Alexa

বিক্রি হয়ে গেল রাজ কাপুরের আরকে স্টুডিও

বিক্রি হয়ে গেল রাজ কাপুরের আরকে স্টুডিও

আরকে ফিলমস অ্যান্ড স্টুডিও / ছবি: সংগৃহীত

বলিউড বিখ্যাত তারকা রাজ কাপুর তাঁর ছবি প্রযোজনার জন্য ১৯৪৮ সালে আরকে ফিল্মস নামে একটি সংস্থা তৈরি করেন৷ এর দু’বছরের মধ্যেই ১৯৫০ সালে তিনি গড়ে তোলেন স্টুডিও।

এই স্টুডিও থেকে একের পর নির্মিত হয়েছে জনপ্রিয় সব ছবি। তারমধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো, আওয়ারা, শ্রী চারশো বিশ, জিস দেশমে গঙ্গা বহতি হ্যায়, মেরা নাম জোকার, ববি, সত্যম শিবম সুন্দরম, প্রেমরোগ, রাম তেরি গঙ্গা মইলি’র মতো ছবিগুলো৷

এছাড়া আর কে ফিল্মস থেকে অন্যান্য ছবি মিলিয়ে প্রায় শ’খানেক ছবি এই স্টুডিওতে নির্মিত হয়েছিল৷ ১৯৯১ সালে ‘হেনা’ এই স্টুডিওর শেষ ছবি। অর্থাৎ বহুদিন আগে থেকেই এখানে ছবি তৈরি হচ্ছিল না৷ তার উপর ২০১৭ সালে এক বিধ্বংসী অগ্নিকাণ্ডে পুড়ে হয়ে যায় স্টুডিওটি৷

তা সত্বেও ১৯৮৮ সালে রাজ কাপুরের মৃত্যুর পরও প্রতিষ্ঠিত আর কে স্টুডিও ছিল কাপুর বংশের ঐতিহ্যশালী সম্পদ৷ আগুন লাগার পর গত বছরের আগস্ট মাসে রাজ কাপুরের ছেলেরা জানান, এই স্টুডিও পুনর্নিমাণ করা সম্ভব নয় এবং তা বিক্রি করে দেওয়া হবে৷

ফলে চিরতরে মুছে গেল কাপুর বংশের ঐতিহ্য৷ সম্পত্তিটি হাত বদল হয়ে গোদরেজ কোম্পানি কেনায় ওই জায়গায় এখন গড়ে উঠবে আধুনিক শপিং আবাসন৷

প্রায় আড়াই একর জায়গা উপর ছিল স্টুডিও৷ এটি ভেঙে গোদরেজ প্রোপার্টিজ সাড়ে তিন লাখ বর্গফুটের আবাসন এবং ৩৩ হাজার বর্গফুটের অত্যাধুনিক শপিং মল গড়ে তুলবে।

কত টাকায় এই সম্পত্তি হাতবদল হয়েছে তা কোনো পক্ষই জানায়নি৷ তবে বিশেষজ্ঞদের ধারণা, এর বাজার মূল্য বর্তমানে প্রায় ২০০ কোটি রুপি।

ফলে বলিউড ইতিহাসের একটা বিশেষ অধ্যায়ের ইতি ঘটলো৷ কারণ, সিনেমা তৈরির পাশাপাশি এখানে প্রতি বছর গণেশ পূজো এবং হোলি উৎসব পালন শুরু করেন রাজ কাপুর।

জানা যায়, মুম্বাইয়ে প্রথম তারকাদের একত্রিত করে হোলি খেলা রাজকাপুরের হাত ধরে এই স্টুডিওতে হতো।

এবার এই স্টুডিও ভেঙে আবাসন গড়ার কথা শুনে স্বাভাবিকভাবেই অনেক সিনেমাপ্রেমী হতাশ হয়েছেন৷

 

 

 

আপনার মতামত লিখুন :