Barta24

বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০১৯, ৩ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

গার্মেন্টস শ্রমিক নিহতের প্রতিবাদে ঢাবিতে বিক্ষোভ

গার্মেন্টস শ্রমিক নিহতের প্রতিবাদে ঢাবিতে বিক্ষোভ
মিছিল শেষে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে প্রগতিশীল ছাত্র জোট, ছবি: বার্তা২৪
ঢাবি করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

গার্মেন্টস শ্রমিকদের ন্যায্য আন্দোলনে পুলিশের গুলিতে এক শ্রমিক নিহতের ঘটনায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) প্রগতিশীল ছাত্র জোট।

বুধবার (০৯ জানুয়ারি) দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) ক্যাম্পাসে এই বিক্ষোভ করেন তারা। বিক্ষোভ পরবর্তী সংক্ষিপ্ত সমাবেশে শ্রমিক হত্যার ঘটনায় নিন্দা ও ধিক্কার জানিয়ে দোষীদের শাস্তির দাবি জানান বিক্ষোভকারীরা। এছাড়া শ্রমিকদের ন্যায্য দাবি মেনে নেওয়ার আহ্বানও জানান তারা।

সমাবেশে প্রগতিশীল ছাত্রজোটের সমন্বয়ক মাসুদ রানা বলেন, 'যে সুমন জীবন বাঁচাতে, মায়ের মুখে খাবার তুলে দিতে ঢাকায় এসেছিল, তাকে ফিরে যেতে হল লাশ হয়ে। ভোট ডাকাতির মাধ্যমে ক্ষমতায় আসা আওয়ামী লীগের দুঃশাসনের রূপ এটা।'

এ সময় তিনি গার্মেন্টস শ্রমিকদের ন্যায্য দাবি মেনে নেওয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

সমাবেশে ছাত্র ফেডারেশনের সভাপতি গোলাম মোস্তফা বলেন, 'গার্মেন্টস সেক্টরে অনেক উন্নতি হয়েছে বলে সরকার দাবি করে। কিন্তু গার্মেন্টস সেক্টরের শ্রমিকদের ওপরেই হামলা চালানো হয়েছে। এর মাধ্যমে সরকার প্রমাণ করেছে যে তারা শ্রমিক বান্ধব নয়।‘

বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক জিএম জিলানী শুভ বলেন, 'এই দানব সরকারের রূপ আমরা সুবর্ণচরে চার সন্তানের মাকে ধর্ষণে, শ্রমিকদের ন্যায্য আন্দোলনে গুলিবর্ষণে দেখতে পেয়েছি। জনগণের টাকা দিয়ে নিরাপত্তার জন্য যে অস্ত্র কেনা হয়। আবার সেই অস্ত্র আমাদের বুকের দিকে তাক করা হয়েছে। বর্তমানে  আমরা একটি স্বৈরতান্ত্রিক দানবের বিরুদ্ধে সংগ্রামরত অবস্থায় আছি।'

এ সময়, শ্রমিকদের ন্যায্য দাবি না মানা হলে ছাত্র-শ্রমিক ঐক্যবদ্ধ হয়ে আন্দোলনের হুশিয়ারিও দেন তিনি।

সমাবেশে এছাড়া উপস্থিত ছিলেন- প্রগতিশীল ছাত্রজোটের সভাপতি ইমরান হাবিব রুমনছাত্রজোটের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সমন্বয়ক ও সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি সালমান সিদ্দিক, ছাত্র ফেডারেশনের বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি উম্মে হাবিবা বেনজীর প্রমুখ।

উল্লেখ্য, এক সপ্তাহ ধরে ন্যূনতম মজুরির দাবিতে রাজধানীর উত্তরা, সাভার, আশুলিয়া ও গাজীপুরের বিভিন্ন এলাকায় শ্রমিকরা বিক্ষোভ করছে। গতকাল মঙ্গলবার (০৮ জানুয়ারি) সাভারে শ্রমিকদের জন্য সরকার ঘোষিত মজুরি বাস্তবায়ন ও বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবিতে বিক্ষোভের সময় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে সুমন মিয়া (২২) নামের এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়। বিক্ষোভরত শ্রমিকদের দাবি, পুলিশের গুলিতে সুমন মিয়া মারা গেছেন।

আপনার মতামত লিখুন :

অধিভুক্তি বাতিলের আন্দোলনে ডাকসু সদস্য তিলোত্তমার বাধা!

অধিভুক্তি বাতিলের আন্দোলনে ডাকসু সদস্য তিলোত্তমার বাধা!
আন্দোলনকারীদের অবরোধ তুলে নেয়ার জন্য শাসান তিলোত্তমা, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষার্থীদের করা অবরোধ অন্দোলনে বাধা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে ডাকসু ও সিনেট সদস্য তিলোত্তমা শিকদারের বিরুদ্ধে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রে (টিএসসি) অবরোধ চলাকালীন সময়ে শিক্ষার্থীদের অবরোধ তুলে নেওয়ার আদেশ দেন তিনি।

সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) সকাল ১১টা থেকে টিএসসির চতুর্দিকের রাস্তাসহ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ও দোয়েল চত্বর অবরোধ করে রেখেছিল ঢাবি শিক্ষার্থীরা। পরে দুপুর ১টার দিকে রাজধানীর শাহবাগ মোড়ে অবস্থান নেয় আন্দোলনকারীরা।

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা জানান, টিএসসিতে অবরোধ চলাকালীন দুপুর ১২টার দিকে সুফিয়া কামাল হল থেকে রিকশাযোগে টিএসসিতে আসেন তিলোত্তমা শিকদার। টিএসসিতে এসে তিনি নিজ হাতে ব্যারিকেড সরিয়ে ফেলেন এবং আন্দোলনকারীদের অবরোধ তুলে নেয়ার জন্য শাসিয়ে যান।

প্রত্যক্ষদর্শী কিছু শিক্ষার্থী জানান, তিলোত্তমা শিকদার ব্যারিকেড সরিয়ে দিলে আন্দোলনকারীদের সাথে তার বাদানুবাদ হয়। তখন তিলোত্তমা বলেন, 'সুফিয়া কামাল হল থেকে টিএসএসি পর্যন্ত আসতে তার ৪০ মিনিট সময় লেগেছে।'

জানতে চাইলে তিনি বলেন, 'বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচয় পত্র না দেখালে অবরোধকারী শিক্ষার্থীরা কোনো রিকশা ছেড়ে দিচ্ছেন না। তাই অবরোধ তুলে নিতে বলেছি।'

অধিভুক্ত বাতিল, অটোমেশনের আওতায় যাবতীয় কার্যক্রম, রিকশা ভাড়া নির্ধারণসহ চার দফা দাবি বাস্তবায়নে গতকাল বুধবার (১৭ জুলাই) সকাল সাড়ে ১১টা থেকে ২টা পর্যন্ত শাহবাগ মোড় অবরোধ করে রেখেছিল আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা। পরে দুপুর ২টার দিকে ডাকসু সদস্য তানভির হাসান সৈকত আন্দোলনকারীদের সঙ্গে একাত্মতা পোষণ করেন। শাহবাগে অবরোধ শেষে প্রোগ্রামের সমাপ্তি টানেন অপরাজেয় বাংলায় এসে।

দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন, ভিসি কার্যালয় ঘেরাও, শাহবাগমোড় অবরোধ, বিক্ষোভ মিছিলসহ ইত্যাদি লাগাতার কর্মসূচির ঘোষণা দিয়ে আজকের মতো অবরোধ স্থগিত করেছেন আন্দোলনকারীরা।

দাবি আদায় না হলে লাগাতার কর্মসূচির ঘোষণা ঢাবি শিক্ষার্থীদের

দাবি আদায় না হলে লাগাতার কর্মসূচির ঘোষণা ঢাবি শিক্ষার্থীদের
সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন আন্দোলনরত ঢাবরি শিক্ষার্থীরা, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) থেকে সরকারি সাত কলেজের অধিভুক্ত বাতিল করা না হলে শাহবাগমোড় অবরোধসহ লাগাতার কর্মসূচির ঘোষণা দিয়েছেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) আন্দোলনের মুখপাত্র ঢাবির ব্যবস্থাপনা বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী শাকিল আহমেদ বলেন, ‘আমরা কয়েকদিন যাবত আন্দোলন করে আসলেও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বিন্দুমাত্র পদক্ষেপ নেয়নি। আমরা শাহবাগমোড় অবরোধ করার পরও তারা আমাদের কাছে আসেনি।’

আরও পড়ুন: শাহবাগে ঢাবি শিক্ষার্থীদের অবরোধ, তীব্র যানজটের সৃষ্টি

এ সময় লাগাতার কর্মসূচির হুঁশিয়ারি দিয়ে তিনি বলেন, ‘যদি আমাদের দাবি মানা না হয়, তাহলে আমরা লাগাতার কর্মসূচি পালন করব। লাগাতার কর্মসূচির মধ্যে থাকবে শাহবাগমোড় অবরোধ, ভিসি কার্যালয় ঘেরাও, ক্লাস পরীক্ষা বর্জন এবং বিক্ষোভ মিছিল।’

এর আগে পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা রাজুভাস্কর্যে জড়ো হয়। এরপর তারা সেখান থেকে মিছিল নিয়ে শাহবাগমোড়ে দুপুর পৌনে ১টা পর্যন্ত অবস্থান করে।

আন্দোলনকারীদের দাবিগুলো হলো- সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিল, দুই মাসের মধ্যে সব ধরনের অ্যাকাডেমিক ফলাফল ঘোষণা, সকল কার্যক্রম অটোমেশনের আওতায় এবং ক্যাম্পাসে রিকশা ভাড়া নির্ধারণ।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র