Barta24

রোববার, ২১ জুলাই ২০১৯, ৬ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

অতিরিক্ত ভাড়ার প্রতিবাদ করায় চবি শিক্ষার্থীকে মারধর

অতিরিক্ত ভাড়ার প্রতিবাদ করায় চবি শিক্ষার্থীকে মারধর
সাদাত হোসাইন। ছবি: সংগৃহীত
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
চট্টগ্রাম


  • Font increase
  • Font Decrease

অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের প্রতিবাদ করায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) এক শিক্ষার্থীকে মারধর করেছে সিএনজি অটোরিকশা চালক।

রোববার (১৬ জুন) রাত পৌনে ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের এক নাম্বার গেট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার প্রতিবাদ জানালে অপর এক শিক্ষার্থীকেও চড় দেন ওই চালক।

মারধরের শিকার সাদাত হোসাইন চবি বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। এ বিষয়ে সাদাত বার্তা২৪.কমকে বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের এক নাম্বার গেট থেকে মূল ক্যাম্পাসে যাওয়ার জন্য রাত সাড়ে ১০টা থেকে সিএনজি অটোরিকশার জন্য অপেক্ষা করছিলাম। কিন্তু কোনো সিএনজি অটোরিকশা যাচ্ছিল না। অনেকক্ষণ পরে একটি সিএনজি অটোরিকশা পাই। পথে ওই সিএনজি অটোরিকশার চালক ৬ টাকার স্থলে ১০ টাকা ভাড়া চান। কেন অতিরিক্ত ভাড়া চাইলেন জিজ্ঞেস করলে ওই চালক গাড়ি থামিয়ে নেমে যেতে বলেন। এর প্রতিবাদ করলে চালক অতর্কিতভাবে আমাকে লাথি মারেন। এক পর্যায়ে টান দিয়ে আমাকে সিএনজি অটোরিকশা থেকে বাইরে ফেলে দেন। মারধরের কারণে আমার শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম হয়।’

তিনি আরও জানান, ‘রাত ১১টার পরে সিএনজি চালকরা ৬ টাকার স্থলে ১০ টাকা দাবি করে। আমরাও মানবিক দিক বিবেচনা করে মেনে নেই। কিন্তু গতকাল তখনো ১১টা বাজেনি। বরং আমাকে মারধর করার প্রতিবাদ করলে অপর এক বড় ভাইকে চড় মারেন ওই চালক। ওই সময় অন্যান্য সিএনজি চালকরা আমাদের ঘিরে রাখে।’

মারধর করা ওই সিএনজি অটোরিকশায় বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে অনুমোদিত স্টিকার ছিল না বলেও জানান সাদাত।

তবে শিক্ষার্থী মারধরের ঘটনা অবহিত নন বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক আলী আজগর চৌধুরী। তিনি জানান, এ রকম কোনো অভিযোগের কথা জানেন না তিনি। অভিযোগ পেলে বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন।

আপনার মতামত লিখুন :

অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে ঢাবিতে টানা কর্মসূচি

অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে ঢাবিতে টানা কর্মসূচি
প্রশাসনিক ভবন, কলাভবন, ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ, সমাজ বিজ্ঞান অনুষদে তালা দেয় শিক্ষার্থীরা, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

সরকারি সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন ভবনে তালা দিয়েছেন আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা। এতে ক্লাস, পরীক্ষা ও অফিসিয়াল সব ধরণের কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। কোনো ধরণের আশ্বাস না পেলে এ কর্মসূচি লাগাতার পালন করার ঘোষণা দেয় শিক্ষার্থীরা।

রোববার (২১ জুলাই) বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন, কলাভবন, ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ, সমাজ বিজ্ঞান অনুষদে তালা দেয় শিক্ষার্থীরা।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/21/1563697087660.jpg
বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো উপাচার্য (প্রশাসন) তার গাড়ি নিয়ে রেজিস্ট্রার ভবনে ঢুকতে চাইলে শিক্ষার্থীরা বাঁধা দেন

 

অবিলম্বে সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের এক দফা দাবিতে আন্দোলন করছেন তারা। অধিভুক্তি বাতিলের দাবি না মেনে নেয়া পর্যন্ত তালা খুলবেনা বলে জানান আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা।

এদিকে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের ফলে সকালে ক্লাস করতে এসে ফিরে গেছেন অনেক শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা। এর আগে ৮টায় কর্মচারীরা তালা খুলতে আসলে তাদেরকে তালা খুলতে বাঁধা দেয় আন্দোলনকারীরা।

সকাল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ভবনের সামনে অবস্থান করে বিভিন্ন স্লোগান দেন শিক্ষার্থীরা। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো উপাচার্য (প্রশাসন) তার গাড়ি নিয়ে রেজিস্ট্রার ভবনে ঢুকতে চাইলে শিক্ষার্থীরা বাঁধা দেন। বেলা ১১টা থেকে রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে শিক্ষার্থীরা অবস্থান করছে।   সেখান থেকে পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা দেওয়ার কথা রয়েছে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/21/1563697299763.jpg

 

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা বলেন, 'আমরা রোদে পুড়ে শাহবাগে আন্দোলন করি আর প্রশাসন আমাদের সাথে যোগাযোগ না করে এসির বাতাস খায়। ধিক্কার জানাই প্রশাসনকে। তাই আমরা রেজিস্টার বিল্ডিং, কলাভবন, এফবিএস, সমাজ বিজ্ঞান অনুষদে তালা ঝুলিয়েছি।' 

সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিল না হওয়া পর্যন্ত কোনো তালা খোলা হবে না বলেও জানান আন্দোলনকারী  শিক্ষার্থীরা।

শাবিপ্রবি ক্যাম্পাস পরিষ্কার রাখতে ৯০টি গার্বেজ বিন উদ্বোধন

শাবিপ্রবি ক্যাম্পাস পরিষ্কার রাখতে ৯০টি গার্বেজ বিন উদ্বোধন
'ক্লিন সাস্ট মুভমেন্ট' এর ব্যানারে ৯০টি গার্বেজ বিন উদ্বোধন করা হয়েছে, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) ক্যাম্পাস পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য প্রশাসনের উদ্যোগে ৯০টি গার্বেজ বিন উদ্বোধন করা হয়েছে।

রোববার (২১ জুলাই) সকাল সাড়ে ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার ভবনের সামনে 'ক্লিন সাস্ট মুভমেন্ট' এর ব্যানারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ গার্বেজ বিনগুলো উদ্বোধন করেন। 

এসময় উপস্থিত ছিলেন আইএমএলের পরিচালক অধ্যাপক ড. আলমগীর তৈমুর, আইকিউএসির পরিচালক অধ্যাপক ড. আশরাফুল আলম, অতিরিক্ত পরিচালক অধ্যাপক আনোয়ারুল হোসেন, অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার রাজন দাস, সহকারী অধ্যাপক মিজানুর রহমান, কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাটের সহকারী কমিশনার আহমেদুর রেজা চৌধুরী প্রমুখ।

উদ্বোধনের সময় উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, 'শাবিপ্রবিকে বাংলাদেশের সবচেয়ে সুন্দর, পরিচ্ছন্ন এবং সেরা বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে। আপাতত ৯০টি বিন দেওয়া হয়েছে সামনে চাহিদা অনুযায়ী ক্যাম্পাসে আরও বিন দেওয়া হবে। আর ময়লা বিন ফেলার জন্য সবাইকে উদ্বুদ্ধ করতে হবে। সবাইকে নিজ নিজ জায়গা থেকে এগিয়ে আসলে বিশ্ববিদ্যালয়কে সম্পূর্ণরূপে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা সম্ভব।'

অধ্যাপক ড. আলমগীর তৈমুর বলেন, 'গত বছর কয়েকজন শিক্ষার্থী নিয়ে ক্ষুদ্র পরিসরে ক্যাম্পাস পরিষ্কারের কাজ শুরু করি। আমাদের এই কাজটি বিশ্ববিদ্যালয়ের নজরে আসায় এখন ৯০টি বিন দেওয়া হয়েছে।'

প্রসঙ্গত ২০১৮ সালের জানুয়ারি মাসে অধ্যাপক ড. আলমগীর তৈমুরের নেতৃত্বে একদল শিক্ষার্থী সপ্তাহে ২/৩ দিন বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন ভবন এবং রাস্তা পরিষ্কার করা শুরু করে। এই কর্মসূচীর নাম দেওয়া হয় 'ক্লিন সাস্ট মুভমেন্ট'। পরবর্তীতে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন স্থানে ২৭টি গার্বেজ বিন স্থাপন করা হয়। এখন দুই ধাপে সর্বমোট ১১৭টি গার্বেজ বিন স্থাপন করা হয়েছে। 

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র