Barta24

শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০১৯, ৪ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

তৃণমূল কংগ্রেসের প্রচারণায় অংশ নিয়ে বিপাকে ফেরদৌস

তৃণমূল কংগ্রেসের প্রচারণায় অংশ নিয়ে বিপাকে ফেরদৌস
তৃণমূল কংগ্রেসের প্রচারণায় ফেরদৌস/ ছবি: সংগৃহীত
খুররম জামান
স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

নয়াদিল্লি থেকে: তৃণমূল কংগ্রেসের নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিয়ে বিপাকে পড়েছেন বাংলদেশের অভিনেতা ফেরদৌস। আর এনিয়ে সেখানে শুরু হয়েছে বিতর্ক।  এ ইস্যুতে উত্তাল পশ্চিমবঙ্গের ভোটের মাঠ।

সোমবার (১৫ এপ্রিল) সন্ধ্যায় উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জে তৃণমূল প্রার্থী কানহাইয়ালাল আগরওয়ালের সমর্থনে প্রচার করেন ফেরদৌস। সঙ্গে ছিলেন ভারতের অভিনেতা অঙ্কুশ ও অভিনেত্রী পায়েল। বিজেপি এনিয়ে মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) নির্বাচন কমিশনে লিখিত অভিযোগ করেছে। এর প্রেক্ষিতে নির্বাচন কমিশন এ বিষয়ে প্রতিবেদন চেয়েছে।

বিজেপির বলছে, উত্তর দিনাজপুরের প্রায় ৫১ শতাংশ মুসলিম ভোটের জন্য বাংলাদেশের চিত্রনায়ক ফেরদৌসকে তৃণমূল প্রার্থীর প্রচারণায় নামানো হয়েছে। মমতার এ কৌশল ভারতের সার্বভৌমত্বের পক্ষে বিপজ্জনক। 

বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, কীভাবে ভারতের একটি রাজনৈতিক দলের প্রচারে বিদেশি নাগরিক আসতে পারেন? আগে কখনও এমনটা দেখিনি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কখনোই আইন কানুন মানেন না। 

ফেরদৌসের প্রচারণায় অংশ নেওয়াকে ভারতের নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন হিসেবে দেখা হচ্ছে। এর ফলে ফেরদৌসের ভিসাও বাতিল হতে পারে।

ফেরদৌসের প্রচারণায় অংশ নেওয়ার কথা আগেই বাংলাদেশ দূতাবাসে জানানো উচিত ছিল। কোনো বিদেশি কোনোভাবেই অন্য দেশের নির্বাচন প্রক্রিয়ায় অংশ নিতে পারেন না।

এদিকে, দিল্লিতে অবস্থিত হাইকমিশন সূত্রে জানা গেছে, এ ইস্যুতে কঠোর পদক্ষেপ নিয়েছে বাংলাদেশ হাইকমিশন। কলকাতার বাংলাদেশের হাইকমিশন থেকে ফেরদৌসকে বলা হয়েছে, তিনি ভিসার শর্ত ভঙ্গ করেছেন। তাকে শুটিংয়ের জন্য ভিসা দেওয়া হয়েছে। বিদেশে নির্বাচনী প্রচারণায় তিনি অংশ নিতে পারবেন না। তাকে এখন দেশে চলে যেতে বলা হয়েছে হাইকমিশন থেকে। নির্বাচন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে তিনি ফিরে এসে তাদের ফিল্মের কাজ শেষ করতে পারেন।

আপনার মতামত লিখুন :

প্রিয়াঙ্কা গান্ধী আটক

প্রিয়াঙ্কা গান্ধী আটক
নেতাকর্মীদের নিয়ে রাস্তায় বসে পড়েন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী, ছবি: সংগৃহীত

ভারতের উত্তরপ্রদেশে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে ১০ জন খুন হওয়ার ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যাওয়ার পথে কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে আটক করা হয়েছে।

শুক্রবার (১৯ জুলাই) ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।

বুধবার (১৭ জুলাই) উত্তরপ্রদেশের সোনভদ্রা গ্রামে জমি নিয়ে সংঘর্ষের জেরে ১০ জন নিহত হয়। তাদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে সেখানে যাচ্ছিলেন প্রিয়াঙ্কা। কিন্তু মাঝপথে তাকে আটক করা হয়। উত্তরপ্রদেশে অপরাধ বৃদ্ধি ও আইনের শাসন নেই বলে রাজ্য সরকার ও মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের সমালোচনা করেন প্রিয়াঙ্কা।

আটকের পর মির্জাপুরে এসে রাস্তায় বসে পড়েন প্রিয়াঙ্কা। তার সঙ্গে থাকা অন্য কংগ্রেসের কর্মীরাও বসে পড়েন। তাদের ঘিরে থাকেন প্রিয়াঙ্কার নিরাপত্তারক্ষীরা। সেখান থেকে সরে যেতে অস্বীকৃতি জানালে তাকে আটক করে সরকারি গাড়িতে তোলা হয়।

এ সময় সাংবাদিকদের উদ্দেশে প্রিয়াঙ্কা বলেন, 'যাদেরকে নির্মমভাবে মেরে ফেলা হয়েছে আমি শুধু তাদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে চেয়েছিলাম। আমার ছেলের বয়সী একটি ছেলেকেও গুলি করা হয়েছে এবং সে এখন হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করছে। আমাকে বলুন, কোন আইনে আমাকে এভাবে আটকে দেয়া হল।'

প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, প্রিয়াঙ্কা সেখানে যাওয়ার সোনভদ্রায় যেকোনো ধরনের সমাবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

প্রিয়াঙ্কার দাবি, তাকে বলা হয়েছে তিনি গাড়ি করে বারানসি থেকে সোনভদ্রা যেতে পারবেন না। সরকারি গাড়িতে করে নিয়ে যাওয়ার সময় তিনি বলেন, 'আমি জানি না তারা আমাকে কোথায় নিয়ে যাচ্ছে। আমরা যেকোনো জায়গায় যেতে রাজি।'

শুক্রবার সকালেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির লোকসভা আসন বারানসিতে পৌঁছান প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। সেখান থেকে তিনি সোনভদ্রা কাণ্ডে আহতদের দেখতে স্থানীয় হাসপাতালে যান।

ইরানি ড্রোন ধ্বংস করল যুক্তরাষ্ট্র

ইরানি ড্রোন ধ্বংস করল যুক্তরাষ্ট্র
ছবি: সংগৃহীত

যুক্তরাষ্ট্রে নৌবাহিনী হরমুজ প্রণালীতে ইরানের একটি ড্রোন ধ্বংস করেছে বলে দাবি করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

হোয়াইট হাউসে দেওয়া এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) ওই ড্রোনটি মার্কিন জাহাজের এক হাজার গজের মধ্যে চলে আসার পর যুদ্ধ জাহাজ ইউএসএস বক্সার প্রতিরক্ষামূলক পদক্ষেপ নেয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘ড্রোনটি বেশ কয়েক বার হুঁশিয়ারি এবং থামার নির্দেশ উপেক্ষা করে জাহাজ এবং ক্রুদের নিরাপত্তার প্রতি হুমতি তৈরি করায় এমন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। ড্রোনটি সাথে সাথেই ধ্বংস করা হয়েছে।’

আরও পড়ুন: ইরান-ইয়েমেন জলসীমায় সেনা মোতায়েন

তবে ইরান দাবি করেছে, ড্রোন ধ্বংস হওয়ার কোনো তথ্য তাদের কাছে নেই। গত জুনে ওই একই এলাকায় ইরান একটি মার্কিন সামরিক ড্রোন ধ্বংস করেছিল।

এর আগে তেহরান জানিয়েছিল, উপসাগরীয় অঞ্চলে জ্বালানি চোরাচালানের অভিযোগে রোববার (১৪ জুলাই) বিদেশি একটি ট্যাঙ্কার এবং এর ১২ জন ক্রুকে আটক করা হয়েছে।

গত মে মাস থেকে বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ জাহাজ চলাচল এলাকায় ইরানের বিরুদ্ধে ট্যাঙ্কারে হামলার অভিযোগ করে আসছে যুক্তরাষ্ট্র। কিন্তু এসব অভিযোগ নাকোচ করেছে ইরান।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র