Alexa

নরেন্দ্র মোদি একজন ঘৃণা ভরা মানুষ: রাহুল

নরেন্দ্র মোদি একজন ঘৃণা ভরা মানুষ: রাহুল

নরেন্দ্র মোদি ও রাহুল গান্ধী, ছবি: সংগৃহীত

নরেন্দ্র মোদি ব্যক্তিগতভাবে একজন ঘৃণা ভরা মানুষ। আমি যখনই তার সঙ্গে জনসম্মুখে দেখা করেছি, তখন ভালবেসে করেছি। সম্মানের সঙ্গে করেছি। কিন্তু তিনি এটির প্রতিক্রিয়া সঠিকভাবে দেন না, ঘৃণা ভরে দেন।

কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী শনিবার (১১ মে) মধ্যপ্রদেশে এক জনসভা শেষে গণমাধ্যমকে এসব কথা বলেন।

রাহুল বলেন, যে বিচারধারা ভারতের মধ্যে ঘৃণা ছড়াচ্ছে, আমরা তার বিরুদ্ধে লড়ছি। আরএসএসের বিচারধারা হল-একটি মাত্র সংগঠন এ দেশ চালাবে। আমরা এর বিরুদ্ধে লড়াই করছি। আজ দেশে সব প্রগতিশীল ও মুক্তমনা দল একত্রিত হয়েছে বিজেপি-আরএসএসের বিরুদ্ধে।

উদাহরণ স্বরূপ বলতে পারি, উত্তর প্রদেশে মায়াবতী ও অখিলেশের জোটে আমরা নেই। কিন্তু সবাই আমরা বিজেপির বিরুদ্ধে কঠিন লড়াইয়ে নেমেছি, যোগ করেন রাহুল।

তিনি বলেন, এ দেশ প্রেমের দেশ। এ দেশের প্রেমের আদর্শই জয়ী হয়েছে। এ দেশে যা অর্জন হয়েছে তা প্রেমের মাধ্যমেই হয়েছে। রাজিব গান্ধী, ইন্দিরা গান্ধী ও নেহেরুজি সম্পর্কে নেতিবাচক কথা বলেন নরেন্দ্র মোদি। কিন্তু আমি তাদের সত্য জানি। তাই কেউ  উল্টাপাল্টা কথা বললে তাতে আমার কিছুই যায় আসে না।

কংগ্রেস সভাপতি বলেন, পাঁচ বছর আগে নরেন্দ্র মোদি সম্পর্কে বলা হচ্ছিল, তাকে কেউ হারাতে পারবে না। কিন্তু আজ তা বদলে গেছে। আর এ বদলের জন্য লড়াই করেছে কংগ্রেস। তাই কথায় কথায় কংগ্রেসকে আক্রমণ করছে মোদি। মোদির বিরুদ্ধে কংগ্রেস লড়াই করেছে বলেই এটা হচ্ছে। এটি সহজ ছিল না, কিন্তু আমরা এক ইঞ্চিও পিছু হটিনি। আমরা সংসদে, গ্রামে, শহরে লড়াই করেছি। ২৩ মে লোকসভা নির্বাচনের ফল হবে। জনতা দেশের মালিক। তারা যে রায় দেবে, তাই আমি মেনে নেব।

রাহুল বলেন, ১৯৯০ সালে যে অর্থনৈতিক মডেল কংগ্রেস সরকার দিয়েছিল, তা আবার আমরা ২০০৪ সালে কংগ্রেস ক্ষমতায় এসে প্রয়োগ করি। ২০০৯ সালেও তাই ভালভাবে চলেছে। কিন্তু আমাদের দেওয়া মডেলই ২০১২ সালে আর চলছিল না। কারণ, বিশ্ব তখন অনেক বদলে গেছে। এটি নিয়ে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ড. মনমোহন সিংহের সঙ্গে আমার কথা হয়। মজার কথা হল- যেটি ২০১২ সালে চলছিল না, ২০১৪ সালে মোদি এসে সেটিই পিক করেছেন।

নির্বাচন কমিশন নিরপেক্ষ ভূমিকা পালন করছে না বলে অভিযোগ করেন রাহুল গান্ধী। তিনি বলেন, নরেন্দ্র মোদি যা খুশি বলতে পারেন, কিন্তু একই কথা অন্য কেউ বললে তাকে শাস্তি পেতে হয়।

আপনার মতামত লিখুন :