Barta24

মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০১৯, ৭ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

রাবি ছাত্রলীগ সভাপতিসহ ৭ নেতার বিরুদ্ধে লিচু চুরির মামলা

রাবি ছাত্রলীগ সভাপতিসহ ৭ নেতার বিরুদ্ধে লিচু চুরির মামলা
ছবি: সংগৃহীত
রাবি করেসপন্ডেন্ট
বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
রাজশাহী


  • Font increase
  • Font Decrease

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়াসহ সাত নেতার বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি ও লিচু চুরির মামলা দায়ের করা হয়েছে।

নগরীর হেতেমখাঁ এলাকার আব্দুল্লাহ ইবনে মনোয়ার নামের এক ব্যক্তি বাদী হয়ে রাজশাহী সিএমএম আদালতে গত ১৫ মে এ মামলা এ মামলা দায়ের করেন। আগামী ১৬ জুলাই আসামিদের আদালতে হাজিরার জন্য ডাকা হয়েছে। তবে বিষয়টি মঙ্গলবার জানাজানি হয়।

বাদী পক্ষের আইনজীবী মিজানুর রহমান বাদশা মঙ্গলবার (৯ জুলাই) বিকেলে বার্তা২৪.কমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মামলার অন্য আসামিরা হলেন-সহ সভাপতি সাদ্দাম হোসেন, আইন বিভাগের সাধারণ সম্পাদক ইমরান আলী, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক মাহমুদুর রহমান কানন, উপ-আন্তজার্তক বিষয়ক সম্পাদক মেহেদী হাসান আশিক ও কর্মী মেহেদী হাসান বিজয়। এছাড়াও ক্যাম্পাসের বহিরাগত কিন্তু ছাত্রলীগ সভাপতির কক্ষে থাকেন মো. আকাশ নামের একজনকেও এ মামলায় আসামি করা হয়েছে।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, মামলার আসামিরা চাঁদাবাজ, দাঙ্গাবাজ ও পরধন লোভী। আসামিরা সমাজে এমন কোনো খারাপ কাজ নেই যে তারা করতে পারেন না। বাদী দুই মৌসুমের (২০১৯-২০) জন্য রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে ১৫১৯৯৯.১০ টাকায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিনস্থ গোদাগাড়ীর আম ও লিচু বাগান লিজ নেন। এ মৌসুমের ৭ মে রাতে আসামিরা আরো ১৫/২০ জনসহ লিজ নেওয়া আম ও লিচু বাগানে হানা দেন। ওই সময় তারা অবৈধ অস্ত্র দেখিয়ে মৃত্যুর ভয় দেখিয়ে বাদীর কাছে দুই লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। এ সময় বাদীর সঙ্গে আরও কয়েকজন থাকায় আসামিরা কোনো অঘটন ঘটাতে না পারেননি। তবে বাদীকে বাগান থেকে আম ও লিচু না পাড়তে বলেন। টাকা না দেওয়ায় ৯ মে বিকেল ৪টার দিকে ওই সাতজনসহ ১৫/২০ জন মিলে বাগানের লিচু পাড়তে থাকেন।

এজাহারে আরও উল্লেখ করা হয়েছে, বাগানের পাহারাদার লিচু পাড়তে নিষেধ করলে গোলাম কিবরিয়া তাকে কিল ঘুষি মারেন এবং মৃত্যুর ভয় দেখিয়ে বাগান থেকে দূরে সরে যেতে বলেন। পরে তারা সবাই মিলে বাগানের প্রায় দেড় লাখ টাকার লিচু পাড়েন। এ সময় বাগানের পাহারাদার মোবাইল ফোনে বাদীকে ঘটনাটি জানালে তারা লিচুসহ দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন। ওই সাতজন এখনো চাঁদার জন্য হুমকি দিয়ে আসছেন।

ওই দিনই আব্দুল্লাহ ইবনে মনোয়ার মতিহার থানায় মামলা দায়ের করতে গেলে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তাকে আদালতে মামলা দায়েরের পরামর্শ দেন। পরে ১৫ মে আদালতে মামলা করেন তিনি।

আপনার মতামত লিখুন :

ঢাবি শিক্ষার্থীকে নিউমার্কেট এলাকায় মারধর

ঢাবি শিক্ষার্থীকে নিউমার্কেট এলাকায় মারধর
মারধরের শিকার আহত ঢাবি শিক্ষার্থী, ছবি: সংগৃহীত

রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) এক শিক্ষার্থীকে মারধর করা হয়েছে। ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা তাকে পিটিয়েছে বলে অভিযোগ ভুক্তভোগীর।

মারধরের শিকার শিক্ষার্থীর নাম- হাসান চৌধুরী পিয়াল। তিনি ঢাবির ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগে মাস্টার্সে অধ্যয়নরত। তিনি হাজী মুহম্মদ মুহসীন হলের আবাসিক শিক্ষার্থী।

আহত শিক্ষার্থীর বরাত দিয়ে ঢাবি প্রক্টর অধ্যাপক ড একে এম গোলাম রাব্বানী জানান, সোমবার (২২ জুলাই) রাত ৮টার দিকে কোচিং থেকে হলে ফেরার পথে নিউমার্কেট এলাকায় ঢাকা কলেজের কয়েকজন শিক্ষার্থী তার পথ রোধ করেন। এসময় কিছু বুঝে ওঠার আগেই রড ও লাঠি দিয়ে পিয়ালের ওপর চড়াও হন তারা। ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তিনি এখন  হলে রয়েছেন।

এদিকে, কোনো পূর্ব শত্রুতার জেরে নয়, বরং ঢাবির শিক্ষার্থী হওয়ায় পিয়ালের ওপর হামলা হয়েছে বলে দাবি তার বন্ধুদের।

এ বিষয়ে সাত কলেজ বাতিল আন্দোলনের মুখপাত্র শাকিল মিয়া বলেন, শুধু ঢাবির শিক্ষার্থী হওয়ায় পিয়ালের ওপর হামলা হয়েছে। হামলাকারীদের সাহস দেখে বিষ্মিত হচ্ছি। আমরা আন্দোলনের মাধ্যমে তার জবাব দেব। আমাদের আন্দোলন চলমান থাকবে।

রাকসু নির্বাচন: আবাসিক হলে সংলাপ শুরু বৃহস্পতিবার

রাকসু নির্বাচন: আবাসিক হলে সংলাপ শুরু বৃহস্পতিবার
ছবি: সংগৃহীত

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (রাকসু) নির্বাচন নিয়ে সাধারণ শিক্ষার্থীদের মতামত ও প্রত্যাশা জানতে আবাসিক হলগুলোর সঙ্গে আলোচনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সংলাপ কমিটি।

আগামী বৃহস্পতিবার (২৫ জুলাই) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় শহীদ ড. শামসুজ্জোহা হলের মিলনায়তনে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সংলাপে বসা হবে।

সোমবার (২২ জুলাই) রাকসু সংলাপ কমিটির সদস্যরা নিজেদের মধ্যে আলোচনার পর সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান।

সংলাপ কমিটির আহ্বায়ক ও প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান বলেন, ‘রাকসু নির্বাচন নিয়ে সাধারণ শিক্ষার্থীদের মতামত জানা জরুরি। নির্বাচন যেন প্রশ্নবিদ্ধ না হয় সেজন্য আমরা চেষ্টার কোনো ত্রুটি করছি না। আমরা নিজেদের মধ্যে আলোচনা করে হলগুলোর আবাসিক ও অনাবাসিক শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বসার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রথমে জোহা হল এবং পরে ধারাবাহিকভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যান্য হলগুলোর সঙ্গেও সংলাপ হবে।’

উল্লেখ্য, রাকসু নির্বাচন আয়োজনের জন্য চলতি বছরের জানুয়ারিতে প্রক্টরকে আহ্বায়ক করে চার সদস্যের একটি সংলাপ কমিটি গঠন করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। কমিটি ইতোমধ্যেই ক্যাম্পাসের রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ও হল প্রাধ্যক্ষদের সঙ্গে সংলাপ শেষ করেছে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র