Alexa

লোকসভা নির্বাচন

তৃতীয় দফায় লড়ছেন অমিত-রাহুলের মত ভিভিআইপি প্রার্থী

তৃতীয় দফায় লড়ছেন অমিত-রাহুলের মত ভিভিআইপি প্রার্থী

বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ ও কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী, ছবি: সংগৃহীত

ভারতের লোকসভা নির্বাচনের তৃতীয় দফায় বিচ্ছিন্ন কয়েকটি সংঘর্ষ ব্যতিত শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোটগ্রহণ চলছে। এ দফার নির্বাচনে ভাগ্য নির্ধারণ হতে চলেছে কয়েকজন ভিভিআইপি প্রার্থীর।

তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য- কেরালার ওয়ানাডে কেন্দ্রে ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেসের প্রার্থী রাহুল গান্ধী, গুজরাটের গান্ধীনগরে ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) প্রার্থী অমিত শাহ এবং উত্তর প্রদেশের মৈনপুরীতে সমাজবাদী পার্টির (সপা) প্রার্থী মুলায়ম সিং যাদব।

কেরালার ২০টি এবং গুজরাটের ২৬টি আসনে ভোটগ্রহণ চলছে। এই দফায় উত্তর প্রদেশের ১০টি লোকসভা আসনের নির্বাচন সপা ও বিজেপি, দুই দলের কাছেই বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ। এখানে মোট ১২০ জন প্রার্থীর ভাগ্য ঠিক করবেন ১ কোটি ৭৬ লাখ ভোটার।

এ রাজ্যে ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে ১০টি আসনের মধ্যে সাতটিতেই জয়ী হয়েছিল বিজেপি। সেবার প্রবল বিজেপি ঝড়ের মধ্যেও যাদব পরিবারের পাঁচ প্রার্থীর মধ্যে তিনজন জয়লাভ করেছিলেন। এবারও মৈনপুরী, বদায়ুন এবং ফিরোজাবাদ থেকে লড়ছেন সেই তিনজন। এরা হলেন- সপার সুপ্রিমো মুলায়ম সিং যাদব এবং তার দুই ভাতিজা ধর্মেন্দ্র ও অক্ষয় যাদব।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Apr/23/1555998620338.jpg

এছাড়া ছত্তিশগড়ের সাতটি লোকসভা আসনেও ভোটগ্রহণ চলছে। ১২৩ জন প্রার্থীর ভবিষ্যৎ ঠিক করবেন ১ কোটি ২৭ লাখ ১৩ হাজার ৮১৬ জন ভোটার। সম্প্রতি বিধানসভা নির্বাচনে এই রাজ্যে সাফল্য পায় কংগ্রেস। লোকসভা নির্বাচনে তা ধরে রাখাই চ্যালেঞ্জ রাহুল গান্ধীর দলের সামনে। তবে ক্ষমতায় ফিরতে মরিয়া হয়ে একাধিক কেন্দ্রে বিদায়ী সাংসদকে প্রার্থী করেনি বিজেপি।

নর্থ গোয়া ও সাউথ গোয়া মিলিয়ে এই রাজ্যে দুটি লোকসভা আসনে নির্বাচন চলছে। মোট ১২ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। গোয়ায় এবার মূল লড়াই বিজেপি, কংগ্রেস ও আম আদমি পার্টির মধ্যে।

অন্যদিকে, গুজরাটে ২৬টি লোকসভা আসনে নির্বাচন হচ্ছে। রাজ্যের ৪ কোটি ৫১ লাখ ৫২ হাজার ৩৭৩ জন ভোটার রয়েছেন। দুই লাখ ২৩ হাজার ৭৭৫ জন ভোটকর্মী কাজ করছেন। নিরাপত্তার দায়িত্বে রয়েছেন ৪৪ হাজার পুলিশ কর্মী, এক হাজার ৯৫ জন বনরক্ষী, ১৫০ কোম্পানি সিআরপিএফ এবং ১২ কোম্পানি স্টেট রিজার্ভ পুলিস।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Apr/23/1555998605644.jpg

ইতিমধ্যে আমেদাবাদে ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি এবং বর্ষীয়ান বিজেপি নেতা লালকৃষ্ণ আদভানি। এছাড়া তৃতীয় দফায় ভাগ্য নির্ধারিত হবে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের।

পাশাপাশি পূর্ব ত্রিপুরা কেন্দ্রেও ভোটগ্রহণ চলছে। একেবারে শেষ সময়ে নির্বাচন কমিশন ওই কেন্দ্রের ভোট ১৮ এপ্রিলের পরিবর্তে পিছিয়ে ২৩ এপ্রিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। এই কেন্দ্রের জন্য অতিরিক্ত চার হাজার ২০০ কেন্দ্রীয় আধা সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। প্রায় ৮২ শতাংশ বুথেই উপস্থিত থাকবেন জওয়ানরা। এনআরসি এই কেন্দ্রে বড় ইস্যু হয়ে উঠেছে।

কড়া নিরাপত্তার মধ্যেই পশ্চিমবঙ্গে বালুরঘাট, উত্তর মালদহ, দক্ষিণ মালদহ, জঙ্গিপুর এবং মুর্শিদাবাদ মিলিয়ে মোট পাঁচটি লোকসভা কেন্দ্র ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। এদিনের নির্বাচনে প্রায় ৯২ শতাংশ বুথে আধা সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। গোটা ভারতসহ পশ্চিমবঙ্গে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে স্থানীয় সময় সকাল ৭টায়; চলবে বিকেল ৫টা অবধি।

আরও পড়ুন: ভারতে তৃতীয় দফায় চলছে ভোটগ্রহণ

আপনার মতামত লিখুন :