Barta24

বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০১৯, ৩ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

পরাজয়ের কারণ জানতে জরুরি বৈঠক ডেকেছেন মমতা

পরাজয়ের কারণ জানতে জরুরি বৈঠক ডেকেছেন মমতা
পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়, ছবি: সংগৃহীত
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

ভারতীয় জনতা পার্টিকে (বিজেপি) ভারত ছাড়া করার ডাক দিয়েছিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের সুপ্রিমো মমতা বন্দোপাধ্যায়। কিন্তু এবারের লোকসভা নির্বাচনে দলটির এমনই পরাজয় হয়েছে যে, দিল্লি জয় তো দূরের কথা, খোদ পশ্চিমবঙ্গেই কমেছে তৃণমূলের আসন। রাজ্যটির ৪২টির মধ্যে ১৮টি আসন পেয়েছে গেরুয়া শিবির। তৃণমূল জিতেছে ২২টি আসনে।

এমতাবস্থায় দলের সাংসদ থেকে শুরু করে বিধায়ক, দলীয় প্রার্থী এবং জেলার নেতাদের নিয়ে বৈঠক ডেকেছেন মমতা। শনিবার (২৫ মে) সকালে কলকাতায় মুখ্যমন্ত্রীর কালীঘাটের বাড়িতে ওই বৈঠক হবে।

বৈঠকে, দলের এমন পরাজয়ের কারণ নিয়ে আলোচনা হবে। ফল কেন এতটা খারাপ হলো, তা বোঝার চেষ্টা করবেন মমতা।

এর আগে লোকসভা নির্বাচনের ফল সম্পূর্ণ প্রকাশ হওয়ার আগেই টুইট করে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। বলেছিলেন, জয়ীদের অভিনন্দন। আমাদের ফল এরকম কেন হলো, তা আমরা খতিয়ে দেখব। পরাজিত হওয়া মানেই হেরে যাওয়া নয়।

সূত্র: এনডিটিভি

আপনার মতামত লিখুন :

মিয়ানমারে কফি শিল্পে যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তা

মিয়ানমারে কফি শিল্পে যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তা
বিদেশি ক্রেতা ও মিয়ানমারের কফি সংস্থার মাঝে আলোচনা অনুষ্ঠান, ছবি: সংগৃহীত

যুক্তরাষ্ট্র মিয়ানমারের কফি উৎপাদন ও বিশ্ববাজারে বিক্রি করতে ঋণ সহায়তা দিচ্ছে। এরই অংশ হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক সাহায্য সংস্থা (ইউএসএআইডি) মিয়ানমারে কফি অ্যাসোসিয়েশনের (এমসিএ) সঙ্গে অংশীদারিত্ব ঘোষণা করেছে।

এর ফলে বেসরকারি ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে ১০ লাখ ডলার ঋণ অনুদান দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র।

মিয়ানমারে ইউএসএআইডি মিশন ডিরেক্টর তেরেসা ম্যাকগি বুধবার (১৭ জুলাই) ইয়াংগুনে এক হোটেলে এ ঘোষণা দেন। সেখানে ৩০টির বেশি বিদেশি ক্রেতা ও মিয়ানমারের ১১টি কফি সংস্থার মাঝে আলোচনা হয়।

ম্যাকগি বলেন, 'ইউএসএআইডি এবং আমেরিকাবাসী হিসেবে কফি সেক্টরে বিশেষ করে মিয়ানমারের ব্যক্তিগত সেক্টরে অবদান রাখার জন্য গর্বিত। যেহেতু এই বেসরকারি উদ্যোগগুলো বাড়ছে, অর্থনৈতিক উন্নয়নে আরও বেশি মানুষ উপকৃত হবে। মিয়ানমারের অর্থনীতি আরও বেশি বলিষ্ঠ হবে।'

কুলভূষণের মৃত্যুদণ্ড: পাকিস্তানকে রায় পুনর্বিবেচনার নির্দেশ

কুলভূষণের মৃত্যুদণ্ড: পাকিস্তানকে রায় পুনর্বিবেচনার নির্দেশ
ভারতের সাবেক নৌসেনা কুলভূষণ যাদব

গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে ভারতের সাবেক নৌসেনা কুলভূষণ যাদবকে পাকিস্তানের সামরিক আদালতে দেওয়া মৃত্যুদণ্ডের রায় পুনর্বিবেচনা করতে বলেছে আন্তর্জাতিক আদালত।

বুধবার (১৭ জুলাই) হেগের এই আদালতের ১৬ বিচারকের প্যানেল সংখ্যাগরিষ্ঠ বিচারকের মতামতের ভিত্তিতে এ রায় ঘোষণা করে বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম।

আন্তর্জাতিক আদালতের রায়ে বলা হয়েছে, রায় পুনর্বিবেচনা না করা পর্যন্ত কুলভূষণ যাদবের মৃত্যুদণ্ড স্থগিত থাকবে। পাশাপাশি তার সঙ্গে দেখা করার সুযোগ দিতে হবে ভারতীয় কূটনীতিকদের।

ভারতের অভিযোগের সঙ্গে একমত হয়ে আন্তর্জাতিক আদালত জানায়, সামরিক আদালতে সাজাপ্রাপ্ত নৌসেনাকে কনস্যুলার অ্যাক্সেস না দিয়ে ভিয়েনা চুক্তির শর্ত লঙ্ঘন করেছে পাকিস্তান।

রায়ে আরও বলা হয়, কুলভূষণ যাদবের সঙ্গে যোগাযোগ করা, আটক আবস্থায় তার সঙ্গে দেখা করা এবং তার জন্য আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার অধিকার থেকে ভারতকে বঞ্চিত করেছে পাকিস্তান।

মোট ১৬ জনের রায়ের মধ্যে ৫ জনের রায়ই ভারতের পক্ষে যায়। মাত্র একজন বিচারপতি ছিলেন পাকিস্তানের। এমনকি, চীনের বিচারপতিও ভারতের পক্ষেই রায় দেন।

ভারতীয় নৌবাহিনীর সাবেক কর্মকর্তা কুলভূষণকে ২০১৬ সালের মার্চ মাসে গ্রেপ্তার করে পাকিস্তানের নিরাপত্তা বাহিনী। বেলুচিস্তানে বিচ্ছিন্নতাবাদী বিদ্রোহে মদদ দেওয়া এবং ভারতের হয়ে গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগ আনা হয় তার বিরুদ্ধে।

ভারতের দাবি, কুলভূষণ তার ব্যবসার কাজে ইরানে গিয়েছিলেন। সেখান থেকে তাকে অপহরণ করে পাকিস্তানে নিয়ে গিয়ে মিথ্যা অভিযোগে ফাঁসানো হয়।

পাকিস্তানের সামরিক আদালত ২০১৭ সালের এপ্রিলে কুলভূষণকে মৃত্যুদণ্ড দিলে সেই রায়ের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক আদালতে যায় ভারত।

সূত্র: এনডিটিভি

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র