Alexa

বাজেটে ঘাটতি ১ লাখ ৪৫ হাজার কোটি টাকা

বাজেটে ঘাটতি ১ লাখ ৪৫ হাজার কোটি টাকা

বাজেট ঘোষণায় অর্থমন্ত্রী, ছবি: সংগৃহীত

২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে ঘাটতি এক লাখ ৪৫ হাজার কোটি টাকা। বাজেট ঘোষণাকালে এই ঘাটতি উল্লেখ করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

এর আগে বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) বিকেল সোয়া ৩টায় জাতীয় সংসদে ‘সমৃদ্ধ আগামীর পথযাত্রায় বাংলাদেশ, সময় এখন আমাদের, সময় এখন বাংলাদেশের' শিরোনামে দেশের ৪৮তম বাজেট ঘোষণা শুরু করেন অর্থমন্ত্রী। অর্থমন্ত্রী হিসেবে এটা তার প্রথম বাজেট। আর আওয়ামী লীগ সরকারের টানা তৃতীয় বার ক্ষমতায় আসার পর প্রথম বাজেট এটি।

তিনি বলেন, '২০১৯-২০ অর্থবছরের জন্য পাঁচ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকার বাজেট প্রস্তাব করছি। এর মধ্যে উন্নয়নের জন্য বরাদ্দ রাখা হয়েছে দুই লাখ ১১ হাজার ৬৮৩ টাকা। আর পরিচালন ব্যয় তিন লাখ ১০ হাজার ২৬২ কোটি টাকার প্রস্তাব করছি।'

এবারের বাজেট মোট জিডিপির পাঁচ শতাংশ। টাকার অংকে বর্তমানে দেশের মোট জিডিপির পরিমাণ ২৮ লাখ ৮৫ হাজার ৮৭২কোটি টাকা। যা দেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় আকারের বাজেট।

অর্থমন্ত্রী বলেন, 'সবচেয়ে বড় বাজেট বাস্তবায়নের জন্য রাজস্ব আহরণের লক্ষ্যমাত্রা তিন লাখ ৭৭ হাজার ৯৭৩ কোটি টাকার প্রস্তাব করছি। বৈদেশিক ঋণ সহায়তা ও এনবিআর-এনবিআর বহির্ভূত সবমিলিয়ে রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা তিন লাখ ৮১ হাজার ৯৭৮ কোটি টাকার। ফলে এক লাখ ৪৫ হাজার কোটি টাকার ঘাটতির রাখার প্রস্তাব করছি।'

এর আগের অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে ঘাটতি ছিল এক লাখ ২১ হাজার ২৪২ টাকা। এই ঘাটতি পূরণের বৈদেশিক ঋণ সহায়তা থেকে ঋণ ধরা হয়েছে ৬৩ হাজার ৮৪৮ কোটি টাকা। আর অভ্যন্তরীণ খাত থেকে ঋণ নেওয়া প্রস্তাব ধরা হয়েছে ৭৭ হাজার ৭৪৫ কোটি টাকা।

তিনি আরও বলেন, ঘাটতির এই টাকা ব্যাংক খাত থেকে ঋণ নেবে ৪৭ হাজার ৩৬৪কোটি টাকা, ব্যাংক বহির্ভূত খাত তেকে ঋণ নেওয়া হবে ৩০ হাজার কোটি টাকা, জাতীয় সঞ্চয়পত্র থেকে নেওয়া হবে ২৭ হাজার কোটি টাকা।

এছাড়াও অন্যান্য খাত থেকে ঋণ নেয়া হবে ৩ হাজার কোটি টাকা। অন্যদিকে স্বল্প মেয়াদে ১৯ হাজার ২৭০ কোটি এবং দীর্ঘমেয়াদে ২৮ হাজার ৯৪ কোটি টাকার ঋণ নেয়ার প্রস্তাব করা হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :

অর্থনীতি এর আরও খবর