Barta24

মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০১৯, ৮ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

মুজিবনগর দিবস জাতীয়ভাবে পালনের দাবিতে রাবিতে মানববন্ধন

মুজিবনগর দিবস জাতীয়ভাবে পালনের দাবিতে রাবিতে মানববন্ধন
ছবি: বার্তা২৪
রাবি করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

মুজিবনগর দিবসকে জাতীয়ভাবে পালনের দাবি জানিয়েছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) শিক্ষার্থীরা। এই দাবিতে বুধবার (১৭ এপ্রিল) বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে মানববন্ধন ও র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রাবিতে ‘মেহেরপুর ছাত্র উন্নয়ন সংঘ’ (মেসডা) শীর্ষক সংগঠন এসব কর্মসূচির আয়োজন করে। মেসডার সভাপতি মো. আশরাফুল আলমের সভাপতিত্বে এবং সদস্য মো. হাসিবের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য দেন গিয়াস উদ্দীন, আবু জাফর, তমাল হোসেন, নাজমুল হোসেন প্রমুখ।

এ সময় মেহেরপুরে উন্নতমানের চিকিৎসা সুবিধা, বিশ্ববিদ্যালয়, কলেজ প্রতিষ্ঠার দাবিও জানান তারা। বক্তারা বলেন, স্বাধীন বাংলাদেশ সৃষ্টির ক্ষেত্রে মুজিবনগর সরকারের অবদান অনস্বীকার্য। ওই সরকারের সফল নেতৃত্বেই এই দেশ স্বাধীনতা অর্জন করেছে। অথচ এই দিবসটিই জাতীয়ভাবে পালন করা হয় না। এটি জাতি হিসেবে আমাদের জন্য খুবই দুঃখজনক।

তারা বলেন, সমগ্র বাংলাদেশ মেহেরপুর তথা মুজিবনগরের কাছে ঋণী। কারণ মুক্তিযুদ্ধে সফল নেতৃত্বের প্ল্যাটফর্ম তৈরি করে দিয়েছিল এই মুজিবনগর। তাই দেশবাসীর উচিৎ এই দিসবটিতে সফলভাবে পালন করা, জাতীয়ভাবে পালন করা।

এর আগে সকাল ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামনে থেকে র‌্যালি বের করা হয়।

আপনার মতামত লিখুন :

প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক পাচ্ছেন শাবিপ্রবির ৭ শিক্ষার্থী

প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক পাচ্ছেন শাবিপ্রবির ৭ শিক্ষার্থী
শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) সাত শিক্ষার্থী প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক-২০১৮ এর জন্য মনোনীত হয়েছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মুহাম্মদ ইশফাকুল হোসেন মঙ্গলবার (২৩ জুলাই) এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুষদ ভিত্তিক সর্বোচ্চ ফলাফল (সিজিপিএ) এর ভিত্তিতে সাত অনুষদের সাত শিক্ষার্থীকে একাডেমিক কাউন্সিল কর্তৃক এ বছর মনোনীত করা হয়েছে।

স্বর্ণপদকের জন্য মনোনীত শিক্ষার্থীরা হলেন—ভৌত বিজ্ঞান অনুষদের অধীন পরিসংখ্যান বিভাগের শিক্ষার্থী মোছা. ফারজানা আক্তার, ফলিত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি অনুষদের অধীন সিভিল অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থী সাবরিন আরা, জীববিজ্ঞান অনুষদের অধীন জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড বায়োটেকনোলজি বিভাগের শিক্ষার্থী নাফিসা তাসনীম নুসা, কৃষি ও খনিজ বিজ্ঞান অনুষদের অধীন ফরেস্ট্রি অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স বিভাগের শিক্ষার্থী মো. শামিম রেজা সাইমুন, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের অধীনে অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষার্থী ফাহিমা সুমাইয়া লস্কর, ব্যবস্থাপনা ও ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের অধীন ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের শিক্ষার্থী নাবিলা আহমেদ, চিকিৎসাবিজ্ঞান অনুষদের অধীন মেডিসিন ও সার্জারি বিভাগের শিক্ষার্থী প্রমা দাস তালুকদার বিনতি মনোনীত হয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক ২০১৮ এর জন্য মনোনীত শিক্ষার্থীরা সবাই ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী। আগামী ২৫ জুলাই শাবিপ্রবির সাতজনসহ দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৬৩ জন শিক্ষার্থীকে সম্মাননা পদক দেওয়া হবে।

মার খাইতে অভ্যস্ত, প্রয়োজনে জীবন দেব: ভিপি নুর

মার খাইতে অভ্যস্ত, প্রয়োজনে জীবন দেব: ভিপি নুর
ডাকসুর জিএস গোলাম রাব্বানীর সঙ্গে কথা বলছেন ভিপি নুর/ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

'মার খাইতে অভ্যস্ত, প্রয়োজনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে জীবন দেব'-ছাত্রলীগ কর্মীদের হেনস্থা এবং ধমকের প্রতিবাদে এ মন্তব্য করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের ভিপি নুরুল হক নুর।

মঙ্গলবার (২৩ জুলাই) ডাকসুর সমাজ সেবা সম্পাদক আকতার হোসেনের উপর ছাত্রলীগের হামলার অভিযোগ ওঠে। এ হামলার প্রতিবাদে ক্যাম্পাসে মিছিল করে ভিপি নুর। মিছিলের পর অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে কথা বলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন নুরসহ অন্যান্য নেতাকর্মীরা। এমন সময় ছাত্রলীগ সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন, সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী এবং বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেনসহ বেশ কয়েকজন নুরের সঙ্গে সেখানে এসে কথা বলতে যান। ডাকসুর জিএস-এর সঙ্গে কথা চলাকালীন সময়ে ছাত্রলীগের বিক্ষুব্ধ কিছু নেতা কর্মী 'নুর তুই পল্টিবাজ', বেয়াদব- এমন স্লোগান দিয়ে হেনস্থা করেন। 

এক পর্যায়ে মেজাজ হারিয়ে ভিপি নুর বলেন, 'এখানে ডাকসুর  ভিপি, জিএস আছেন না, তারা কথা বলতেছে না? তাহলে তোমাদের সমস্যা কি? মারবে নাকি! মার খাইতে অভ্যস্ত আছি। প্রয়োজনে এই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে জীবন দেব।'

তার এ বক্তব্য শুনে ছাত্রলীগ কর্মীরা হাসতে থাকেন। পরে রাব্বানী তাদের থামাতে সচেষ্ট হোন এবং এক পর্যায়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা চলে যাওয়ার নুর সাংবাদিকদের বলেন, আপনারা দেখেছেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ডাকসুর ভিপি-জিএস‘র সামনে কেমন কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করেছে। এ বিষয়ে অথর্ব প্রশাসনকে বারবার বলেও কোনো প্রতিকার পাইনি। প্রশাসন তাদের লেলিয়ে দিয়ে ক্যাম্পাসে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি করছে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র