Barta24

রোববার, ২১ জুলাই ২০১৯, ৬ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

কানাডায় তিমি ও ডলফিন আটকে রাখা নিষিদ্ধ

কানাডায় তিমি ও ডলফিন আটকে রাখা নিষিদ্ধ
ছবি: সংগৃহীত
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
বার্তা২৪.কম
ঢাকা


  • Font increase
  • Font Decrease

কানাডায় আর তিমি ও ডলফিন আটকে রাখা যাবে না। এখন থেকে কানাডায় সামুদ্রিক এসব প্রাণী (ক্যাটায়েশান-তিমি, ডলফিন এবং পিপোজাইজ) বন্দী করে রাখা নিষিদ্ধ।

সেই সঙ্গে বন্দী করে এসব স্তন্যপায়ী প্রাণীর প্রজনন ঘটানো এবং এসব প্রাণী ও এদের ভ্রূণ ও শুক্রাণু আমদানি ও রফতানি করা নিষিদ্ধ।

কেউ এই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কানাডায় তিমি ও ডলফিন বন্দী করে না রাখতে একটি বিল তোলা হয় সব শেষ সংসদ অধিবেশনে। বিলটি ‘ফ্রি উইলি’ বিল নামে পরিচিত।

এই বিলটি জুন মাসের শেষ দিকে কানাডার আইনে অন্তর্ভূক্ত করা হচ্ছে। গত সোমবার এই বিলটি তৃতীয় বারের মতো হাউজ অব কমন্সে উত্থাপিত হয়।

এই বিল পাস হওয়ার পর দেশটির গ্রিন পার্টির নেতা এলিজাবেথ মে বলেন, ‘আজ কানাডার জীবজন্তুর জন্য সত্যিই একটি ভালো দিন।’

কানাডার শুধুমাত্র দু’টি স্থান- মারিনল্যান্ড এবং ভ্যানকুভার অ্যাকুইরিয়ামে তিমি, ডলফিন এবং পিপোজাইজ বন্দী করে রাখা হয়েছে।

কানাডার অবসরপ্রাপ্ত সিনেটর উইলফ্রেড মুর ২০১৫ সালে প্রথম এই বিলটি উত্থাপন করেছিলেন।

বিলটি পাস হওয়ার পর তিনি সংবাদ মাধ্যমে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, বিলটি পাস হওয়ায় তিনি অত্যন্ত আনন্দিত এবং এক ধরনের মুক্তির স্বাদ অনুভব করছেন। বলেছেন, কানাডা এই জন্যই ভালো।

তবে তার অভিযোগ, কনজারভেটিভ (রক্ষণশীল) সিনেটররা এতোদিন তার বিলটি পদ্ধতিগত কৌশলে রেড চেম্বারে (যে চেম্বারে সিনেট বসে) দুর্বল করে রেখেছিলেন।

সূত্র: হাফ পোস্ট

আপনার মতামত লিখুন :

এক ফ্যান এক লাইটের বিদ্যুৎ বিল ১২৮ কোটি

এক ফ্যান এক লাইটের বিদ্যুৎ বিল ১২৮ কোটি
বিদ্যুৎ বিল

ভারতের উত্তর প্রদেশের হাপুর শহরের কাছে চামরি নামে একটি গ্রামের এক গৃহস্থের বাড়িতে ১২৮ কোটিরও বেশি রুপির বিদ্যুৎ বিল এসেছে। বাড়িটির বাসিন্দা এক দম্পতি, যাদের ঘরে কেবল লাইট আর ফ্যান চলে।

শামীম নামে ওই বাড়ির কর্তা বিল সংশোধনের জন্য বিদ্যুৎ অফিসে বার বার ধর্না দিয়েও এর কোন সুরাহা করতে পারেননি। বিল পরিশোধ না করায় তার বাড়ির বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়েছে।

পুনরায় বিদ্যুৎ সংযোগের দাবি নিয়ে বিদ্যুৎ অফিসে গেলে শামীমকে কর্মকর্তারা বলেছেন, বিল পরিশোধ করলেই কেবল তার বাড়ির বিদ্যুৎ সংযোগ চালু করে দেওয়া হবে।

বাড়িটির ২ কিলোওয়াটের বিদ্যুৎ সংযোগের বিলের কাগজে ছাপা বিলের মোট পরিমাণ ১২৮ কোটি ৪৫ লাখ ৯৫ হাজার ৪৪৪ রুপি। এই উদ্ভট পরিমাণ সংশোধন করতে গিয়ে বিদ্যুৎ অফিসের টেবিলে টেবিলে ঘুরেছেন বলে জানিয়েছেন শামীম।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/21/1563676901455.jpg
ভারতীয় সংবাদ সংস্থা এএনআই’কে তিনি বলেন, কেউ আমাদের কথা শুনছে না। এই অর্থ আমরা কিভাবে পরিশোধ করব? অভিযোগ নিয়ে গেলে কর্মকর্তারা বলছেন, পুরো বিল পরিশোধ করতে হবে। তারা আমার বাড়ির লাইন ইতোমধ্যেই কেটে দিয়েছেন।

অভিযোগ করে শামীম আরও বলেন, প্রতি মাসে আমার বিদ্যুৎ বিল ৭শ’ থেকে ৮শ’ রুপির মধ্যেই থাকে। কিন্তু এবার আমাকে পুরো হাপুর শহরের বিদ্যুৎ বিল ধরিয়ে দেওয়া হয়েছে!

ভুক্তভোগী শামীমের স্ত্রী খাইরুন্নিসা বলেন, আমরা কেবল লাইট আর ফ্যান চালাই। আমরা গরিব মানুষ, আমরা কিভাবে এত বিল দেব?

রামশরণ নামে প্রদেশের বিদ্যুৎ বিভাগের এক প্রকৌশলী সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, এটা বড় কোন ব্যাপার না, সামান্য যান্ত্রিক ত্রুটি। পরে সংশোধন করে দেওয়া হবে।
সূত্র: এনডিটিভি

দিল্লির সাবেক মুখ্যমন্ত্রী শীলা দীক্ষিত মারা গেছেন

দিল্লির সাবেক মুখ্যমন্ত্রী শীলা দীক্ষিত মারা গেছেন
শীলা দীক্ষিত, ছবি: সংগৃহীত

দিল্লির প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা কংগ্রেস নেত্রী শীলা দীক্ষিত মারা গেছেন। মৃত্যুকালে তার ৮১ বছর বয়স হয়েছিল।

শনিবার (২০ জুলাই) দিল্লির ফর্টিস এসকর্ট হার্ট ইনস্টিউটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। 

দেশটির গণমাধ্যম জানায়, শীলা দীক্ষিত বেশ কিছু দিন ধরে অসুস্থ ছিলেন। শনিবার বেলা সাড়ে ৩টার দিকে মৃত্যুর খবর জানায় তার পরিবার।

এবারের অনুষ্ঠিতব্য লোকসভা নির্বাচনেও উত্তর-পূর্ব দিল্লি থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন শীলা দীক্ষিত। তবে পরাজিত হন বর্ষীয়ান এই কংগ্রেস নেত্রী।

১৯৯৮, ২০০৩ এবং ২০০৮ সালে পরপর তিন বার দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী হন শীলা দীক্ষিত। বর্তমানে তিনি দিল্লি কংগ্রেসের সভাপতি ছিলেন।

শীলা দীক্ষিতের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছে কংগ্রেস পরিবারে। শোক প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি কোবিন্দ এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও। 

এদিকে, শোকপ্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ড. মনমোহন সিং। 

অন্যদিকে, এক টুইট বার্তায় শোক প্রকাশ করেছেন জম্মু-কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লা।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র