Alexa

লোকসভা নির্বাচন

ফের মমতাকে আক্রমণ মোদির

ফের মমতাকে আক্রমণ মোদির

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি / ছবি: সংগৃহীত

ভারতের লোকসভা নির্বাচনের আগে প্রচারে ঝড় তুলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। রোববার (৭ এপ্রিল) পশ্চিমবঙ্গে আবার এলেন তিনি। চারদিন আগে শিলিগুড়ি এবং কলকাতায় জোড়াসভার পর এবার রাজ্যের কোচবিহারে সভা করলেন মোদি।

এদিন যে সভাস্থলে মোদি সভা করলেন সেই মাঠেই একদিন পর সোমবার (৮ এপ্রিল) সভা করবেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অবশ্য রোববার রাজ্যের ময়নাগুড়িতে সভা করবেন মুখ্যমন্ত্রী। সেখানেই হয়তো মোদির ভাষণের জবাব দেবেন তিনি।

তবে চারদিনের ব্যবধানে মোদি রাজ্যের কোচবিহারের রাসমেলা মাঠে জনসভা করে ফের আক্রমণ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। তিনি বলেন, ‘তৃণমূল কংগ্রেস সরকার, পিসি ভাইপোর সরকার। রাজ্যে পিসি (মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়) ভাইপোর (অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়) সরকার অনুপ্রবেশকারীদের সাহায্য করছে।’

তিনি অভিযোগ করে বলেন, ‘মানুষ থেকে শুরু করে পশুদের (গরু) যারা পাচার করে তাদের সাহায্য করছে তৃণমূল কংগ্রেস।’

গত বৃহস্পতিবার (৪ এপ্রিল) শিলিগুড়ির জনসভার মতোই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে 'স্পিড ব্রেকার' বলে কটাক্ষ করে মোদি বলেন, ‘দিদির রাতের ঘুম চলে যাচ্ছে। ক্ষমতা হারানোর ভয়ে মুখ্যমন্ত্রী বিজেপি আর নির্বাচন কমিশনের ওপর রেগে যাচ্ছেন।’

রোববার মোদির বক্তব্যের বড় অংশ জুড়ে ছিল মমতার সমালোচনা। বিরোধী জোটকে কটাক্ষ করে নরেন্দ্র মোদি বলেন, ‘যারা দেশে দুজন প্রধানমন্ত্রী চান দিদি (মমতা) তাদের সমর্থন করছেন।’

উল্লেখ্য, কাশ্মীরের এক জনসভায় সেখানকার সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ওমর ফারুক কাশ্মীরে ভিন্ন প্রধানমন্ত্রী দাবি করেছিলেন। তবে ভারত থেকে ভাগ করতে চায়নি কাশ্মীরকে। এই মুখ্যমন্ত্রী মমতার ফেডারেল ফ্রন্টের অন্যতম শরিক। তাকেই উদ্দেশ্য করে নরেন্দ্র মোদি এ কথা বলেন।

এছাড়া আগের সভাগুলো থেকে এদিন প্রধানমন্ত্রী ছিলেন অনেক বেশি আক্রমণমুখী। সভায় তিনি বলেন, ‘স্পিড ব্রেকার দিদি (মমতা) না আটকালে রাজ্যে উন্নয়ন হত। এই নির্বাচনে দিদিকে শিক্ষা দিতে হবে। দিদির আসল চেহারা বিশ্বের কাছে নিয়ে আসতে হবে।’

অন্য প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে নরেন্দ্র মোদি বলেন, ‘পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি ক্ষমতায় এলে মানব পাচারের বিরুদ্ধে কড়া আইন তৈরি হবে।’

আপনার মতামত লিখুন :