Barta24

মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০১৯, ১১ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

রাবিতে নির্মিত হচ্ছে জাতীয় ৪ নেতার প্রতিকৃতি

রাবিতে নির্মিত হচ্ছে জাতীয় ৪ নেতার প্রতিকৃতি
ছবি: সংগৃহীত
রাবি করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) নির্মিত হতে যাচ্ছে জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতি। এরই মধ্যে প্রতিকৃতির নকশা নির্ধারণ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১০ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা।

তিনি জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ সুখরঞ্জন সমাদ্দার ছাত্র-শিক্ষক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের সামনে জাতীয় চার নেতা সৈয়দ নজরুল ইসলাম, তাজউদ্দীন আহমেদ, এ এইচ এম কামারুজ্জামান ও ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলীর প্রতিকৃতি নির্মাণ করা হবে। এর নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছে এক কোটি ২৭ লাখ টাকা। প্রতিকৃতিটির শিল্পী বিশ্ববিদ্যালয়েরই সাবেক শিক্ষার্থী বিপ্লব দত্ত।

কাজ শুরুর বিষয়ে অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা বলেন, ‘এ প্রতিকৃতির সঙ্গেই একটি বঙ্গবন্ধু চত্বর করা হবে। একইসঙ্গে দুটি কাজের কারণে একটু সময় লাগছে। তবে শিগগিরই কাজ শুরু হবে।’

আপনার মতামত লিখুন :

রাবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ

রাবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি), ছবি: সংগৃহীত

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইআর) শিক্ষক অধ্যাপক বিষ্ণু কুমার অধিকারীর বিরুদ্ধে যৌন হয়রানি ও মানসিকভাবে উত্যক্ত করার অভিযোগ করেছে একই ইনস্টিটিউটের এক ছাত্রী। মঙ্গলবার (২৫ জুন) দুপুরে ইনস্টিটিউটের পরিচালক বরাবর এ অভিযোগপত্র জমা দেন ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী।

লিখিত অভিযোগপত্রে ওই ছাত্রী উল্লেখ করেন, ‘আমি আমার বিভাগের শিক্ষক বিষ্ণু কুমার অধিকারীর দ্বারা বিভিন্নভাবে যৌন হয়রানি ও মানসিকভাবে উত্যক্তের শিকার হই। যার কারণে আমি মানসিকভাবে অনেক বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছি। আমি পড়াশুনা এবং অন্য কোনো কাজেই মনোযোগ দিতে পারছি না, মেন্টাল ট্রমায় ভুগছি।’

তিনি আরও উল্লেখ করেন, ‘কারণে-অকারণে বিষ্ণু কুমার অধিকারী তার অফিসে আমাকে ডেকে বসিয়ে রাখেন। ফ্রি মাইন্ডের কথা বলে নানা রকম ইঙ্গিতপূর্ণ ও অশালীন কথাবার্তা বলেন। অন্য নারী শিক্ষকদের ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে অশালীন মন্তব্য করেন। এছাড়া তিনি আমাকে প্রায়ই রাত ১১টার পর ফোন করে কথা বলেন।’

এমনকি তিনি আমার কাছে তার এক নারী সহকর্মীর নামে শারীরিক সম্পর্কের বিষয়ে অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করেন বলে অভিযোগপত্রে উল্লেখ করা হয়। এছাড়া ইনস্টিটিউটের একাধিক ছাত্রীর সামনে মেয়েদের 'শরীর সম্বন্ধীয়' ব্যাপারে ইঙ্গিত করে নানা অশালীন কথাবার্তা বলা ও কোর্সের নম্বরের কথা বারবার উল্লেখ করে 'শিক্ষকের ক্ষমতা' দেখাতেন বলেও অভিযোগ পত্রে উল্লেখ করেন ভুক্তভোগী ওই শিক্ষার্থী।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে অভিযুক্ত সহকারী অধ্যাপক বিষ্ণু কুমার অধিকারীর ফোনে একাধিকবার কল করে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক মো. আবুল হাসান চৌধুরী বলেন, 'আমরা অভিযোগপত্র পেয়েছি। ইতিমধ্যে ঘটনার সত্যতা যাচাই বাছাইয়ের কাজ শুরু করেছি।'

শাবিপ্রবিতে ১৩৯ কোটি ৭৩ লাখ টাকার বাজেট

শাবিপ্রবিতে ১৩৯ কোটি ৭৩ লাখ টাকার বাজেট
ছবি: বার্তা২৪

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (শাবিপ্রবি) ২০১৯-২০ অর্থবছরের জন্য ১৩৯ কোটি ৭৩ লাখ টাকার বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে। মঙ্গলবার (২৫ জুন) প্রশাসনিক ভবন-২ এর সম্মেলন কক্ষে এই বাজেট ঘোষণা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ।

গতবারের তুলনায় এ বছরের বাজেট ৭.১২ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে বাজেটের পরিমাণ ছিল ১৩০ কোটি ৪৫ লাখ টাকা। পরবর্তীতে সংশোধিত বরাদ্দ দাঁড়ায় ১৩৩ কোটি ৯৬ লাখ। এবছর গবেষণা খাতে ৩৮ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। এবারের বাজেটে গবেষণা খাতে অনুদান দেওয়া হয়েছে ৪ কোটি টাকা, যা গতবার ২ কোটি ৯০ লাখ টাকা ছিল।

লিখিত বক্তব্যে উপাচার্য জানান, ২০১৯-২০ অর্থবছরের মোট ১৩৯ কোটি ৭৩ লাখ টাকার বাজেটের মধ্যে বেতন, ভাতা ও পেনশন খাতে ৮৬ কোটি ৪৮ লাখ, যা মূল বাজেটের ৬১.৮৯ শতাংশ, এটি গতবার ছিল ৯৩ কোটি ৫ লাখ। এছাড়া সরবরাহ, সেবা ও মেরামত খাতে ৩০ কোটি ৭৯ লাখ, বিশেষ মূলধন অনুদান ৩ কোটি ৪২ লাখ এবং অন্যান্য অনুদান বাবদ ১৯ কোটি ৪ লাখ টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

এর মধ্যে অভ্যন্তরীণ প্রশিক্ষণ বাবদ ১০ লাখ, সেমিনার ও কনফারেন্সে ৫০ লাখ টাকা, পরীক্ষা সংক্রান্ত ব্যয় ১২ কোটি ১০ লাখ, মেরামত ও সংরক্ষণ বাবদ ৩ কোটি ২১ লাখ টাকা ও কম্পিউটার সফটওয়্যার ৬০ লাখ টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

এসময় উপাচার্য আরও বলেন, আমাদের লাইব্রেরিকে আধুনিকায়ন করা হবে আর তার জন্য ২০ লাখ টাকা বিশেষ বরাদ্দ হিসেবে রাখা হয়েছে। এই অর্থবছরে ২টি বাস, ১টি মাইক্রোবাস ও ১টি অ্যাম্বুলেন্স ক্রয় করা হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণা খাতের পাশাপাশি অন্যান্য খাতেও গুরুত্ব দিচ্ছে। বিভিন্ন জার্নাল, সাস্ট স্টাডিজ, শিক্ষার্থীদের বৃত্তি, বিভিন্ন কনফারেন্সে অংশগ্রহণের জন্য ভ্রমণ ভাতা রাখা হয়েছে। প্রত্যেকটি অফিসগুলোকে ই-অফিসের আওতায় নিয়ে আসার পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানান তিনি। বাজেট ঘোষণায় আরো উপস্থিত ছিলেন কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আনোয়ারুল ইসলাম, হিসাব পরিচালক আ ন ম জয়নাল আবেদিন প্রমুখ।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র