Barta24

বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯, ২ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

সিসিলীয় বন্দরে ৯৩২ অভিবাসী

সিসিলীয় বন্দরে ৯৩২ অভিবাসী
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

৯৩২ জন অভিবাসী নিয়ে ইতিলিয়ান কোস্টগার্ডের একটি জাহাজ ক্যান্টানিয়ার সিসিলিয়া বন্দরে পৌঁছেছে।

ইরিত্রিয়া, সুদান, মালি, আইভোরি কোস্ট এবং গিনি থেকে এসব অভিবান প্রত্যাশীরা এসেছে। যাত্রাকালে শিশু ও গর্ভবতী নারীসহ বেশ কয়েকজনকে জরুরিভাবে সরিয়ে নেয়া হয়। অনেকেই আবার অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। এদের মধ্যে মারা গেছে শিশু এবং নারীসহ বেশ কয়েকজন।

এর একদিন আগে অভিবাসী বোঝাই আরেকটি জাহাকে বন্দরে ঘেষতে দেয়নি ইতালি। মালিতে গ্রহণ না করায় পরে সেই জাহাজটিকে জায়গা দেয় স্পেন।

উদ্ধারকারী সংস্থা এসওএস এর একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, লিবিয়া উপকূলের বিভিন্ন পয়েন্ট থেকে এসব শরণার্থীদের উদ্ধার করা হচ্ছে। ইউরোপের বিভিন্ন বন্দরে এসব অভিবাসন প্রত্যাশীদের তাঁরা নিরাপদে পৌঁছে দেয়ার চেষ্টা করছে।

আজ এক সংবাদ সম্মেলনে সংস্থাটি জানিয়েছে, এসব জাহাজে এমন অনেকে রয়েছেন যারা নিজ দেশে ফিরে যেতে চান না। অনেকে আবার আত্মহত্যাও করতে চায়। এমন পরিস্থিতিতে ইউরোপীয় দেশগুলোর এই আচরণকে অপরাধ বলে মনে করে তারা।

 

 

 

 

 

 

 

 

আপনার মতামত লিখুন :

‘ইয়ুথ ডেলিগেশন টু ইন্ডিয়া ২০১৯’ এ বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্বে ইশরাত

‘ইয়ুথ ডেলিগেশন টু ইন্ডিয়া ২০১৯’ এ বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্বে ইশরাত
ছবি: আহমেদ সামিউর রউফ

বাংলাদেশ ও ভারতের ইতিহাস , সংস্কৃতি ও বন্ধুত্ব দুই দেশের সীমানার মতোই কাছের। এই বন্ধন, বিশ্বাস, ভ্রাতৃত্ব আরও সুদৃঢ় করতে সংস্কৃতির আদান-প্রদানে ২০১২ সালে ভারতের তৎকালীন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জির ইচ্ছায় শুরু হয় 'বাংলাদেশ ইয়ুথ ডেলিগেশন টু ইন্ডিয়া'।

এই আয়োজনের আওতায় প্রতিবছর বাংলাদেশ থেকে বিভিন্ন অঙ্গনের ১০০ জন তরুণ-তরুণীকে ভারত সফরে নিয়ে যায় ঢাকা ভারতীয় হাইকমিশন। ভারতের যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে সপ্তমবারের মতো বাংলাদেশের যুব প্রতিনিধিদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

বরাবরের মতোই দীর্ঘ বাছাই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে শত শত তরুণ-তরুণীর মধ্য থেকে নির্বাচিত হয়েছেন ইশরাত। বলা হচ্ছে, ভারতের জনগোষ্ঠীর মধ্যে সবচেয়ে বেশি যুবশ্রেণী। বাংলাদেশ থেকে যারা ভারতে যাচ্ছেন, তারাও যুবশ্রেণীর। বিভিন্ন অঙ্গনের এই তরুণ-তরুণীরাই আগামীতে নেতৃত্ব দেবেন বাংলাদেশকে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Mar/25/1553471053125.jpg

তাদের মধ্যে একজন উজ্জ্বল নক্ষত্র ইশরাত বিনতে রউফ। ইশরাত এর স্কুল ও কলেজ ছিল দেশের স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ভিকারুননিসা নূন স্কুল এন্ড কলেজ। এস এস সি ও এইচ এস সি তে সর্বোচ্চ সিজিপিএ অর্জন করে ইশরাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের লোক প্রশাসন বিভাগে ভর্তি হন।

তার অভাবনীয় একাডেমিক ফলাফল শিক্ষক ছাত্র সমাজের কাছে পরিচিত করে তোলার পাশাপাশি, এক্সট্রা কারিকুলার কার্যক্রম ও তার অভিজ্ঞতা বাড়তে থাকে। নিজ ডিপার্টমেন্ট এর একজন টপার হিসেবে মাস্টার্স শেষ করার পর তিনি আরো সাফল্য অর্জন করেন। পরবর্তীতে পৃথিবী বিখ্যাত ফ্যাশন ডিজাইনার বিবি রাসেল ম্যাডাম এর একজন মডেল হিসেবে পরিগণিত হন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকেই তিনি বিভিন্ন ভলান্টারি কাজের সাথে যুক্ত ছিলেন। ইউ এস এইড এর নারী ও শিশু স্বাস্থ্য সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক কনফারেন্স এ তিনি ওয়ার্কশপ অ্যাসিস্ট্যান্ট হিসেবে কাজ করেছেন। নিজ ডিপার্টমেন্ট থেকে ইউ এস এইড এর আউটরিচ প্রোগ্রামেও তিনি যোগদান করার সুযোগ পেয়েছিলেন।

ইশরাত বিনতে রউফ তার কাজের পাশাপাশি লেগে পড়েন সামাজিক উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডে . আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন জে সি আই এ তিনি পর্যায়ক্রমে প্রকল্প ব্যবস্থাপক ও সেক্রেটারি জেনেরাল হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। বর্তমানে তিনি একটি ন্যাশনাল ইয়ুথ লেড সংস্থা- জেন ল্যাব এর সাথে কাজ করছেন।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Mar/25/1553471091451.jpg

ইউ এন ডি পির প্রকল্প সমূহতে ইশরাত সুযোগ পান কক্সবাজারের শুকনাছড়ি তে একটি স্কুল পরিদর্শনের, যেখানে প্রায় চল্লিশ শতাংশ শিক্ষার্থী রোহিঙ্গা শিশু। শিশুদের সাথে কথা বলে, সময় কাটিয়ে তিনি জানান, কোমলমতি শিশু ও তাদের পরিবারের এমন দুর্দশা দেখলে অনুধাবন আসে যে আমাদের জীবনে যাই প্রাপ্তি তা অ্যাপ্রিশিয়েট করতে জানতে হবে।

সম্প্রতি ইশরাত ওমেন চ্যাপ্টার নামক ব্লগ সাইটে লেখা শুরু করেছেন। তার প্রথম আর্টিকেলটি হলো, ‘Moral policing: Breaching constitutional rights’.

কাজের নেশা ছাড়াও তার ঘোরাঘুরির নেশা রয়েছে। এখন পর্যন্ত মোট এগারোটা দেশ ঘুরেছেন। বিদেশে ঘুরে বেড়ালেও ভালোবাসার জায়গা চিটাগং ও কক্সবাজার।  

ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা ইশরাতের বড় পরিসর এ সামাজিক উন্নয়ন এ কাজ করতে চান, যুব সমাজ ও আসন্ন যুবদের সাথে নিয়ে এগিয়ে যেতে চান। তার একটি ইউটিউব চ্যানেল নির্মাণাধীন। সময়ের অভাবে কাজটি করতে পারছেন না, কিন্তু খুব শীঘ্রই আরো মানুষের কাছে পৌঁছে যেতে চান ইশরাত রউফ।

সর্বক্ষেত্রে অতি রাজনীতি ব্যাধিতে পরিণত হয়েছে: পীর সাহেব চরমমোনাই

সর্বক্ষেত্রে অতি রাজনীতি ব্যাধিতে পরিণত হয়েছে: পীর সাহেব চরমমোনাই

ঢাকা: নিরাপদ সড়কের দাবিতে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক আন্দোলনে সরকার শক্তি প্রয়োগ করেছে বলে অভিযোগ করেছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর সৈয়দ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই। কোনো মানবিক সরকারের পক্ষে এমন আচরণ করা সম্ভব নয় বলে মন্তব্য করেন তিনি।

শুক্রবার (১০ আগস্ট) রাজধানীর বায়তুল মোকাররমের পূর্ব গেইটে ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলনের ২৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘একটি গণতান্ত্রিক দেশে সাধারণ মানুষ ও সাধারণ শিক্ষার্থীদের মনে আতংক তৈরি করা হয়েছে। কোমলমতি শিক্ষার্থীদের সম্পূর্ণ অরাজনৈতিক আন্দোলনকে সরকার শক্তি প্রয়োগ ও হামলা-মামলার মাধ্যমে দমন করছে। কোনো মানবিক সরকারের পক্ষে এমন আচরণ করা সম্ভব না।’

সর্বক্ষেত্রে অতি রাজনীতি ব্যাধিতে পরিণত হয়েছে মন্তব্য তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক আন্দোলনে সরকার তথাকথিত রাজনীতির গন্ধ পেয়ে হামলা-মামলা করেছে শিক্ষার্থী ও সাংবাদিকদের ওপর। অন্য দিকে কেউ কেউ এই আন্দোলনে ভর করে ক্ষমতায় যাওয়ার পাঁয়তারা করছে। এভাবে সর্বক্ষেত্রে অতি রাজনীতি সবার জন্যই ক্ষতিকর।’

সরকারের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘দেশের প্রতিটি ক্ষেত্রে দুর্নীতি, অনিয়ম ও জবর-দখলের সয়লাব চলছে। মন্ত্রী-বিচারপতি ও পুলিশ বাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তারাও সড়ক আইন মানছেন না। নির্বাচনের নামে ভোট ডাকাতি হচ্ছে, ব্যাংক লুটপাট হচ্ছে। এভাবে দেশ চলতে পারে না।’

পীর সাহেব চরমোনাই আরও বলেন, আগামী জাতীয় নির্বাচন নিয়ে কোনো ধরনের ছলচাতুরী সহ্য করা হবে না। দেশ পরিচালনায় জনমতের যথার্থ প্রতিফলন ঘটাতে হবে। সিইসি যদি এই দায়িত্ব পালনে সাহস না করে, তাহলে তারা পদত্যাগ করুক। কিন্তু অবাধ-সুষ্ঠু নির্বাচন হতেই হবে।

ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সভাপতি শেখ ফজলুল করীম মারুফের সভাপতিত্বে এবং সেক্রেটারি জেনারেল এম. হাছিবুল ইসলামের সঞ্চালনায় সমাবেশে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মহাসচিব অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা ইউনুস আহমাদ, যুগ্ম মহাসচিব অধ্যাপক এটিএম হেমায়েত উদ্দিন, যুগ্ম মহাসচিব অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি মাওলানা ইমতিয়াজ আলম ও ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা শেখ ফজলে বারী মাসউদসহ অন্য নেতারা বক্তব্য রাখেন।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র