Barta24

শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০১৯, ৪ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

জার্মানিতে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত

জার্মানিতে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত
ছবি: সংগৃহীত
সেন্ট্রাল ডেস্ক
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

গত ১৩ জানুয়ারি ২০১৯ (রোববার) জার্মানির মাইন্জ শহরের একটি রেস্টুরেন্টের অডিটোরিয়মে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করে জার্মান বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন। অনুষ্ঠানের আয়োজক ছিলেন ইউনুস আলী খান (সভাপতি বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন) এবং আসমা খান সীমা।

পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের পর সদ্য প্রয়াত জননেতা সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবারের সকল সদস্য এবং সকল শহীদদের উদ্দেশ্যে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

উল্লেখ্য ফাউন্ডেশনের সভাপতি ইউনুস আলী খান গত ১১ জানুয়ারি ২০১৯ শুক্রবার মাইন্জ শহরে একটি মসজিদে প্রায়াত নেতা সৈয়দ আশরাফের আত্মার শান্তি কামনা করে একটি দোয়া মাহফিলের আয়োজন করেন।

নিরবতা পালন শেষে জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে সাংবাদিক হোসাইন আব্দুল হাই-এর পরিচালনায় মূল আলোচনা অনুষ্ঠান শুরু হয়। বক্তারা বঙ্গবন্ধুর ইতিহাস ও আদর্শ নিয়ে আলোচনা করেন।

ফাউন্ডেশনের সভাপতি ইউনুস আলী খান তাঁর বক্তব্যে বঙ্গবন্ধুর নীতি আদর্শের বিভিন্ন দিক তুলে ধরে এই সংগঠনের সকলকে একতাবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান  জানান। বক্তব্য রাখেন যথাক্রমে আসমা খান সীমা, ফউন্ডেশনের প্রধান উপদেষ্টা মাহাবুবুল হক, উপদেষ্টা বীর মুক্তিযাদ্ধা ও আওয়ামী লীগ নেতা কে এম নুরুল ইসলাম, সিনিয়র সহ সভাপতি মনিরুল ইসলাম, জার্মান আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক হাকীম টিট, ফাউন্ডেশনের সহ-সভাপতি বদরুল ইসলাম, সিনিয়র সহ সভাপতি মনিরুল আলম, সহ সভাপতি শেখ মতিন, জার্মান আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি জিল্লুর রহমান, জার্মান আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ইমরান ভুঁইয়া, জার্মান-বাংলা প্রেস ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এবং ফাউন্ডেশনের উপদেষ্টা খান লিটন, বীর মুক্তিযাদ্ধা এম এ খালেক, জার্মান আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্বাস চৌধুরী এবং জার্মান গ্রিন দলের নেতা হামিদুল খান প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশ স্বাধীন হলেও বাংলার মানুষ প্রকৃত স্বাধীনতার স্বাদ পেয়েছিল ১০ জানুয়ারি জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের মধ্য দিয়ে। বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে বাংলাদেশ স্বাধীন হত না।

বক্তারা বাংলাদেশের জনগনের প্রতি ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগকে নিরঙ্কুশভাবে বিজয়ী করার জন্য। তারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সহ নতুন মন্ত্রিসভার সকলের প্রতি অভিনন্দন জানান। প্রধানমন্ত্রীর প্রতি বিশেষ ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের সভাপতি ড.মোমেনকে পররাষ্ট্র মন্ত্রী পদে মনোনীত করায়।

ফউন্ডেশনের সভাপতি ইউনুস আলী খান বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়তে প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে আহ্বান জানান। বিশেষ এই অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন জার্মান শাখার কার্যক্রম আরও বিস্তৃত ও প্রসার ঘটানোর লক্ষ্যে সাংগঠনিক ও সদস্য পদে কয়েকজন যোগ্য ব্যক্তিকে নতুন নিয়োগ প্রদান করা হয়। ব্যক্তিরা হলেন যথাক্রমে- সাংবাদিক হাবিব উল্লাহ্ আল বাহার, মোহাম্মদ নাবী, খান লিটন, এম এ খালেক, শেফালী বানু, নাইমুল হক প্রমুখ।

আলোচনা পর্ব শেষে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি হয়। সংগীত পরিবেশন করেন শিল্পী জালাল আবেদীন, নাইমুল হক ও তার সহধর্মিনী লিমা এবং ফাউন্ডেশনের সাংস্কৃতিক সম্পাদিকা কণা ইসলাম। আবৃতি করেন সাংবাদিক হোসাইন আব্দুল হাই।

আপনার মতামত লিখুন :

ইরানি ড্রোন ধ্বংস করল যুক্তরাষ্ট্র

ইরানি ড্রোন ধ্বংস করল যুক্তরাষ্ট্র
ছবি: সংগৃহীত

যুক্তরাষ্ট্রে নৌবাহিনী হরমুজ প্রণালীতে ইরানের একটি ড্রোন ধ্বংস করেছে বলে দাবি করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

হোয়াইট হাউসে দেওয়া এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) ওই ড্রোনটি মার্কিন জাহাজের এক হাজার গজের মধ্যে চলে আসার পর যুদ্ধ জাহাজ ইউএসএস বক্সার প্রতিরক্ষামূলক পদক্ষেপ নেয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘ড্রোনটি বেশ কয়েক বার হুঁশিয়ারি এবং থামার নির্দেশ উপেক্ষা করে জাহাজ এবং ক্রুদের নিরাপত্তার প্রতি হুমতি তৈরি করায় এমন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। ড্রোনটি সাথে সাথেই ধ্বংস করা হয়েছে।’

আরও পড়ুন: ইরান-ইয়েমেন জলসীমায় সেনা মোতায়েন

তবে ইরান দাবি করেছে, ড্রোন ধ্বংস হওয়ার কোনো তথ্য তাদের কাছে নেই। গত জুনে ওই একই এলাকায় ইরান একটি মার্কিন সামরিক ড্রোন ধ্বংস করেছিল।

এর আগে তেহরান জানিয়েছিল, উপসাগরীয় অঞ্চলে জ্বালানি চোরাচালানের অভিযোগে রোববার (১৪ জুলাই) বিদেশি একটি ট্যাঙ্কার এবং এর ১২ জন ক্রুকে আটক করা হয়েছে।

গত মে মাস থেকে বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ জাহাজ চলাচল এলাকায় ইরানের বিরুদ্ধে ট্যাঙ্কারে হামলার অভিযোগ করে আসছে যুক্তরাষ্ট্র। কিন্তু এসব অভিযোগ নাকোচ করেছে ইরান।

উবারের এক রাইডেই ভাড়া ৮ লাখ টাকা!

উবারের এক রাইডেই ভাড়া ৮ লাখ টাকা!
উবারে ভাড়া বেড়ে গেল ১০০ গুণ, ছবি: সংগৃহীত

উবারে চড়বেন যুক্তরাষ্ট্রের এক নারী যাত্রী। অ্যাপে ভাড়া দেখালো মাত্র ৯৬.৭২ ডলার (৮১২৪ টাকা)। কিন্তু রাইড শেষে ভাড়া দেখে রীতিমতো 'থ' ওই যাত্রী। ভাড়া ১০০ গুণ বেড়ে দাঁড়ায় ৯ হাজার ৬৭২ ডলার যা বাংলাদেশি টাকায় আট লাখ টাকার বেশি।

ওই নারীর স্বামী এক টুইট বার্তায় উবারের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ লেখেন, 'এই যে উবার, আমার বউয়ের কাছ থেকে ৯৬.৭২ ডলারের ভাড়া ৯ হাজার ৬৭২ ডলার চার্জ করেছে। উবারে চড়ার মতো আর কোনো অবস্থা নেই।'

তবে শেষ পর্যন্ত ওই নারীকে আট লাখ টাকা পরিশোধ না করতে হলেও অনেকেই এটাকে প্রতারণা হিসেবে দেখছেন।

এই বিষয়ে উবার জানায়, এই সামান্য ভুলটি হতাশাজনক। ওই যাত্রী থেকে নির্ধারিত ভাড়াই (যা শুরুতে দেখানো হয়েছে) রাখা হয়েছে।

তবে উবারে ভাড়া বেড়ে যাওয়ার ঘটনা এটাই প্রথম না, এর আগে আরেক যাত্রীর ১৯ ডলারের ভাড়া হয়ে গেল এক হাজার ৯০০ ডলার। এতে উবারের বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের যাত্রীরা উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

এদিকে উবারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, 'ভাড়া বেড়ে যাওয়ার বিষয়টি সমাধান হয়েছে।' তবে অন্য যাত্রীদের ক্ষেত্রেও ভাড়া বেড়ে যাওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেছে রাইড শেয়ারিং প্রতিষ্ঠানটি।

এই বিষয়ে ওয়াশিংটন পোস্টের কর্মকর্তা মার্ক স্মিথ বলেন, 'কেউ যদি উবার পেমেন্টের ক্ষেত্রে ডেবিট কার্ড লিংক করে থাকে, তাহলে মুহূর্তেই কেটে নিতে পারে এই বাড়তি অর্থ। এক্ষেত্রে উবার অ্যাপের সঙ্গে ডেবিড কার্ড লিংক করা উচিত নয়।'

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র