Barta24

মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০১৯, ১১ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

ফিলিস্তিনে সাহায্য বন্ধের হুমকি ট্রাম্পের

ফিলিস্তিনে সাহায্য বন্ধের হুমকি ট্রাম্পের
সেন্ট্রাল ডেস্ক ৪


  • Font increase
  • Font Decrease
শান্তিচুক্তির আলোচনায় ‘অনিচ্ছুক’ ফিলিস্তিনিদের সাহায্য বন্ধের হুমকি দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি বলেন, সাহায্যের বিনিময়ে যুক্তরাষ্ট্র কোনো ধরণের ‘কৃতজ্ঞতা কিংবা সম্মান পাচ্ছে না’। মঙ্গলবার একটার টুইটার বার্তায় এসব বলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। ডিসেম্বরে এক বিতর্কিত ঘোষণায় জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেন ট্রাম্প; তেল আবিব থেকে দূতাবাস জেরুজালেমে সরিয়ে নেওয়ারও ঘোষণা দেন তিনি। এ ঘোষণার পরপরই নতুন করে সহিংসতা শুরু হয় ফিলিস্তিনে। যুক্তরাষ্ট্রের এ অবস্থানে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানায় ফিলিস্তিন। শান্তি প্রক্রিয়ায় মার্কিনিদের আর ‘নিরপেক্ষ মধ্যস্থতাকারী’ হিসেবে বিবেচনা করা হবে না বলেও জানায় তারা। এদিকে নতুন বছরের শুরুতে পাকিস্তানেও সাহায্য বন্ধের ঘোষণা দেন ডোনাল্ড ট্রাম্প; কোটি কোটি ডলার সাহায্যের বিনিময়ে দেশটির কাছ থেকে ‘মিথ্যা ও প্রতারণা’ ছাড়া আর কিছুই মেলেনি বলে মন্তব্য করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। ওই টুইটের ধারাবাহিকতায় ফিলিস্তিনকেও সাহায্য বন্ধের হুমকি দেন তিনি। টুইট বার্তায় তিনি জানান “কেবল পাকিস্তানই নয়, যাদেরকে কোনো কারণ ছাড়াই কোটি কোটি ডলার দিয়েছি আমরা। উদাহরণ হিসেবে বলতে পারি, ফিলিস্তিনিদের আমরা প্রতিবছর কয়েকশ কোটি ডলার দিয়েও কোনো কৃতজ্ঞতা বা সম্মান পাচ্ছি না। তারা ইসরায়েলের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে ঝুলে থাকা শান্তি আলোচনায়ও আগ্রহ দেখাচ্ছে না।” জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে ঘোষণা দেওয়ায় শান্তি আলোচনা শুরু হলে তেল আবিবকে ছাড় দিতে হবে বলেও মন্তব্য করেন ট্রাম্প। “আলোচনার সবচেয়ে জটিল অংশ জেরুজালেমকে আমরা টেবিল থেকে সরিয়ে নিয়েছি; এর জন্য ইসরায়েলকে আরও ছাড় দিতে হবে। কিন্তু যেখানে ফিলিস্তিনিরা শান্তি চুক্তি নিয়ে কথা বলতেই আগ্রহী নয়, কেন আমরা তাদের পেছনে কাড়ি কাড়ি টাকা ঢালবো?,” মঙ্গলবার সন্ধ্যায় দেওয়া টুইটে বলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।  
আপনার মতামত লিখুন :

৯০ কেজি ওজনের ব্যক্তির নিচে পড়ে বৃদ্ধের মৃত্যু

৯০ কেজি ওজনের ব্যক্তির নিচে পড়ে বৃদ্ধের মৃত্যু
প্রতীকী ছবি: সংগৃহীত

নিজের বাড়ির সামনে ঘুমিয়ে ছিলেন ষাটোর্ধ্ব মদন লাল। হঠাৎ পাশের ভবন থেকে তার ওপর পড়েন ৯০ কেজি ওজনের এক ব্যক্তি। আর এতেই মৃত্যু হয় মদন লালের। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের দক্ষিণ দিল্লিতে।

দেশটির সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে, গত শনিবার (২২ জুন) দক্ষিণ দিল্লির ললিতা কলোনির বাসিন্দা মদন লাল তার বাড়ির সামনে একটি রিকশা ভ্যানে ঘুমিয়ে ছিলেন। পাশের বাড়ির তিনতলা থেকে তার উপর পড়ে যান ৯০ কেজি ওজনের রবিন্দর। এতে মৃত্যু ঘটে মদন লালের।

দিল্লি পুলিশের ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মদন লাল ঘুমিয়ে থাকায় তার শরীরে ক্ষতির পরিমাণ বেশি হয়েছে। তার ঘাড় ভেঙে গেছে। এছাড়া শরীরের ভেতরেও আঘাত লেগেছে তার।

এ ঘটনায় রবিন্দর নিজেও আঘাত পেয়েছেন। তিনতলা থেকে নিচে পড়ায় তার শরীরের কিছু স্থানেও আঘাত লেগেছে। এছাড়া তার চোখের আশেপাশে কেটে গেছে।

এ ঘটনার পর রবিন্দর পালিয়ে যান। তবে পুলিশের কাছে ধরা পড়ার পর তিনি জানান, ঐ রাতে ছাদের উপর তিনি মোবাইলে কথা বলছিলেন। ছাদের দেয়ালে বসে কথা বলতে বলতে হঠাৎ দুর্ঘটনাবশত তিনি নিচে পড়ে যান।

ঘটনার কিছুক্ষণ আগে মদন লাল তার নাতনির সঙ্গে খেলা করছিলেন। পরে শিশুটি ঘুমিয়ে পড়ায় তিনি তাকে বিছানায় শুইয়ে দিয়ে বাইরে যান। রাত আনুমানিক পৌনে ১০টার দিকে তিনি তার রিকশা ভ্যানে ঘুমিয়ে পড়েন।

মদন লালের প্রতিবেশী নিখাত টাইমস অব ইন্ডিয়াকে জানান, তিনি অনেক জোরে শব্দ শুনতে পান। মনে করেছিলেন মদন লালের উপর কোনো দেয়াল ভেঙে পড়েছে। কিন্তু তিনি দেখতে পান, একটা মোটা মানুষ, যিনি হয়তো মদ্যপ ছিলেন। তিনি নড়াচড়া করতে পারছিলেন না।

তিনি বলেন, ‘আমরা কোনো রকম মদন লালকে সেখান থেকে বের করে পাশের হাসপাতালে নিয়ে যাই। সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।’

ইউরোপে ৪০ ডিগ্রি তাপমাত্রা ছাড়াতে পারে

ইউরোপে ৪০ ডিগ্রি তাপমাত্রা ছাড়াতে পারে
ছবি: সংগৃহীত

জুন মাস থেকে ইউরোপজুড়ে গ্রীষ্মের শুরু হয়। ইউরোপে গ্রীষ্মে তাপমাত্রা মোটামুটি স্বাভাবিক থাকে। ঝড় কিংবা বন্যা ইউরোপবাসীকে ভোগালেও তাপমাত্রার সহনীয়তা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখে। তবে এবারের গ্রীষ্ম বেশ ভয়ানক বার্তা নিয়ে আসছে এই মহাদেশের মানুষদের জন্য। তাপমাত্রা ছাড়াতে পারে ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

বিশ্লেষকরা বলছেন, এটি বিশ্ব জুড়ে জলবায়ু পরিবর্তনের নমুনা।

এদিকে গত বৃহস্পতিবার (২০ জুন) প্যারিসে ৪০ ডিগ্রি তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। প্রতিবারের মতো গোটা ইউরোপে গ্রীষ্মের দিনগুলোতে হালকা ঝড়, বন্যা কিংবা শিলাবৃষ্টি হতে দেখা যায়। কিন্তু তাপমাত্রার এমন নাটকীয় পরিবর্তনে ফলে ইউরোপ বড় ধরনের প্রাকৃতিক দুর্যোগের মুখে পড়তে পারে।

রোববার (২৩ জুন) থেকে স্পেন জুড়ে হলুদ সতর্কতা সংকেত দেখানো হয়েছে।

গবেষকরা বলছেন, আটলান্টিক মহাসাগরের বৃহৎ অংশজুড়ে সৃষ্ট ঝড় গ্রাস করতে পারে মধ্য ও পশ্চিম ইউরোপকে।

ইউরোপে ৪০ ডিগ্রি তাপমাত্রা ছাড়াতে পারে

এই সপ্তাহ ধরে মাদ্রিদ, প্যারিস, বেলজিয়াম, ফ্রাঙ্কফুর্ট এবং বার্লিনে সর্বনিম্ন ৩২ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা পড়তে পারে। রাতে ও তাপমাত্রার বিশেষ কোনো পরিবর্তন হবে না।

আবহাওয়ার পূর্বাভাস বলছে, জার্মানিতে বুধ ও বৃহস্পতিবার সর্বোচ্চ ৩৭ ডিগ্রি তাপমাত্রা রেকর্ড করার সম্ভাবনা আছে।

একই সঙ্গে ফ্রান্সের আবহাওয়া অধিদফতর সতর্ক করে বলেন, আগামীকাল থেকেই ৩৫ থেকে ৪৯ ডিগ্রি তাপমাত্রা পড়তে পারে।

গত বছর জুলাই এবং আগস্টে ফ্রান্সে অস্বাভাবিক তাপমাত্রার কারণে এক হাজার ৫০০ মানুষের মৃত্যু হয়। এরই ধারাবাহিকতাই ফ্রান্সের স্বাস্থ্যমন্ত্রী অ্যাগনেস বুজিন হাসপাতাল এবং স্থানীয় কর্তৃপক্ষকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছেন।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র