Barta24

বুধবার, ২৪ জুলাই ২০১৯, ৯ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

আটকে গেল সাবেক এমপি রানার মুক্তি

আটকে গেল সাবেক এমপি রানার মুক্তি
এমপি রানা
সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
ঢাকা


  • Font increase
  • Font Decrease

টাঙ্গাইল-৩ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য আমানুর রহমান খান রানাকে দুই যুবলীগ নেতা হত্যা মামলায় হাইকোর্টের দেওয়া স্থায়ী জামিন স্থগিত করেছেন আপিল বিভাগের চেম্বার জজ আদালত। আগামী ১ জুলাই পর্যন্ত জামিন স্থগিত করে ওইদিন এ বিষয়ে শুনানির দিন ধার্য করেছেন আদালত। ফলে আবারো রানার কারামুক্তি আটকে গেল।

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) সকালে রাষ্ট্রপক্ষ জামিন স্থগিতের আবেদন করে। দুপুরে আপিল বিভাগের চেম্বার জজ বিচারপতি মো. নুরুজ্জামান এ স্থগিতাদেশ দেন।

বুধবার (২০ জুন) এ বিষয়ে জারি করা রুল যথাযথ ঘোষণা করে বিচারপতি এ কে এম আসাদুজ্জামান ও বিচারপতি এস এম মজিবুর রহমান সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের দ্বৈত বেঞ্চ আমানুর রহমান খান রানাকে স্থায়ী জামিন দেন।

আদালতে আমানুর রহমানের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মনসুরুল হক চৌধুরী। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

গত ৬ মার্চ হাইকোর্ট রানাকে ছয় মাসের অন্তবর্তীকালীন জামিন দিয়ে তাকে কেন জামিন দেওয়া হবে না তার কারণ জানতে চেয়ে রুল জারি করেছিলেন। পরে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনে জামিন স্থগিত করে রুল নিষ্পত্তি করতে হাইকোর্টকে নির্দেশ দিয়েছিলেন আপিল বিভাগ।।

দুই যুবলীগ নেতা শামীম ও মামুন ২০১২ সালের ১৬ জুলাই টাঙ্গাইল শহরে এসে নিখোঁজ হন। তাদের বাড়ি টাঙ্গাইল সদর উপজেলার বাঘিল ইউনিয়নে। পরদিন শামীমের মা আছিয়া খাতুন সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন। এক বছর পর ২০১৩ সালের ৯ জুলাই নিখোঁজ মামুনের বাবা টাঙ্গাইল আদালতে হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরে শহরের বিশ্বাস বেতকা এলাকার খন্দকার জাহিদ, শাহাদত হোসেন ও হিরণ মিয়াকে আটক করা হলে তারা হত্যায় জড়িত থাকার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।

আপনার মতামত লিখুন :

যুক্তরাজ্য গেছেন এইচআরপিবি‘র প্রেসিডেন্ট মনজিল মোরসেদ

যুক্তরাজ্য গেছেন এইচআরপিবি‘র প্রেসিডেন্ট মনজিল মোরসেদ
এইচআরপিবি‘র প্রেসিডেন্ট মনজিল মোরসেদ

মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি)  প্রেসিডেন্ট অ্যাডভোকেট মনজিল মোরসেদ যুক্তরাজ্য গেছেন। এইচআরপিবির যুক্তরাজ্য শাখা আয়োজিত আন্তর্জাতিক সম্মেলনে যোগ দিবেন তিনি।

বুধবার (২৪ জুলাই) বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে তিনি যুক্তরাজ্যের উদ্দেশে যাত্রা শুরু করেন। এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে এইচআরপিবি।

আগামী ২৮ জুলাই ইস্ট লন্ডনের ব্রাডি আর্টস সেন্টারে এ সম্মেলন হবে। এতে তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখবেন তিনি।

ওই সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন ব্রিটিশ পার্লামেন্টের প্রথম বাঙালি সংসদ সদস্য (এমপি) রুশনারা আলী, সংসদ সদস্য মুকাব্বির খান, যুক্তরাজ্যের ক্রয়ডন কাউন্সিলের মেয়র হুমাউন কবির, নিউহ্যাম কাউন্সিলের ডেপুটি স্পিকার ব্যারিস্টার নাজির আহমদ ও টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের ডেপুটি স্পিকার কাউন্সিলর আহবাব হোসেন। এতে ইউরোপ, আমেরিকা ও মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশ থেকে এইচআরপিবি’র প্রতিনিধিরা অংশ নেবেন।

মনজিল মোরসেদ যুক্তরাজ্য প্রবাসী বাংলাদেশিদের সঙ্গে সরাসরি আলোচনা করে তাদের নানাবিধি আইনগত সমস্যার বিনা ফিতে পরামর্শ দেবেন।

আগামী ৩০ জুলাই তার দেশে ফেরার কথা।

‘মিন্নির জামিন নাকচ ও রিমান্ড আইনের বরখেলাপ’

‘মিন্নির জামিন নাকচ ও রিমান্ড আইনের বরখেলাপ’
জ্যেষ্ঠ আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন

বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় তার স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিকে রিমান্ডে নেওয়া এবং তার জামিন আবেদন নাকচ করায় আইনের বরখেলাপ হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন ফৌজদারি আইন বিশেষজ্ঞ ও জ্যেষ্ঠ আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন।

বুধবার (২৪ জুলাই) হাইকোর্টের অ্যানেক্স ভবনের সামনে গণমাধ্যমকে তিনি বলেন, মিন্নিকে একজন পুরুষ পুলিশ কর্মকর্তার হেফাজতে রিমান্ডে নেওয়া হল। রিমান্ডে নিয়ে তাকে নির্যাতন করা হয়েছে। আমাদের সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশনা অনুযায়ী রিমান্ডে থাকাকালে নির্যাতন করা হলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে হবে। আদালত একবারও চিন্তা করলেন না একজন যুবতী নারী বা মেয়েকে পুরুষ পুলিশ কর্মকর্তার হেফাজতে দেওয়া ঠিক হয়েছে কিনা।

গত ১৭ জুলাই বরগুনার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মাদ সিরাজুল ইসলাম গাজী মিন্নির পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। একই আদালত ২১ জুলাই মিন্নির জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেন।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/24/1563960517213.jpg
সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক এ সভাপতি আরও বলেন, ফৌজদারি কার্যবিধিতে রয়েছে, যেকোন অপরাধে আসামি যদি নারী হন, যদি অসুস্থ হন তাহলে আদালত তাকে জামিন দেবেন। এ ক্ষেত্রে তার (মিন্নি) জামিনের আবেদন করা হল, আইনের সম্পূর্ণ বরখেলাপ করে রাজনৈতিক প্রভাবে অথবা একটা বিশেষ উদ্দেশ্যে মামলার মূল আসামিরা যাতে ধরাছোঁয়ার বাইরে থাকে সেই কারণে তাকে জামিন দেওয়া হল না। এটাও আইনের বরখেলাপ।

আমি মনে করি যেহেতু বিচারিক আদালত আইনের বরখেলাপ করেছেন সেহেতু সুপ্রিম কোর্ট এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন।

লিখিত কোন আবেদন করে হস্তক্ষেপ চাইবেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, আমি করিনি। আমি তো আইনজীবী। এটা আদালতের দায়িত্ব। তাকে যদি জামিন না দেওয়া হয় তাহলে উচ্চ আদালতে যখন আসবেন তখন আমরা এর প্রতিবাদ করব। কে দোষী, কে দোষী নয় সেটা বড় কথা না। আমরা চাই, আইন অনুযায়ী বিচার হবে, আইন অনুযায়ী সাজা হবে।

উচ্চ আদালতে এলে মিন্নিকে আইনি সহায়তা দেবেন কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, অবশ্যই। বিচার যাতে সঠিকভাবে হয়, ন্যায়বিচার যাতে পায় এবং রাজনৈতিক প্রভাবে যাতে বিচার না হয় সেটাই আমরা দেখব।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র