ম্যাচ জেতানোর ফ্রাইলিঙ্কের সহজ ফর্মুলা তাহলে এই!

আপনার মতামত লিখুন :

বুকে ব্যথা নিয়ে হাসপাতালে ব্রায়ান লারা

বুকে ব্যথা নিয়ে হাসপাতালে ব্রায়ান লারা
মুম্বাইয়ের এক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে লারাকে- ফাইল ছবি

বিশ্বকাপ ক্রিকেটের বিশ্লেষণ নিয়ে বেশ ব্যস্ত ছিলেন তিনি। স্টার স্পোর্টসে বিশেষজ্ঞ হিসেবে ডাগআউটে কাজ করছিলেন ব্রায়ান লারা। কিন্তু হঠাৎ করেই মঙ্গলবার কিংবদন্তি এই ক্রিকেটার অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছে লারাকে।

গত মাস ধরেই মুম্বাইয়ে আছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাবেক এই তারকা ক্রিকেটার। স্টার স্পোর্টসের স্টুডিওতে প্রথমে আইপিএল তারপরই বিশ্বকাপে বিশ্লেষক হিসেবে কাজ করছিলেন।

এরইমধ্যে মঙ্গলবার হঠাৎই এই লিজেন্ডের বুকে ব্যথা শুরু হয়। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে মুম্বাইয়ের এক হাসপাতালে ভর্তি করা হয় ক্রিকেটের রাজপুত্র খ্যাত তারকাকে। টাইমস অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে, মুম্বাইয়ের প্যারেলে গ্লোবাল হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন লারা।

ভারত ও আফগানিস্তান ম্যাচের পরই কমেন্ট্রি থেকে বিরতি নেন ৫০ বছর বয়সী লারা। ২৭ জুনের ভারত-ওয়েস্ট ইন্ডিজ ম্যাচে তার ফেরার কথা ছিল। এর আগেই অসুস্থ হয়ে পড়লেন তিনি। ১৩১টি টেস্টে ১১,৯৫৩ রান করা গ্রেটকে নিয়ে দুশ্চিন্তার কিছু নেই বলে জানাচ্ছে ভারতীয় গণমাধ্যম। এখন ঠিক আছেন তিনি।


ক্র্যাচে ভর দিয়ে হাঁটছেন মাহমুদউল্লাহ

ক্র্যাচে ভর দিয়ে হাঁটছেন মাহমুদউল্লাহ
ইনজুরিতে কাবু মাহমুদউল্লাহ। ক্র্যাচে ভর করে হাটতে হচ্ছে তাকে- ছবি: ফেসবুক

মন বিষণ্ন করা এক ছবি! সাউদাম্পটনের গ্র্যান্ড হারবার হোটেলের সামনে ক্র্যাচে ভর করে হাঁটছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ! লাগেজ হাতে সামনেই তার স্ত্রী। এই স্থিরচিত্রটা দেখেই মন খারাপ টাইগার ভক্তদের। দলের অন্যতম সেরা এই ক্রিকেটার ভারতের বিপক্ষে ম্যাচে খেলতে পারবেন তো?

প্রশ্নের উত্তর এখনই মিলছে না। বিশ্বকাপে বিরাট কোহলিদের সঙ্গে ম্যাচটি ২ জুলাই। হাতে লম্বা সময়। ডান পায়ের কাফ মাসলের চোট কাটিয়ে উঠতে কম করে হলেও সাতদিন সময় পাচ্ছেন মাহমুদউল্লাহ। এরমধ্যে সেরে উঠতেও পারেন তিনি।

বাংলাদেশ দলের দলের ফিজিও থিলান চন্দ্রমোহন জানিয়ে রেখেছেন, ‘মাহমুদউল্লাহর পায়ের পেশিতে অল্প মাত্রার (লো গ্রেডের) চোট লেগেছে। আগামী কয়েকদিন তার শারীরিক উন্নতিটা পর্যবেক্ষণ করব। তারপরই বুঝতে পারবো পরিস্থিতি।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/25/1561461168799.jpg

বিশ্বকাপে কাঁধের চোট নিয়েই খেলতে গিয়েছিলেন মাহমুদউল্লাহ। এজন্য বোলিং করতে পারছিলেন না। সঙ্গে যোগ হয়েছে পেশিতে চোট। এই আঘাত নিয়েও সোমবার আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচে নামেন তিনি। উইকেটে যাওয়ার একটু পরই খোঁড়াতে শুরু করেন। তারপর ফিজিও এসে প্রাথমিক চিকিৎসা খেলে যান। আর ৩৮ বলে করেন ২৭ রান।

আপাতত মাহমুদউল্লাহর বিকল্প ভাবছে না টিম ম্যানেজম্যান্ট। হাতে সময় আছে আবার বিকল্প হিসেবে মোহাম্মদ মিথুনও আছেন।

বার্মিংহামে ২ জুলাই ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের ম্যাচ। তার আগে টাইগার ক্রিকেটাররা রয়েছেন ছুটির মেজাজে। সপরিবারে প্যারিসে বেড়াতে যাচ্ছেন সেরা পারফরমার সাকিব আল হাসান। পাঁচদিন ছুটিতে স্কোয়াডে থাকা অন্য ক্রিকেটাররাও খোশ মেজাজে। কিন্তু বার্মিংহামে হোটেলেই বিশ্রামে কাটাতে হচ্ছে মাহমুদউল্লাহকে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র