Barta24

মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০১৯, ১১ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

পাঁচ রাজ্যের বিধানসভায় বিজেপির ভরাডুবি

পাঁচ রাজ্যের বিধানসভায় বিজেপির ভরাডুবি
ছবি: সংগৃহীত
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
বার্তা২৪


  • Font increase
  • Font Decrease

ভারতের পাঁচ রাজ্যের বিধানসভার নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দল ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) সবকটি আসনে ভরাডুবি হয়েছে। তিনটি আসনে ক্ষমতা হারানোর পাশাপাশি কোন রাজ্যেই সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়নি বিজেপি। বিপরীতে মিজোরাম রাজ্যে ক্ষমতা হারালেও মধ্য প্রদেশ, রাজস্থান ও ছত্তিসগড়ে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে কংগ্রেস।

মঙ্গলবার (১১ ডিসেম্বর) দুপুরের দিকে ভারতের গণমাধ্যমগুলোতে মধ্য প্রদেশ, রাজস্থান, ছত্তিসগড়ে, তেলেঙ্গা ও মিজোরামে বিধানসভার নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশ হতে থাকে।

পাঁচটি রাজ্যে মধ্য প্রদেশ, রাজস্থান, ছত্তিসগড়ে, তেলেঙ্গা ও মিজোরামে ভোটগ্রহণ শেষ হয় গত শুক্রবার (৭ ডিসেম্বর)। এই পাঁচ রাজ্যের মধ্য প্রদেশ, রাজস্থান ও ছত্তিসগড়ে ক্ষমতায় ছিল বিজেপি।

এ নির্বাচনে তিনটি রাজ্যেই কংগ্রেসের কাছে ক্ষমতা হারিয়েছে নরেন্দ্র মোদীর বিজেপি। পাশাপাশি বাকি দুই রাজ্য তেলেঙ্গা ও মিজোরামে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়নি ক্ষমতাসীন দলটি।

এদিকে বিধানসভার নির্বাচনে বিজেপির ভরাডুবি হলেও তিনটি রাজ্যে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে কংগ্রেস। বিজেপির অধীনে থাকা মধ্য প্রদেশ, রাজস্থান ও ছত্তিসগড় তিনটি রাজ্য এখন কংগ্রেসের দখলে।

তবে তিন রাজ্যে জয়ী হলেও কংগ্রেস ক্ষমতা হারিয়েছে মিজোরামে। রাজ্যটিতে সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ক্ষমতাসীন হবে আঞ্চলিক জোট এমএনএফ। অন্যদিকে তেলেঙ্গা রাজ্যে বিপুল ভোটে এগিয়ে রয়েছে তেলেঙ্গানা রাষ্ট্রীয় সমিতি (টিআরএস)। রাজ্যটিতে এর আগেও ক্ষমতায় ছিল দলটি।

ভোটের সংক্ষিপ্ত ফলাফল, মধ্য প্রদেশে ২৩০ আসনে ১১৭ টিতে জয় পেয়েছে কংগ্রেস, রাজস্থানের ১৯৯টি আসনে ১০২ আসনে জয়ী হয়েছে কংগ্রেস, ছত্তিসগড়ে ৯০টি আসনে ৬৩টিতে জয় নিয়ে এ রাজ্যে ক্ষমতায় আসছে কংগ্রেস।

তেলেঙ্গার ১১৯ আসনের ৮৭ আসনেই সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে আঞ্চলিক দল টিআরএস। মিজোরামে ৪০ আসনের ২৬ টিতে জয় পেয়েছে বিজেপির মিত্র জোট এমএনএফ।

উল্লেখ্য, মাত্র ৬ মাস পরেই দেশটিতে লোকসভা নির্বাচন। এ নির্বাচনের আগে বিধানসভার পাঁচ রাজ্যের নির্বাচনে ভরাডুবি অনেকটা অশনি সংকেত ক্ষমতাসীন বিজেপির জন্য।

আপনার মতামত লিখুন :

৯০ কেজি ওজনের ব্যক্তির নিচে পড়ে বৃদ্ধের মৃত্যু

৯০ কেজি ওজনের ব্যক্তির নিচে পড়ে বৃদ্ধের মৃত্যু
প্রতীকী ছবি: সংগৃহীত

নিজের বাড়ির সামনে ঘুমিয়ে ছিলেন ষাটোর্ধ্ব মদন লাল। হঠাৎ পাশের ভবন থেকে তার ওপর পড়েন ৯০ কেজি ওজনের এক ব্যক্তি। আর এতেই মৃত্যু হয় মদন লালের। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের দক্ষিণ দিল্লিতে।

দেশটির সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে, গত শনিবার (২২ জুন) দক্ষিণ দিল্লির ললিতা কলোনির বাসিন্দা মদন লাল তার বাড়ির সামনে একটি রিকশা ভ্যানে ঘুমিয়ে ছিলেন। পাশের বাড়ির তিনতলা থেকে তার উপর পড়ে যান ৯০ কেজি ওজনের রবিন্দর। এতে মৃত্যু ঘটে মদন লালের।

দিল্লি পুলিশের ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মদন লাল ঘুমিয়ে থাকায় তার শরীরে ক্ষতির পরিমাণ বেশি হয়েছে। তার ঘাড় ভেঙে গেছে। এছাড়া শরীরের ভেতরেও আঘাত লেগেছে তার।

এ ঘটনায় রবিন্দর নিজেও আঘাত পেয়েছেন। তিনতলা থেকে নিচে পড়ায় তার শরীরের কিছু স্থানেও আঘাত লেগেছে। এছাড়া তার চোখের আশেপাশে কেটে গেছে।

এ ঘটনার পর রবিন্দর পালিয়ে যান। তবে পুলিশের কাছে ধরা পড়ার পর তিনি জানান, ঐ রাতে ছাদের উপর তিনি মোবাইলে কথা বলছিলেন। ছাদের দেয়ালে বসে কথা বলতে বলতে হঠাৎ দুর্ঘটনাবশত তিনি নিচে পড়ে যান।

ঘটনার কিছুক্ষণ আগে মদন লাল তার নাতনির সঙ্গে খেলা করছিলেন। পরে শিশুটি ঘুমিয়ে পড়ায় তিনি তাকে বিছানায় শুইয়ে দিয়ে বাইরে যান। রাত আনুমানিক পৌনে ১০টার দিকে তিনি তার রিকশা ভ্যানে ঘুমিয়ে পড়েন।

মদন লালের প্রতিবেশী নিখাত টাইমস অব ইন্ডিয়াকে জানান, তিনি অনেক জোরে শব্দ শুনতে পান। মনে করেছিলেন মদন লালের উপর কোনো দেয়াল ভেঙে পড়েছে। কিন্তু তিনি দেখতে পান, একটা মোটা মানুষ, যিনি হয়তো মদ্যপ ছিলেন। তিনি নড়াচড়া করতে পারছিলেন না।

তিনি বলেন, ‘আমরা কোনো রকম মদন লালকে সেখান থেকে বের করে পাশের হাসপাতালে নিয়ে যাই। সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।’

ইউরোপে ৪০ ডিগ্রি তাপমাত্রা ছাড়াতে পারে

ইউরোপে ৪০ ডিগ্রি তাপমাত্রা ছাড়াতে পারে
ছবি: সংগৃহীত

জুন মাস থেকে ইউরোপজুড়ে গ্রীষ্মের শুরু হয়। ইউরোপে গ্রীষ্মে তাপমাত্রা মোটামুটি স্বাভাবিক থাকে। ঝড় কিংবা বন্যা ইউরোপবাসীকে ভোগালেও তাপমাত্রার সহনীয়তা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখে। তবে এবারের গ্রীষ্ম বেশ ভয়ানক বার্তা নিয়ে আসছে এই মহাদেশের মানুষদের জন্য। তাপমাত্রা ছাড়াতে পারে ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

বিশ্লেষকরা বলছেন, এটি বিশ্ব জুড়ে জলবায়ু পরিবর্তনের নমুনা।

এদিকে গত বৃহস্পতিবার (২০ জুন) প্যারিসে ৪০ ডিগ্রি তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। প্রতিবারের মতো গোটা ইউরোপে গ্রীষ্মের দিনগুলোতে হালকা ঝড়, বন্যা কিংবা শিলাবৃষ্টি হতে দেখা যায়। কিন্তু তাপমাত্রার এমন নাটকীয় পরিবর্তনে ফলে ইউরোপ বড় ধরনের প্রাকৃতিক দুর্যোগের মুখে পড়তে পারে।

রোববার (২৩ জুন) থেকে স্পেন জুড়ে হলুদ সতর্কতা সংকেত দেখানো হয়েছে।

গবেষকরা বলছেন, আটলান্টিক মহাসাগরের বৃহৎ অংশজুড়ে সৃষ্ট ঝড় গ্রাস করতে পারে মধ্য ও পশ্চিম ইউরোপকে।

ইউরোপে ৪০ ডিগ্রি তাপমাত্রা ছাড়াতে পারে

এই সপ্তাহ ধরে মাদ্রিদ, প্যারিস, বেলজিয়াম, ফ্রাঙ্কফুর্ট এবং বার্লিনে সর্বনিম্ন ৩২ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা পড়তে পারে। রাতে ও তাপমাত্রার বিশেষ কোনো পরিবর্তন হবে না।

আবহাওয়ার পূর্বাভাস বলছে, জার্মানিতে বুধ ও বৃহস্পতিবার সর্বোচ্চ ৩৭ ডিগ্রি তাপমাত্রা রেকর্ড করার সম্ভাবনা আছে।

একই সঙ্গে ফ্রান্সের আবহাওয়া অধিদফতর সতর্ক করে বলেন, আগামীকাল থেকেই ৩৫ থেকে ৪৯ ডিগ্রি তাপমাত্রা পড়তে পারে।

গত বছর জুলাই এবং আগস্টে ফ্রান্সে অস্বাভাবিক তাপমাত্রার কারণে এক হাজার ৫০০ মানুষের মৃত্যু হয়। এরই ধারাবাহিকতাই ফ্রান্সের স্বাস্থ্যমন্ত্রী অ্যাগনেস বুজিন হাসপাতাল এবং স্থানীয় কর্তৃপক্ষকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছেন।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র