Barta24

রোববার, ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬

English

জঙ্গলে বিদ্রোহী, বাঘ গুণতে পারে না মিয়ানমার

জঙ্গলে বিদ্রোহী, বাঘ গুণতে পারে না মিয়ানমার
মিয়ানমারের জঙ্গলে বেঙ্গল টাইগার | ছবি: সংগৃহীত
খুররম জামান
বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট


  • Font increase
  • Font Decrease

মিয়ানমারের বিভিন্ন অঞ্চলে সশস্ত্র সংঘাতের ফলে দেশটিতে থাকা বাঘের সংখ্যা গুণে বের করা যাচ্ছে না। দেশটির বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ সমিতির মতে, সবশেষ বাঘ জরিপে মাত্র ১০ শতাংশ অঞ্চলে এ বিরল প্রাণীটির সংখ্যা গোণা গেছে।

সমিতি বলছে, বাঘের সংখ্যা সঠিকভাবে জানা কঠিন। সংঘাতের কারণে কিছু এলাকায় তারা জরিপ চালাতে পারেনি। মিয়ানমার সেনার সঙ্গে বিদ্রোহী গোষ্ঠীর সংঘাতের কারণে এসব অঞ্চলে তথ্য সংগ্রহ করা খুব বিপজ্জনক।

পৃথিবীতে বাঘের ৯টি প্রজাতির মাত্র ছয়টি প্রজাতি এখন আর অবশিষ্ট আছে। বাঘের বাসস্থানগুলির মধ্যে মিয়ানমারে দুটি প্রজাতি রয়েছে। বেঙ্গল টাইগার ও ইন্দো-চায়না বাঘ দুটি দেশটির বিভিন্ন জঙ্গলে দেখতে পাওয়া যায়।

বাঘের বাসস্থান জরিপ করায় অনেক প্রতিবন্ধকতা রয়েছে। তাদের আবাসগুলো দূরবর্তী এবং সশস্ত্র সংঘাতের কারণে তা ব্যাপক ঝুঁকিপূর্ণ।

মিয়ানমারের বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ সমিতির সুপারিশ—বর্তমান বাঘের বাসস্থান সংরক্ষিত এলাকায় নিয়ে আসা, যাতে বংশবিস্তার নিশ্চিত করা যায়।

মিয়ানমার সরকারের দাবি সারাদেশে ৮০টি বাঘ এখনো অবশিষ্ট আছে। কিন্তু বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এ সংখ্যা আরো কম। সংখ্যা কমার কারণ হিসেবে বলা হচ্ছে, বাঘেরা প্রচণ্ড খাদ্য সংকটে পড়েছে।

বাঘেরা যে প্রাণীগুলো শিকার করে খায় বনগুলোতে অবৈধ শিকারিরা সেই সব প্রাণী ধরে নিয়ে বিদেশে পাচার করে দিচ্ছে। বাঘের পছন্দের খাবারের মধ্যে গৌড়, হরিণ ও সাম্বার হরিণের সংখ্যা হুমকির মুখে। এসব বন্যপ্রাণী পাচারকারীদেরও খুব প্রিয়!

মিয়ানমারে জীববৈচিত্র্য ও বনাঞ্চল আইন দ্বারা সুরক্ষিত থাকলেও অভ্যন্তরীণ সংঘাতের কারণে প্রাণীগুলো অচিরেই হারিয়ে যাবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

আপনার মতামত লিখুন :

মোদীকে 'অর্ডার অফ জায়েদ' সম্মাননায় ভূষিত

মোদীকে 'অর্ডার অফ জায়েদ' সম্মাননায় ভূষিত
ছবি: সংগৃহীত

সংযুক্ত আরব আমিরাতের সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা 'অর্ডার অব জায়েদ'-এ ভূষিত করা হয়েছে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে।

শনিবার (২৪ আগস্ট) আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম জানায়, সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাজধানী আবু ধাবির এক অনুষ্ঠানে মোদীর গলায় সোনার মেডালটি পরিয়ে দেন যুবরাজ শেখ মোহাম্মদ বিন জায়েদ আল নাহিয়ান।

প্রতিবেদনে জানানো হয়, দুই দেশের মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্ক আরও জোরদার করতে মোদীকে এ সম্মাননা দেওয়া হয়েছে। সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রথম প্রেসিডেন্ট শেখ জায়েদ বিন সুলতান আল নাহিয়ানের নামে এ সম্মাননার নামকরণ করা হয়েছে। তার জন্মের শতবর্ষ উপলক্ষে মোদীকে এ সম্মাননা দেওয়া হয়। এ বছর এপ্রিলে মোদীকে এ সম্মাননায় ভূষিত করার কথা ঘোষণা করা হয়।

সৌদি আরব সরকার কর্তৃক এ সম্মাননা বিশ্বের খুব কম নেতাকে দেওয়া হয়েছে। এর আগে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন, রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ ও চীনের বর্তমান প্রেসিডেন্ট শিং জিংপিয়ের মতো নেতাদেরকে এ সম্মাননায় ভূষিত করা হয়েছে।

কাশ্মীরের বিতর্কিত ৩৭০ অনুচ্ছেদ বিলোপ করার ঘোষণা দেওয়ার পরও সৌদি সরকার তাকে এই সম্মাননা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। সম্প্রতি ভারত সরকার ৩৭০ ধারা বাতিলের পরও কাশ্মীরের নিরাপত্তার স্বার্থে এই মুহূর্তে সেখানে প্রবেশাধিকারের নিষেধাজ্ঞা জারি রেখেছে। 

কাশ্মীর থেকে ফেরত পাঠালো রাহুল গান্ধীকে

কাশ্মীর থেকে ফেরত পাঠালো রাহুল গান্ধীকে
সাবেক কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী, ছবি: সংগৃহীত

ভারত সরকারের নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও আজ শনিবার (২৪ আগস্ট) কাশ্মীর যান সাবেক কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী ও বিরোধী দলের ১১ নেতা। কিন্তু শ্রীনগর বিমানবন্দর থেকে তাদেরকে দিল্লিতে ফেরত পাঠানো হয়েছে। 

শনিবার (২৪ আগস্ট) ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে এ তথ্য জানানো হয়। 

আরও পড়ুন: নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও কাশ্মীর যাচ্ছেন রাহুল গান্ধী

৩৭০ ধারা বাতিলের পরও কাশ্মীরের নিরাপত্তার স্বার্থে এই মুহূর্তে সেখানে যাওয়ার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে প্রশাসন। 

এদিকে বিরোধী নেতাদের কাশ্মীর সফরের সিদ্ধান্তের খবরে আপত্তি জানায় জম্মু-কাশ্মীর প্রশাসন। জম্মু-কাশ্মীরের তথ্য ও জনসংযোগ দফতরের বরাতে  এক টুইট বার্তায় বলা হয়েছে, সীমান্তে সন্ত্রাস ও জঙ্গিদের হাত থেকে যখন জম্মু-কাশ্মীরবাসীকে রক্ষা করার চেষ্টা চালাচ্ছে সরকার, সেই পরিস্থিতিতে রাজনৈতিক নেতাদের এসে বিড়ম্বনা না বাড়ানো উচিত। রাজনৈতিক নেতাদের কাছে আর্জি, দয়া করে সহযোগিতা করুন। শ্রীনগরে আসবেন না। আপনাদের বোঝা উচিত, এই মুহূর্তে প্রধান দায়িত্ব হল শান্তি বজায় রাখা।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র