Barta24

শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ২০১৯, ৮ ভাদ্র ১৪২৬

English

ধর্ষণ ঠেকাতে ফ্রি সেক্সের কুপন!

ধর্ষণ ঠেকাতে ফ্রি সেক্সের কুপন!
গ্রিসের একটি রেল স্টেশনে অবস্থান নেওয়া কিছু অভিবাসী, ছবি: সংগৃহীত
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

জার্মানিতে অভিবাসীদের ফ্রি সেক্সের কুপন দেওয়া হচ্ছে। পার্শ্ববর্তী দেশ গ্রিস ও অস্ট্রিয়াতেও সরকার নিয়মটি অনুসরণ করছে।

গ্রিসের জনপ্রিয় রাজনীতিক ও টিভি ব্যক্তিত্ব কিরিয়াকোস ভেলোপোওলাস (Kyriakos Velopoulos) গত ফেব্রুয়ারিতে তার এক টিভি শোতে বলেছিলেন, জার্মান সরকার তাদের দেশের অভিবাসীদের পতিতালয়ে যেতে ফ্রি টিকিট দিচ্ছে, যেন তারা স্থানীয়দের ধর্ষণ না করে।

এক দশক ধরে এসব দেশে এই কুপন দেওয়া হচ্ছে বলে বিভিন্ন অনলাইনে প্রচারিত হয়ে আসছে। তবে ফ্রি সেক্সের কুপন বা টিকিট দেওয়ার কোনো বাস্তবিক প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বিশ্লেষকরা বলছেন, ইউরোপিয়ান পার্লামেন্ট নির্বাচনের আগে ভোটারদের প্রভাবিত করতে কিছু রাজনীতিক এ ধরনের তথ্য ছড়াচ্ছেন। অভিবাসীর মত গুরুত্বপূর্ণ ও আলোচিত ইস্যু নিয়ে মিথ্যা তথ্য প্রচার করে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) সম্পর্কে ভ্রান্ত ধারণা তৈরি করছেন তারা।

এ বিষয়ে ইউরোপের বিশিষ্টজনেরা ইতোমধ্যে বলেছেন, অনেক ক্ষেত্রেই রাজনৈতিক শিষ্টাচার তোয়াক্কা করা হচ্ছে না। প্রধান সারির রাজনৈতিক দলগুলো আসন্ন নির্বাচন উপলক্ষে স্বার্থ হাসিল করতে মিথ্যা তথ্য প্রচারের মত এ ধরনের পন্থা অবলম্বন করছে।

ইউরোপজুড়ে রাজনৈতিক মিথ্যা তথ্য প্রচারের এমন সত্য বাস্তবতা তুলে ধরছেন মহাদেশটির বিশ্লেষকরা। এ ধরনের তথ্য জাতিকে বিভক্ত করছে বলে মনে করছেন তারা।

সূত্র: সিএনএন

আপনার মতামত লিখুন :

পুড়ছে পৃথিবীর 'ফুসফুস' অ্যামাজন, বৃষ্টির প্রার্থনা

পুড়ছে পৃথিবীর 'ফুসফুস' অ্যামাজন, বৃষ্টির প্রার্থনা
আগুনে পুড়ছে অ্যামাজন, ছবি: সংগৃহীত

গত কয়েকদিন ধরেই পুড়ছে পৃথিবীর ফুসফুস খ্যাত অ্যামাজন। প্রথমদিকে কিছুটা ধীরগতিতে আগুন ছড়িয়ে পড়লেও বিগত বছরগুলোর সকল রেকর্ড ছাড়িয়ে ভয়ানক আকার ধারণ করেছে অ্যামাজনের আগুন।

মার্কিন গণমাধ্যম সিএনএন'র এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, গত বছরের তুলনায় ৮০ ভাগ বেশি তীব্র আকারে পুড়ছে এই বন। শুষ্ক আবহাওয়া, তাপমাত্রা বৃদ্ধি ও বাতাসের ফলে এ আগুন ক্রমশ আরও ছড়িয়ে পড়ছে।

পুড়ছে পৃথিবীর 'ফুসফুস': সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বৃষ্টির প্রার্থনা

তবে পৃথিবীর ২০ ভাগ অক্সিজেন উৎপাদনকারী ও ২০০ মেট্রিক টন কার্বন ডাই অক্সাইড শোষণকারী অ্যামাজনে এমন আগুনে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকেই উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। ইতোমধ্যে টুইটার প্রেফরঅ্যামাজন (#prayforamazon) হ্যাশট্যাগে বিভিন্ন পোস্ট দিচ্ছেন। অ্যামাজন রক্ষায় সংশ্লিষ্টদের এগিয়ে আসার পাশাপাশি সংবাদ মাধ্যমগুলোর আরও সরব উপস্থিতি কামনা করেন। তবে ব্যবহারকারীদের অনেকেই বৃষ্টির জন্য প্রার্থনা করে ফেসবুক ও টুইটারে বিভিন্ন পোস্ট দেন।

এক ব্যবহারকারী টুইট বার্তায় লেখেন, 'আমি চাই, বৃষ্টি আসুক। প্রকৃতিই, প্রকৃতিকে রক্ষা করুক। সৃষ্টিকর্তা তার সৃষ্ট প্রকৃতিকে রক্ষা করুক।'

আরেকজন লেখেন, 'বৃষ্টি ছাড়া এই আগুন বন্ধ হবে না। চলুন সবাই বৃষ্টির জন্য প্রার্থনা করি। আমাদের প্রকৃতিকে রক্ষা করি।'

পুড়ছে পৃথিবীর 'ফুসফুস': সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বৃষ্টির প্রার্থনা

এদিকে ব্রাজিলের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট ফর স্পেস রিসার্স (আইএনপিই) বলছে, এ বছর এখন পর্যন্ত ব্রাজিলে ৭২,৮৪৩টি অগ্নিকাণ্ড হয়েছে। এরমধ্যে অর্ধেকের বেশি আগুনের ঘটনা অ্যামাজন জঙ্গলের, যা আগের বছরের তুলনায় ৮০ শতাংশ বেশি। তাদের হিসেব মতে, দাবানলে প্রতি মিনিটে অ্যামাজনের প্রায় ১০,০০০ বর্গমিটার এলাকা পুড়ে যাচ্ছে, যা একটি ফুটবল মাঠের প্রায় দ্বিগুণ আয়তনের সমান (একটি ফুটবল মাঠের আয়তন প্রায় ৫ হাজার ৩৫১ বর্গমিটার)। বিজ্ঞানীদের আশঙ্কা, এ অবস্থা চলতে থাকলে জলবায়ু পরিবর্তনবিরোধী লড়াইয়ে বড় ধরনের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হতে পারে।

দাবানলে পুড়ছে আমাজন!

দাবানলে পুড়ছে আমাজন!
ছবি: সংগৃহীত

দাবানলে পুড়ছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় 'রেইনফরেস্ট' বনভূমি আমাজন। পৃথিবীর ২০ শতাংশ অক্সিজেন সরবরাহকারী এ বনভূমিকে 'পৃথিবীর ফুসফুস' বলা হয়ে থাকে।

বৃহস্পতিবার (২২ আগস্ট) আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রতিমিনিটে আমাজনের ১০ হাজার বর্গমিটার এলাকা পুড়ে যাচ্ছে। এ বনভূমির ৬০ শতাংশই ব্রাজিলে অবস্থিত।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/22/1566488384771.jpg

 

এরইমধ্যে ব্রাজিলের রোন্ডানিয়া, অ্যামাজোনাস, পারা, মাতো গ্রোসো অঞ্চলের কিছু অংশে আগুন ছড়িয়ে পড়েছে।

এবারের অগ্নিকাণ্ড এ যাবৎকালের মধ্যে সবচেয়ে বড় বলে জানায় ব্রাজিলের মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র, ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট ফর স্পেস রিসার্চ। বিশ্ব উষ্ণায়নের ফলে এমন আগুন লাগার ঘটনা ঘটছে বলে তারা দাবি করেন।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/22/1566488486116.jpg

 

প্রতিবেদনে আরও জানানো হয়, প্রায় ১৬,০০০ প্রজাতির কয়েক হাজার কোটি গাছ রয়েছে এ বনভূমিতে। শুষ্ক আবহাওয়া, তাপমাত্রা বৃদ্ধি ও বাতাসের ফলে এ আগুন ক্রমশ আরও ছড়িয়ে পড়ছে।

পরিবেশবিদরা জানান, আমাজন জঙ্গল সংলগ্ন আমাজোনাস ও রোনডোনিয়া অঞ্চলের বনের আগুনের ধোঁয়া ২ হাজার ৭০০ কিলোমিটারের বেশি দূরত্ব অতিক্রম করে সাও পাওলোতে এসে পৌঁছেছে। ধোঁয়ায় সাও পাওলো শহরের চারিদিকে ঢেকে গিয়েছে বলেও জানান তারা। 

প্রতিবছরেই এমন আগুন লাগার ঘটনা ঘটে আমাজনে। ২০১৮ সালে ৭ হাজার ৫০০ কিলোমিটার এলাকা আগুনে পুড়ে গেছে। যেখানে ২০১৭ সালের তুলনায় ৬৫ শতাংশ বেশি বলে প্রতিবেদনে জানানো হয়। এদিকে শুধু গতমাসেই ২ হাজার ২০০ কিলোমিটার এলাকা আগুনে পুড়ে গেছে।

পরিবেশিবিদরা আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, খুব তাড়াতাড়ি এ আগুন নেভানো না গেলে বিশ্বের জলবায়ুতে বড় ধরণের পরিবর্তন আসতে পারে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র