Alexa

মোদির বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণ বিধি ভঙ্গের অভিযোগ

মোদির বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণ বিধি ভঙ্গের অভিযোগ

ভোট দিতে গিয়ে এভাবেই গাড়ি নিয়ে প্রচারণা চালান মোদি, ছবি: সংগৃহীত

দিল্লি থেকে: আহমেদাবাদে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির রোডশোতে নির্বাচনী আচরণ বিধি ভঙ্গের অভিযোগ আমলে নিয়েছে প্রধান নির্বাচন কমিশন। এ সম্পর্কে গুজরাটের মুখ্য নির্বাচন কমিশনের কাছে একটি প্রতিবেদন চেয়েছে। কংগ্রেসের পক্ষ থেকে মোদির বিরুদ্ধে এ অভিযোগ জানানো হয়।

মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) সন্ধ্যায় গুজরাটের মুখ্য নির্বাচনী অফিসারের কাছে আহমেদাবাদে মোদির রোডশো সম্পর্কে একটি প্রতিবেদন চেয়েছে কমিশন। 

এই বিষয়ে সিনিয়র কংগ্রেসের নেতা অভিষেক মনু সিংভি বলেছেন, মোদির দীর্ঘ মিছিল ও বক্তব্য নির্বাচনী আচরণ বিধির স্পষ্ট লঙ্ঘন।' গতকালই রোডশো নিয়ে কংগ্রেসের পক্ষ থেকে সংশয় প্রকাশ করা হয়।

গুজরাটের আহমেদাবাদে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি একটি ছোট রোডশো করেন। যেখানে তিনি আজ ভোট দিতে গিয়েছিলেন। ভোট দেওয়ার আগেই প্রধানমন্ত্রী একটি খোলা জিপে আসেন। রাস্তায় নেমে যান এবং সংক্ষিপ্ত একটি বক্তব্য দেন।

বক্তব্যে তিনি বলেন, 'সন্ত্রাসবাদের অস্ত্র আইডি, গণতন্ত্রের শক্তি ভোটার আইডি। আমি নিশ্চিতভাবে বলতে পারি যে ভোটার আইডি অনেক বেশি শক্তিশালী। সন্ত্রাসদের আইডির চেয়েও বেশি শক্তিশালী, তাই আমাদের ভোটের শক্তি বোঝা উচিত।'

ভারতের নির্বাচন আচরণ বিধিতে ভোটের দিন রোডশো করে ভোট দিতে যাওয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। মোদি যখন ভোট দিতে গিয়েছিলেন তখন বিজেপি কর্মীরা তাকে বাদ্যযন্ত্র বাজিয়ে স্বাগত জানায়। শুধু তাই নয় তারা মোদি মোদি আওয়াজ এমনভাবে তোলে যেন, নির্বাচনী প্রচার চলছে।

৫ মার্চ নির্বাচনের সময়সূচি ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গেই ভারতে আদর্শ আচরণ বিধি জারি হয়ে গিয়েছে। কোনো নেতা, দল, কেন্দ্রীয় বা কোনও রাজ্য সরকার নতুন কোনো প্রকল্প ঘোষণা বা নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি দিতে পারবে না। ভোটের ৪৮ ঘণ্টা আগে সব ধরনের প্রচারণা বন্ধ থাকবে।

১৯৬০ সালে কেরালায় বিধানসভা ভ‌োটে প্রথমবার প্রয়োগ করা হয় নির্বাচনী আচরণবিধি। ১৯৭৯ সাল থেকে ভারতের জাতীয় নির্বাচন কমিশন সব ক্ষেত্রে এই নিয়ম প্রয়োগের সিদ্ধান্ত নেয়।

আপনার মতামত লিখুন :