Barta24

সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১১ ভাদ্র ১৪২৬

English

কাশ্মীর ইস্যু: ভারতীয় সিনেমা নিষিদ্ধ করল পাকিস্তান

কাশ্মীর ইস্যু: ভারতীয় সিনেমা নিষিদ্ধ করল পাকিস্তান
ছবি: সংগৃহীত
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

কাশ্মীর ইস্যুতে এবার ভারতীয় সিনেমাও নিষিদ্ধ করল পাকিস্তান। একই ইস্যুতে এর আগে ভারতের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক কমিয়ে আনার পাশাপাশি বাণিজ্যিক সম্পর্কও ছিন্ন করে পাকিস্তান।

বৃহস্পতিবার (৮ আগস্ট) পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের তথ্য উপদেষ্টা ফেরদৌস আশিক আওয়ান এ ঘোষণা দিয়েছেন।

তিনি বলেন, 'পাকিস্তানের সবাই কাশ্মীরের পাশে দাঁড়িয়েছে। কাশ্মীরের জনগণের প্রতি পূর্ণ একাত্মতা পোষণ করে আমরা ভারতের সঙ্গে সব ধরনের সম্পর্ক ছিন্ন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সে হিসেবে পাকিস্তানের সিনেমা হলগুলোতে এখন থেকে কোনো ভারতীয় সিনেমা চালানো হবে না।'

এর আগে চলমান উত্তেজনার মধ্যে দিল্লিগামী সমঝোতা এক্সপ্রেস স্থায়ীভাবে বন্ধ করে দিয়েছে ইসলামাবাদ।

শেখ রশিদ আহমদ বলেন, 'আমি যতদিন রেলমন্ত্রী থাকব, ততদিন সমঝোতা এক্সপ্রেস চলতে পারবে না। এই ট্রেনটি সপ্তাহে দুদিন চলত। এখন সমঝোতা এক্সপ্রেস বন্ধ থাকবে। ঈদের পর ভারতের অন্যান্য ট্রেনও বন্ধ করে দেয়া হবে।'

এর আগে বুধবার পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে শীর্ষ নিরাপত্তা কমিটির বৈঠকে কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলে বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করা হয়।

বৈঠকে পাক-ভারত দ্বিপক্ষীয় চুক্তি নিয়ে পর্যালোচনা করার সিদ্ধান্ত হয়। এ ছাড়া বিষয়টি জাতিসংঘে উত্থাপন ও আগামী ১৪ আগস্ট কাশ্মীরিদের সঙ্গে সংহতি জানিয়ে আসন্ন স্বাধীনতা দিবস পালনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

উল্লেখ্য, সোমবার (৫ আগস্ট) কাশ্মীরকে বিশেষ মর্যাদা দেওয়া ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বিলোপ করার ঘোষণা দেয় ভারত সরকার। ফলে নতুন করে কাশ্মীরের ইতিহাস রচনা করে মোদি সরকার।

রাজ্যসভায় ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বিরোধীদের তুমুল বাধা ও বাগ-বিতণ্ডার মধ্যে এ ঘোষণা দেন। পরেরদিন সংসদে প্রস্তাবটি পাস হয়। এই দুই ধারা বাতিলের মাধ্যমে কাশ্মীরকে ভেঙে দুই টুকরো করা হয়। এই ঘোষণার ফলে কাশ্মীর থেকে আলাদা করে দেওয়া হয় লাদাখকে। বর্তমানে জম্মু ও লাদাখ দুটি আলাদা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল।

ভারতের এই সিদ্ধান্তের ঘোর বিরোধিতা করে পাকিস্তান সরকার। এই নিয়ে আন্তর্জাতিক মহলেও বেশ আলোচনা হচ্ছে। এছাড়া এই বিষয়ে মিত্র দেশগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ করে সমাধানের পথ খুঁজছে পাকিস্তান। ইতোমধ্যেই মালয়েশিয়া, তুরস্ক ও সৌদি সরকার প্রধানের সঙ্গে এই বিষয়ে কথা বলেছেন ইমরান খান।

আরও পড়ুন: ভারতের সঙ্গে ব্যবসায়িক চুক্তি ছিন্নের ঘোষণা পাকিস্তানের

আপনার মতামত লিখুন :

ঘূর্ণিঝড়কেও বোমা মারতে চান ট্রাম্প

ঘূর্ণিঝড়কেও বোমা মারতে চান ট্রাম্প
যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, ছবি: সংগৃহীত

যুক্তরাষ্ট্রে আঘাত হানার আগে ঘূর্ণিঝড় হারিকেনকে নিউক্লিয়ার বোমা মারার পরামর্শ দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

ঘূর্ণিঝড় হারিকেন নিয়ে এক ব্রিফিংয়ে তিনি জানান, যদি সম্ভব হতো, তাহলে আফ্রিকা সাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় হারিকেনকে চূর্ণ বিচূর্ণ করার জন্যও নিউক্লিয়ার বোমা মারা হতো।

সোমবার (২৬ আগস্ট) ফ্রান্সভিত্তিক বার্তা সংস্থা এএফপির এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য উল্লেখ করা হয়।

তবে এটাই প্রথমবার নয় এর আগে ২০১৭ সালেও বোমার মাধ্যমে হারিকেনের কার্য ক্ষমতা নিষ্পন্ন করার পরামর্শ দেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। যাতে এই ঘূর্ণিঝড় আমেরিকাতে কোনো ভূমিধস করতে না পারে।

হোয়াইট হাউজ এই বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেনি। তবে এক সিনিয়র কর্মকর্তা বিষয়টি ‘মন্দ নয়’ বলে উল্লেখ করেন।

কিন্তু ট্রাম্পের এমন ধারণা নতুন কিছু নয়। ১৯৫০ সালে মার্কিন এক বিজ্ঞানী ঘূর্ণিঝড় থেকে রক্ষা পেতে এই ধারণা দেন। তৎকালীন সময়ে দেশটির প্রেসিডেন্ট ছিলেন- ডুইট আইজেনহওয়ার।

নিউজিল্যান্ডে আত্মহত্যার নতুন রেকর্ড

নিউজিল্যান্ডে আত্মহত্যার নতুন রেকর্ড
ছবি প্রতীকী

নিউজিল্যান্ডে দিনে দিনে বাড়ছে আত্মহত্যা। গত এক বছরে দেশটিতে আত্মহত্যার সংখ্যা অতীতের সকল রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে।

গত বছরের জুন থেকে এ বছরের ৩০ জুন পর্যন্ত নিউজিল্যান্ডে ৬৮৫ জন আত্মহত্যা করেছেন।

সোমবার (২৬ আগস্ট) দেশটির প্রধান বিচারপতি দেবরাহ মার্শাল এ সম্পর্কিত এক পরিসংখ্যান প্রকাশ করেন।

পরিসংখ্যানে দেখা যায়, গত বছরের তুলনায় এবছর মৃতের সংখ্যা ১৭ জন বেড়েছে। যা গত বছরের তুলনায় ২.৫ শতাংশ বেশি।

কিশোর (১৫-১৯ বছর) ও বয়স্কদের ৫৩ থেকে ৭৩ বছর বয়সী মানুষদের মাঝেও নিজেদের জীবন কেড়ে নেওয়ার প্রবণতা বেড়েছে। তবে ২০-২৪ বছর বয়সী তরুণ-তরুণীদের মাঝে আত্মহত্যার হার বেশি বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রধান বিচারপতি।

এদিকে আত্মহত্যার প্রবণতা বেড়েছে দেশটির মাওরি ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপপুঞ্জের আদিবাসীদের মাঝে।

আগেরবারের তুলনায় এ বছর মাউরি সম্প্রদায়ের ২৬ জন বেশি প্রাণ দিয়েছেন। গতবার যে সংখ্যা ছিল ১৪২ এবার তা এসে দাঁড়িয়েছে ১৬৯-এ। প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপপুঞ্জের আদিবাসীদের মাঝে স্ব-প্রণোদিত হয়ে মৃতের সংখ্যা ২৩ থেকে বেড়ে ৩৪-এ দাঁড়িয়েছে।

দেবরাহ মার্শাল বলেন, মানুষ নানা সমস্যার কারণে, 'প্রাথমিক জীবনের তিক্ত অভিজ্ঞতা (বাড়ি এবং স্কুলে), চাকরি জনিত সমস্যা, মানসিক অবস্থা, অর্থনৈতিক ও শারীরিক অবস্থার কারণে এসব সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকেন।' এছাড়া তিনি নিহতদের পরিবার ও স্বজনদের প্রতি শোক জানান।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র