Barta24

মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০১৯, ৭ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

জাবিতে নদী সংরক্ষণ ক্লাবের কমিটি গঠন

জাবিতে নদী সংরক্ষণ ক্লাবের কমিটি গঠন
নদী সংরক্ষণ ক্লাবের নতুন কমিটি, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
জাবি করেসপন্ডেন্ট
বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) নদী সংরক্ষণ ক্লাবের ১৫ সদস্যের একটি নতুন কমিটি গঠন করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের শিক্ষার্থী আশরাফুল হাবীবকে সভাপতি ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী মাহফুজুর রহমানকে সাধারণ সম্পাদক করে এ কমিটি ঘোষণা করা হয়।

বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান অনুষদ ভবনের শিক্ষক লাউঞ্জে ‘রিভারাইন পিপল বাংলাদেশে’র কেন্দ্রীয় কমিটির পরিচালক এজাজ এ কমিটি ঘোষণা করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক তানজিনুল হক মোল্লা।

কমিটিতে অন্যান্য দায়িত্বে আছেন- যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ফারিয়া কবির, সাংগঠনিক সম্পাদক নুর মোহাম্মদ ও রাকিবুল হাসান, কোষাধ্যক্ষ জুবায়ের কামাল, প্রচার সম্পাদক মুনিয়া তাহসিন, গবেষণা ও উন্নয়ন সম্পাদক আব্দুল আলীম ও জাহাঙ্গীর আলম, পর্যটন ও ভ্রমণ সম্পাদক আদনান আসিফ হায়দার ও খোশবুর রহমান পুলক।

এছাড়া কার্যনির্বাহী সদস্য হিসেবে আছেন আশিকুর রহমান রাহাত, মুন্না রহমান অভি, মাহফুজ ইসলাম মেঘ, আজমল হোসেন।

আপনার মতামত লিখুন :

প্রজ্ঞাপন না দেওয়া পর্যন্ত আন্দোলনের ঘোষণা

প্রজ্ঞাপন না দেওয়া পর্যন্ত আন্দোলনের ঘোষণা
ঢাবির ঐতিহাসিক অপরাজেয় বাংলা ভাস্কর্য, ছবি: সংগৃহীত

অধিভুক্ত সাত কলেজ বাতিলের দাবিতে গত দু’দিন ‘তালা লাগাও কর্মসূচি’ পালন করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষার্থীদের একাংশ। গুরুত্বপূর্ণ একাডেমিক ভবনের গেট এবং প্রশাসনিক ভবনে তালা লাগিয়ে বিক্ষোভ মিছিল ও অসহযোগ আন্দোলন করেন তারা।

সোমবার (২২ জুলাই) শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) পূর্ণ সমর্থন দেয়। শিক্ষার্থীদের ক্লাসে ফিরে যাওয়ার আহবান জানান ডাকসু নেতারা।

কিন্তু রাতে নিউমার্কেট এলাকায় এক ঢাবি শিক্ষার্থীকে মারধরের পর এই আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন সাত কলেজ অন্তর্ভুক্তির বিরোধীরা।

রাতেই আন্দোলনকারীরা এক প্রেসবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। এতে ঢাবি শিক্ষার্থীর ওপর হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়।

DU Clash

আন্দোলনের মুখপাত্র শাকিল মিয়া স্বাক্ষরিত ওই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বারবার শিক্ষার্থীদের মিথ্যা আশ্বাস ও ঘৃণ্য প্রতারণা করে আসছে। এতে শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের ওপর আস্থা হারিয়ে ফেলছে।

‘এমতাবস্থায় প্রশাসন সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিল করে লিখিত প্রজ্ঞাপন জারি না করা পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সব শিক্ষার্থী ক্লাস-পরীক্ষা স্থগিত রেখে অসহযোগ আন্দোলন পালন করবে। লাগাও তালা, বাঁচাও ঢাবি, এই কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে এবং ক্যাম্পাসজুড়ে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালিত হবে।’

আরও পড়ুন: ঢাবি শিক্ষার্থীকে নিউমার্কেট এলাকায় মারধর

ঢাবি শিক্ষার্থীকে নিউমার্কেট এলাকায় মারধর

ঢাবি শিক্ষার্থীকে নিউমার্কেট এলাকায় মারধর
মারধরের শিকার আহত ঢাবি শিক্ষার্থী, ছবি: সংগৃহীত

রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) এক শিক্ষার্থীকে মারধর করা হয়েছে। ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা তাকে পিটিয়েছে বলে অভিযোগ ভুক্তভোগীর।

মারধরের শিকার শিক্ষার্থীর নাম- হাসান চৌধুরী পিয়াল। তিনি ঢাবির ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগে মাস্টার্সে অধ্যয়নরত। তিনি হাজী মুহম্মদ মুহসীন হলের আবাসিক শিক্ষার্থী।

আহত শিক্ষার্থীর বরাত দিয়ে ঢাবি প্রক্টর অধ্যাপক ড একে এম গোলাম রাব্বানী জানান, সোমবার (২২ জুলাই) রাত ৮টার দিকে কোচিং থেকে হলে ফেরার পথে নিউমার্কেট এলাকায় ঢাকা কলেজের কয়েকজন শিক্ষার্থী তার পথ রোধ করেন। এসময় কিছু বুঝে ওঠার আগেই রড ও লাঠি দিয়ে পিয়ালের ওপর চড়াও হন তারা। ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তিনি এখন  হলে রয়েছেন।

এদিকে, কোনো পূর্ব শত্রুতার জেরে নয়, বরং ঢাবির শিক্ষার্থী হওয়ায় পিয়ালের ওপর হামলা হয়েছে বলে দাবি তার বন্ধুদের।

এ বিষয়ে সাত কলেজ বাতিল আন্দোলনের মুখপাত্র শাকিল মিয়া বলেন, শুধু ঢাবির শিক্ষার্থী হওয়ায় পিয়ালের ওপর হামলা হয়েছে। হামলাকারীদের সাহস দেখে বিষ্মিত হচ্ছি। আমরা আন্দোলনের মাধ্যমে তার জবাব দেব। আমাদের আন্দোলন চলমান থাকবে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র